Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ভালোবাসা দিবসে কক্সবাজারে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়

 দিবসটিকে ঘিরে কক্সবাজারে আসা যুগলবন্দিদের কথা চিন্তা করে তারকা মানের হোটেলগুলোতে দেয়া হয়েছে বাড়তি সুযোগ-সুবিধা 

আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:২৫ পিএম

আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালবাসা দিবস। এই ভালবাসা দিবসের রঙ লেগেছে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র শহর কক্সবাজারে। ভালবাসার রঙ ও সমুদ্রের উত্তাল টেউয়ের ছন্দে উচ্ছ্বাসে মেতে উঠছে পর্যটকসহ তরুণ-তরুণী। আর এই সুযোগকে কাজে লাগাতে তারকামানের হোটেল মোটেলগুলোকে সাজিয়েছে ভালবাসার রঙে। 

পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা বলছেন, বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে পর্যটন শহর কক্সবাজারে পর্যটকের উপচে পড়া ভীড় হয়েছে। কক্সবাজারের সবক’টি আবাসিক হোটেল মোটেল ইতিমধ্যে বুকিং হয়ে গেছে। কক্সবাজারে আসা এসব যুগলবন্দিদের কথা চিন্তা করে তারকা মানের হোটেলগুলোতে দেয়া হয়েছে বাড়তি সুযোগ-সুবিধা। ভালবাসা দিবস ও আগামী সপ্তাহ জুড়ে তিন লাখ পর্যটকের আগমন ঘটবে বলে আশা করছেন তারা।

কক্সবাজার লং বিচ হোটেলের ব্যবস্থাপক সজিব চক্রবর্তী বলেন, ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’ উপলক্ষ্যে লংবীচ হোটেল সব সময় ব্যতিক্রম কিছু করতে চেষ্টা করে থাকে। এবারেও আমরা খাবারের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়েছি। কারণ আমরা চাই আমাদের হোটেলে আসা সব ক্লায়েন্ট খুশি হোক। সে লক্ষ্য মাথায় রেখে ভ্যালেন্টাইন্স ডে-তে যুগলদের জন্য খাবারের স্পেশাল অফার ঘোষণা করা করেছে কর্তৃপক্ষ। 

কক্সবাজারের অন্যতম তারকামানের হোটেল সী-গার্লের সহ-ব্যবস্থাপক নুরে-আলম বলেন, ‘বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে কক্সবাজারে পর্যটকদের সংখ্যা বেড়েছে। বিশ্ব ভালবাসা দিবসের পরও পর্যটকদের সংখ্যা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে’।  

কক্সবাজার ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশনের সভাপতি এসএম কিবরিয়া বলেন, ‘বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে ইতোমধ্যেই টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে চলাচলকারী জাহাজগুলোর টিকিট শেষ হয়ে গেছে। কক্সবাজার শহর ছাড়িয়ে দেশের প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনে ভিড় জমাচ্ছে তরুণ-তরণীরা’।

কলাতলী মেরিন ড্রাইভ হোটেল মোটেল মালিক সমিতিরি সাধারণ সম্পাদক মুখিম খান বলেন, ‘শুধু বিশ্ব ভালবাসা দিবস নয়, ফাল্গুন, সরকারি ছুটি ও ২১ শে ফেব্রুয়ারি বন্ধ উপলক্ষে এখন থেকে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড় লেগে আছে। ইতিমধ্যে ভালবাসা দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন হোটেল তাদের নিজস্ব কিছু কার্যক্রম হাতে দিয়েছে। আশা করা হচ্ছে সব কিছু ঠিকটাক থাকলে এ মাসে পর্যটন ব্যবসায়ীরা ভাল ব্যবসা করতে পারবে। এতে করে পর্যটন শিল্প বিকাশে অনেকটা সহায়ক হবে’।

কক্সবাজার হোটেল মোটেল ও গেস্টহাউস মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক আবুল কাসেম সিকদার বলেন, ‘বিশ্ব ভালবাসা দিবসে পর্যটকদের আগমন বেড়েছে। কক্সবাজারের ছোট-বড়-মাঝারী সকল হোটেল-মোটেল, কটেজ, রেষ্টহাউস ও গেষ্ট হাউসগুলো আগে থেকেই বুকিং হয়ে গেছে। অনেক হোটেল-মোটেল আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পর্যন্তও বুকিং হয়ে গেছে। এতে করে অতিরিক্ত আরও তিন লাখ পর্যটকের আগমন ঘটবে বলে আশা করা যাচ্ছে’। 

অপরদিকে বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে কক্সবাজারের বিভিন্ন পর্যটন স্পট গুলোতে কক্সবাজার জেলা পুলিশ ও ট্যুরিস্ট পুলিশ কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা জোরদার করেছে। কক্সবাজার ট্যুরিস্ট জোনের পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান বলেন, ‘পর্যটকদের আগমন ও স্থানীয়দের পদচারনা নিরাপদ করতে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব, সাদা পোশাকধারী পুলিশ আইন শৃংখলা রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছে। তাছাড়া হোটেল-মোটেলের নিরাপত্তা রক্ষার জন্য আলাদা সিভিল টিম রাখা হয়েছে। পাশাপাশি সৈকতজুড়ে বাড়তি নিরাপত্তাও জোরদার করা হয়েছে’।




About

Popular Links