Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এক ঝড়ে বঙ্গোপসাগরে ডুবল ২০ ট্রলার

এ ঘটনায় অর্ধশতাধিক লোক নিখোঁজ হন

আপডেট : ০৮ মে ২০২৪, ১০:১১ পিএম

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় বঙ্গোপসাগরের উপকূলে অন্তত ২০টি লবণবোঝাই ট্রলার ডুবে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় অর্ধশতাধিক লোক নিখোঁজ হয়েছেন। দুর্ঘটনার পর নৌপুলিশ এবং কোস্ট গার্ডের সহায়তায় সাগর থেকে ৩০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে।

বুধবার (৮ মে) সকাল ৯টা থেকে ১০টার দিকে বঙ্গোপসাগরের আনোয়ারা উপকূলীয় এলাকায় ট্রলারডুবির এসব ঘটনা ঘটে।

এসব ট্রলার কক্সবাজারের কুতুবদিয়া, মহেশখালী ও বাঁশখালী থেকে লবণবোঝাই করে সাগরপথে চট্টগ্রাম নগরীর দিকে যাচ্ছিল।

ঝড়ের কবলে ডুবে যাওয়া ট্রলারগুলোর মধ্যে একটি ‘‘বার আউলিয়া’’। ওই ট্রলারের মাঝি মো. ফারুক বলেন, ‘‘কুতুবদিয়া থেকে সকালে লবণ বোঝাই করে চট্টগ্রাম শহরের দিকে যাচ্ছিলাম। এরমধ্যে বঙ্গোপসাগরের আনোয়ারা উপকূলীয় এলাকায় পৌঁছালে প্রচণ্ড ঝোড়ো হাওয়া শুরু হয়। এতে আমাদের ট্রলারটি উল্টে গিয়ে ডুবে যায়।’’

তিনি জানান, কিছু দূরে কমপক্ষে ৩০টির বেশি ট্রলার ছিল। এরমধ্যে কোনোটি মহেশখালী আবার বাঁশখালী থেকেও লবণ নিয়ে চট্টগ্রাম শহরে যাচ্ছিল। কমপক্ষে ২০টি লবণবোঝাই ট্রলার ডুবে গেছে। প্রতিটি ট্রলারে ৫ থেকে ৭ জন মাঝিমাল্লা ছিলেন।

গহিরা বার আউলিয়া নৌপুলিশের ইনচার্জ এসআই টিটু দত্ত বলেন, ‘‘আজ সকালে বঙ্গোপসাগরে আনোয়ারা উপকূলে বেশ কয়েকটি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে নৌপুলিশ দুটি বোট নিয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। সাগর থেকে দুই দফায় ২০ জনকে উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও কোস্ট গার্ডের একটি টিম সাগরে উদ্ধার তৎপরতা চালায়। তারাও বেশ কয়েকজনকে উদ্ধার করে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে।’’

তিনি আরও বলেন, ‘‘উদ্ধার হওয়া ট্রলারের মাঝিদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলেছে, ট্রলারে লবণ নিয়ে কুতুবদিয়া, বাঁশখালী ও মহেশখালী থেকে চট্টগ্রাম শহরে যাচ্ছিল। সাগরে হঠাৎ ঝোড়ো হাওয়া শুরু হলে উল্টে যায় ২০টির বেশি ট্রলার। প্রতিটি ট্রলারে ৫-৬ জন করে মাঝিমাল্লা ছিল। তবে বহরে ৩০-৩৫টি ছিল বলে তারা জানিয়েছে। এখন পর্যন্ত কতটি ট্রলার ডুবেছে এবং এতে কতজন মাঝিমাল্লা ছিল তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে কেউ মারা গেছে বা হতাহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়নি।’’

চট্টগ্রাম সদরঘাট নৌপুলিশের ওসি মো. একরাম উল্লাহ জানান, এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন মাঝিমাল্লাকে নৌপুলিশ এবং কোস্টগার্ড যৌথভাবে উদ্ধার করেছে। স্থানীয় লোকজনও বেশ কয়েকজনকে উদ্ধার করে। তবে এখন পর্যন্ত হতাহতের ব্যাপারে জানা যায়নি।

About

Popular Links