Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এমআইটিতে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে যোগ দিলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

জাহিদ ‘‘ভাইল ফারমিওন’’ আবিস্কার করে সাড়া ফেলেন

আপডেট : ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:২৩ পিএম

বাংলাদেশি বিজ্ঞানী এম জাহিদ হাসান ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে (এমআইটি) ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে যোগ দিয়েছেন।  জাহিদ হাসান এ খবরটি তার ফেসবুক টাইমলাইনে প্রকাশ করেন। আগামী মে তে তিনি এ পদে যোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন।

এমআইটিতে তিনি কোয়ান্টাম ম্যাটার এবং কোয়ান্টাম টপোলজি বিষয়ে তিনি শিক্ষার্থীদের পড়াবেন। 

বর্তমানে তিনি প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞানের অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। জাহিদ ‘‘ভাইল ফারমিওন’’ আবিস্কার করে সাড়া ফেলেন। একদল বিজ্ঞানীর সঙ্গে অধরা এ কণা আবিস্কার করে প্রশংসিত হন। যা সাম্প্রতিককালে পদার্থবিজ্ঞানে একটি অনবদ্য আবিস্কার হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। 

জার্মান পদার্থবিদ হারম্যান ভাইল ১৯২৯ সালে এই বিষয়ে গবেষণা শুরু করেন। তবে জাহিদের দল তারও ৮৫ বছর পর উইল ফার্মিয়ন আবিস্কার করতে সমর্থ হন।  

ফার্মিয়ন কণা আবিস্কারের পথ ধরে এবার তিনি নিয়ে এসেছেন আরও এক চমক! বিশ্ববাসীকে অবাক করে দেয়ার মতো তার নতুন চমকের নাম ‘‘টপোলজিক্যাল ক্যাগোমে কোয়ান্টাম চুম্বক’। তার এই আবিস্কারটির কথা প্রকাশিত হয় ২০১৮ সালের ১২ সেপ্টেম্বর যুক্তরাজ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক জার্নাল ‘‘নেচার’’-এ। ক্যাগোমে কোয়ান্টাম চুম্বক আবিস্কারের ফলে কম্পিউটার বর্তমানের চেয়ে শতগুণ বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন হবে এবং মেডিকেল পরীক্ষা-নিরীক্ষার ক্ষেত্রে যুক্ত হবে অধিকতর প্রযুক্তি।

অধ্যাপক ড. জাহিদ হাসানের নেতৃত্বে প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটির ২২ সদস্যের একদল গবেষক দীর্ঘদিন গবেষণার পর আবিস্কার করতে সক্ষম হয়েছেন ‘ক্যাগোমে কোয়ান্টাম চুম্বক’। 

১৯৮৬ সালে ধানমণ্ডি সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন জাহিদ হাসান। এসএসসিতে ঢাকা বোর্ডে সম্মিলিত মেধা তালিকায় দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন। আর ১৯৮৮ সালে ঢাকা কলেজ থেকে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে সম্মিলিত মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অধিকার করে এইচএসসি পাস করেন। এরপর গণিতে ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। চার দিন ক্লাস করার পর আর তিনি বিশ্ববিদ্যালয়েই যাননি। 

ওই বছরই স্কলারশিপ নিয়ে চলে যান আমেরিকা জাহিদ। অস্টিনের টেক্সাস ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হন পদার্থবিজ্ঞানে। সুযোগ হয় নোবেল বিজয়ী তত্ত্বীয় পদার্থবিজ্ঞানী স্টিফেন ভাইনভার্গের কাছে শিক্ষা গ্রহণের। এরপর মাস্টার্স ও পিএইচডি করতে চলে যান স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে। 
 
পরে তিনি প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দেন। সেখানে অন্তত ২০ জন পিএইচডি গবেষককের মেন্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন জাহিদ হাসান।  

 

About

Popular Links