Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পর্যটনকেন্দ্র জাফলং সড়কের ১৫ কিলোমিটারে ১৫ বিপজ্জনক বাঁক

এ মহাসড়কে মাঝে মধ্যেই দুর্ঘটনা ঘটছে। এর জন্য এসব বাঁককে দায়ী করেছেন সংশ্লিষ্টরা

আপডেট : ২১ জানুয়ারি ২০২৪, ০৮:১৩ পিএম

সিলেট জেলা সদর থেকে জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র জাফলংয়ের দূরত্ব ৫৫ কিলোমিটার। সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের এই ৫৫ কিলোমিটার অংশের মধ্যে দুর্ঘটনাপ্রবণ হিসেবে পরিচিত জৈন্তাপুর-জাফলং অংশটি। এই অংশটি ১৫ কিলোমিটারের। আর এই সড়কটুকুতেই রয়েছে অন্তত ১৫টি বিপজ্জনক বাঁক।

এ মহাসড়কে মাঝে মধ্যেই দুর্ঘটনা ঘটছে। এর জন্য এসব বাঁককে দায়ী করেছেন সংশ্লিষ্টরা। সর্বশেষ শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) রাতে সড়কটিতে এ দুর্ঘটনায় ছাত্রলীগের চার কর্মীর মৃত্যু হয়েছে।

হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে চার বন্ধুকে বহনকারী প্রাইভেট কার তামাবিল সড়কের বাংলা বাজার এলাকার লক্ষ্মীপুর নামক স্থানে পাশের পুকুরে পড়ে যায়। পানির মধ্যে গাড়িটি উল্টে যাওয়ায় যাত্রীরা গুরুতর আঘাত পান।

পুলিশ জানিয়েছে, ফাঁকা রাস্তার মধ্যে গাড়িটি রাস্তার বামপাশে ছিটকে পড়ে। এ দুর্ঘটনার জন্য বেপরোয়া গতির পাশাপাশি রাস্তার বাঁক দায়ী।

হাইওয়ে পুলিশের তামাবিল ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) মো. ইউনুছ জানান, সড়কের জৈন্তাপুর-জাফলং অংশে অন্তত ১৫টি বাঁক রয়েছে। এসব বাঁক খুবই দুর্ঘটনাপ্রবণ। প্রায়ই এসব বাঁকে দুর্ঘটনা ঘটে।

হাইওয়ে পুলিশ সিলেট অঞ্চলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, “রাস্তার বাঁক নাকি ঘন কুয়াশার কারণে দুঘটনা হয়েছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। রাতে মহাসড়কে কোনো গাড়ি থাকে না। দুর্ঘটনাকবলিত প্রাইভেট কারটি বেপরোয়া গতিতে চলছিল কি না সেটিও দেখার বিষয়।”

জৈন্তাপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, “দুর্ঘটনাকবলিত এলাকায় একটি ছোট ব্রিজের পাশাপাশি হালকা বাঁকও রয়েছে। সরু ব্রিজ ও বাঁক দুর্ঘটনার কারণ হতে পারে।

তিনি বলেন, “নিহত চার বন্ধুসহ ৭-৮ জন রাতে জৈন্তাপুরের একটি রেস্টুরেন্টে খাওয়া-দাওয়া করেন। রাত সাড়ে ১১টার দিকে তারা শ্রীপুরের উদ্দেশে রওনা দেন। কিছু দূর যেতেই তারা দুর্ঘটনার কবলে পড়েন।”

স্থানীয় সাংবাদিক নূরুল ইসলাম জানান, ওই স্থানে এর আগেও বেশ কয়েকটি দুর্ঘটনা ঘটেছে। বিশেষ করে ওই সড়কের সরু ব্রিজটি দুর্ঘটনার জন্য অনেকাংশে দায়ী। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থা নেওয়া জরুরি।

জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাজেদুল ইসলাম জানান, শুক্রবারের দুর্ঘটনার জন্য কোনো তদন্ত কমিটি গঠিত হয়নি। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ভাঙচুরের বিষয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

হাইওয়ে পুলিশ জানিয়েছে, নিহত নিহাল পালের বাবা বনধীর পাল বাদি হয়ে এ বিষয়ে জৈন্তাপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলার সূত্র ধরেই তারা দুর্ঘটনার অনুসন্ধান চালাচ্ছেন।

ছাত্রলীগের ৩০০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ছাত্রলীগের চার কর্মীর মৃত্যুতে ক্ষুব্ধ হয়ে জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভাঙচুরের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান ডা. মো. সালাউদ্দিন মিয়া বাদি হয়ে শনিবার রাতে এ মামলা দায়ের করেন।

মামলায় অজ্ঞাতনামা ২৫০-৩০০ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট জেলা পুলিশের সহকারি পুলিশ সুপার সম্রাট তালুকদার।

তিনি বলেন, “এ দুর্ঘটনাকে ঘিরে স্থানীয় কিছু লোকজন হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স চাওয়াকে কেদ্র করে উত্তেজিত হয়ে অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুর, হাসপাতাল ভবনের জানালার কাচ, হাসপাতাল কোয়ার্টারের জানালার কাচ ও হাসপাতাল কোয়ার্টারের গ্যারেজে থাকা চিকিৎসকের ব্যবহৃত একটি গাড়ি ভাঙচুর করে। এক পর্যায়ে স্থানীয় লোকজন গ্যারেজে থাকা গাড়িটিতে আগুন লাগিয়ে দেয়।”

About

Popular Links