Monday, June 17, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মেয়েকে স্কুলে ভর্তি করতে গিয়ে মঈন জানলেন তিনি ‘মৃত’

বিষয়টি সংশোধনের আবেদন করেছেন ভুক্তভোগী

আপডেট : ২০ মে ২০২৪, ০৬:৪২ পিএম

সুনামগঞ্জের একটি বিদ্যালয়ে মেয়েকে ভর্তি করতে নিয়ে গিয়েছিলেন মেস্তী মঈন উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি। তবে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অনলাইনে তার তথ্য যাচাই করতে গিয়ে দেখতে পায়, ‘‘বেঁচে নেই মেস্তী মঈন উদ্দিন’’।

সোমবার (২০ মে) এ তথ্য জানিয়েছেন তিনি নিজেই।

মেস্তী মঈন উদ্দিন জগন্নাথপুর উপজেলার চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নের কবিরপুর গ্রামের বাসিন্দা।

তিনি জানান, সম্প্রতি মেয়েকে বিদ্যালয়ে ভর্তি করার জন্য তাকে নিয়ে স্থানীয় হাজী আবদুর রশিদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান।

বিদ্যালয়ের অনলাইনে ভর্তি ফরম রেজিস্ট্রেশন করতে গিয়ে মঈন উদ্দিনের জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য যাচাই করতে অনলাইনে নিবন্ধিত তথ্য খুঁজে দেখা হয়।

এ সময় বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়, অনলাইনের তথ্য অনুযায়ী মঈন উদ্দিন মৃত। তার তথ্য সংশোধন করতে হবে।

এদিকে এমন কথা জেনে মেয়ের ভর্তি নিয়ে বিপাকে পড়েন তিনি।

মঈন উদ্দিন বলেন, ‘‘মেয়েকে বিদ্যালয়ে ভর্তি করতে গিয়ে জানতে পারি, অনলাইনে আমার পরিচয়পত্রে আমাকে মৃত দেখাচ্ছে। কর্তৃপক্ষ বিষয়টি সংশোধন করার জন্য বলেছেন। এজন্য স্থানীয় নির্বাচন অফিসে এসেছি সংশোধনের জন্য। রবিবার আবেদন করেছি।’’

জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান জানান, ভোটার হালনাগাদকালে তথ্যদাতার তথ্য অনুযায়ী ভোটার আইডি কার্ড তৈরি করা হয়েছে। তথ্যের ভুলের কারণে এ রকম রয়েছে। বিষয়টি সংশোধনের আবেদন করেছেন ভুক্তভোগী।

About

Popular Links