Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জাতিসংঘ চায়, প্রত্যেক বাংলাদেশি যাতে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারেন

মোমেন বলেন, সরকার সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে তাদের শাস্তি দিচ্ছে

আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৯:০১ পিএম

জাতিসংঘ বাংলাদেশে এমন একটি নির্বাচন দেখতে চায়, যেখানে প্রত্যেক বাংলাদেশি নির্ভয়ে ভোট দিতে পারবেন।

মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এক প্রশ্নের জবাবে এমন কথা বলেন সংস্থাটির মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক।

তিনি বলেন, “আমরা এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট পক্ষের সঙ্গে যোগোযোগ অব্যাহত রাখব। সেই সঙ্গে বাংলাদেশে এমন একটি নির্বাচন আয়োজনে সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানিয়ে যাব, যাতে প্রত্যেক বাংলাদেশি নির্ভয়ে এবং কোনো ধরনের পাল্টা প্রতিক্রিয়ার আশঙ্কা ছাড়াই ভোট দিতে পারেন।”

এ সময় এক সাংবাদিক স্টিফেন ডুজারিককে প্রশ্ন করেন, রবার্ট এফ কেনেডি হিউম্যান রাইটসসহ ছয়টি শীর্ষস্থানীয় মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশের মৌলিক অধিকার রক্ষার বিষয়ে অবস্থান নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।”

একই প্রশ্নে মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, “সরকার কোনো নিরপরাধ মানুষকে হয়রানি করছে না, সন্ত্রাসীদের শাস্তির জন্য আইনের আওতায় আনছে।”

তিনি বলেন, “আমরা রাজনৈতিক কারণে কাউকে হয়রানি করছি না। আমরা তাদের গ্রেপ্তার করছি যারা সন্ত্রাসী।”

তিনি সাম্প্রতিক দিনগুলোতে সরকারি ও বেসরকারি সম্পত্তি ধ্বংস এবং যানবাহন ও নিরীহ মানুষের ওপর অগ্নিসংযোগের ঘটনা উল্লেখ করেন।

মোমেন বলেন, “বাংলাদেশ সন্ত্রাস ও সন্ত্রাসের প্রতি জিরো টলারেন্স নীতি দেখায়।”

তিনি যারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত তাদের সন্ত্রাসের পথ পরিহার করে যথাযথ রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানান।

মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মোমেন বলেন, “মানবাধিকার রক্ষায় অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ একটি মডেল দেশ।”

এক প্রশ্নের জবাবে ড. মোমেন বলেন, “মানবাধিকার রক্ষার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ একটি আদর্শ দেশ। বাংলাদেশ মানবাধিকার বিষয়ে অন্যদের শিক্ষা দিতে পারে।”

তিনি বলেন, “গাজার দিকে তাকান, সেখানে কী হচ্ছে? অনেক উন্নত দেশে, ক্লাবে, স্কুলে, যেকোনো জায়গায় মানুষ হত্যা করা হয়।”

About

Popular Links