Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গাজীপুরে দুই কাভার্ডভ্যানে আগুন, ককটেল বিস্ফোরণ

বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ৬টার দিকে গাজীপুর সিটির ঝাজর এলাকায় আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে

আপডেট : ৩০ নভেম্বর ২০২৩, ১১:০৮ এএম

বিএনপির সকাল-সন্ধ্যা হরতাল চলাকালে গাজীপুরে ককটেল ফাটিয়ে দুটি কাভার্ডভ্যানে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট।

বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) সকাল সোয়া ৬টার দিকে গাজীপুর সিটির ঝাজর এলাকায় আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ফায়ার সার্ভিস জানান, সকালে ১৪-১৫ জন দুর্বৃত্ত ঝাজর এলাকায় লাবিব গ্রুপ ও ডিবিএল পোশাক কারখানার দুটি কাভার্ডভ্যানের গতিরোধ করে। একপর্যায়ে পেট্রোল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়; এ সময় ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনাও ঘটান তারা। খবর পেয়ে জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় আধা ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ডিবিএল পোশাক কারখানার কাভার্ডভ্যানচালক খাদেমুল ইসলাম বলেন, “কাশিমপুর থেকে গাড়ি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ যাচ্ছিলাম। সকাল ৬টার দিকে ৭-৮টি মোটরসাইকেলে ১৪-১৫ জন দুর্বৃত্ত কাভার্ডভ্যানের গতিরোধ করে। এ সময় আমি গাড়ি থামালে তারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে গাড়ির সামনের কাচ ভেঙে ফেলে। একপর্যায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়।”

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, “আগুনে কাভার্ডভ্যান দুটির সামনের অংশ পুড়ে গেছে। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।”

গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম বলেন, “সকালে কে বা কারা দুটি কাভার্ডভ্যানে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

প্রসঙ্গত, সরকারের পতন, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন ও তফসিল বাতিলের দাবিতে বিএনপি ও সমমনা বিরোধী দলগুলোর ডাকা সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যার হরতাল চলছে। বৃহস্পতিবার সকালে শুরু হয়েছে এই কর্মসূচি; এর আগের দিন বুধবার অবরোধ কর্মসূচি পালন করে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো।

হামলা-সংঘর্ষের ঘটনায় গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় বিএনপির মহাসমাবেশ পণ্ড হয়। এর পর থেকেই হরতাল-অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে দলটি। ২৮ অক্টোবরের আগে বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে যে সক্রিয়তা ও উচ্ছ্বাস ছিল, এখন তাতে ভাটা পড়েছে। হরতাল ও অবরোধের টানা কর্মসূচিতে দলের নেতাকর্মীদের রাজপথে সক্রিয় দেখা যায়নি। ঢাকায়ও কোনো তৎপরতা নেই তাদের, দলটির প্রধান কার্যালয়েও ঝুলছে তালা। দৃশ্যত গ্রেপ্তারের ভয়ে সেখানে যান না কোন নেতাকর্মী।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে ভার্চুয়ালি কর্মসূচি ঘোষণা করছেন রুহুল কবির রিজভী। তবে জ্যেষ্ঠ নেতাদের অধিকাংশই এখন কারাগারে। খুব তাড়াতাড়ি তাদের জামিন হবে এমন কোনো তথ্যও নেই দলটির নেতাকর্মীদের কাছে।

বিএনপির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৮ অক্টোবরের মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে মহাসমাবেশের চার-পাঁচ দিন আগে থেকে বুধবার বিকেল পর্যন্ত ১৭ হাজার ১০ জনের বেশি নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় সারাদেশে দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৪৩৫টির বেশি মামলা হয়েছে।

About

Popular Links