Tuesday, June 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জেনারেল আজিজ: কোনো অপরাধ করিনি যে শাস্তি পেতে হবে

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন জেনারেল আজিজ আহমেদ

আপডেট : ২১ মে ২০২৪, ০২:৪৬ পিএম

দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগে বাংলাদেশের সাবেক সেনাপ্রধান অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল আজিজ আহমেদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট। এতে অবাক হয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, “আমি এমন কোনো অপরাধ করিনি যে শাস্তি পেতে হবে।”

মঙ্গলবার (২১ মে) দুপুরে তিনি এ মন্তব্য করেন। অসত্য তথ্যের ভিত্তিতে এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, “কোনো তথ্য প্রমাণ ছাড়া তো অভিযোগ প্রমাণিত নয়। যুক্তরাষ্ট্র কীসের ভিত্তিতে কোন অভিযোগের ওপর ভিত্তিতে আমার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে তারাই ভালো বলতে পারবেন।”

তবে যুক্তরাষ্ট্রের এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আইনি বা কোনো প্রতিক্রিয়া না দেওয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমি মনে করি এগুলো সত্য নয়। তাই এর প্রতিবাদ জানানোর প্রয়োজন মনে করছি না।”

তিনি বলেন, “বিজিবির মহাপরিচালক এবং সেনাপ্রধান থাকাকালীন সময়ে আমার কোনো ভাই বা নিকটাত্মীয় এই দুই প্রতিষ্ঠানের কোথাও ঠিকাদারি করেছে তার কোনো তথ্যপ্রমাণ দিতে পারলে আমি সব মেনে নেব। শুধু তাই নয়, এই প্রতিষ্ঠান দুটিতে তাদের কোনো লাইসেন্স ছিল সেটার প্রমাণ দিতে পারলেও আমি সব শাস্তি মেনে নেব।”

তিনি বলেন, “২০২১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি আল জাজিরায় ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস ম্যান’ নামক একটি নাটক মঞ্চস্থ হয়েছিল। তার সঙ্গে এই নিষেধাজ্ঞা ওতপ্রোতভাবে সম্পৃক্ত। অভিযোগ দুইটা একই, কিন্তু এখানে বিস্তারিত বলা হয়নি। প্রথম অভিযোগ হলো- আমি আমার ভাইকে বাংলাদেশের যে আইন আছে, তার (ভাই) অপরাধ কর্মকাণ্ড থেকে সে যেন এড়িয়ে চলতে পারে; সেজন্য আমি আমার পদ-পদবি ব্যবহার করে তাকে সহযোগিতা করে আমি করাপশন করেছি। এর উত্তর হলো- আমার সেই ভাই আমি জেনারেল হওয়ার অনেক আগেই বিদেশে গেছে। সে নিশ্চয়ই বৈধ পাসপোর্ট নিয়েই বিদেশে গেছে। তার চলে যাওয়া বা দেশের প্রচলিত আইন ফাঁকি দেওয়ার ব্যাপারে আমি আমার পদ-পদবি ব্যবহার করেছি- এই অভিযোগটা আমি মেনে নিচ্ছি না। মেনে নিতে পারি না, এটা সঠিক নয়।”

জেনারেল আজিজ আহমেদের ওপর সোমবার নিষেধাজ্ঞা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়। এই নিষেধাজ্ঞার কারণে আজিজ আহমেদ ও তার পরিবারের সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারবেন না।

ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলারের সংবাদ বিবৃতিতে বলা হয়, উল্লেখযোগ্য দুর্নীতিতে সম্পৃক্ততার কারণে সাবেক জেনারেল (অব.) আজিজ আহমেদকে, পূর্বে বাংলাদেশের সেনাবাহিনী প্রধান, ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট, ফরেন অপারেশন অ্যান্ড রিলেটেড প্রোগ্রামস অ্যাপ্রোপ্রিয়েশনস অ্যাক্টের ৭০৩১ (সি) ধারার আওতায় অন্তর্ভুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে পররাষ্ট্র দপ্তর। এর ফলে আজিজ আহমেদ এবং তার পরিবারের সদস্যরা সাধারণত যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের জন্য অযোগ্য হবেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, তার (আজিজ আহমেদ) কর্মকাণ্ডে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো এবং সরকারি প্রতিষ্ঠান ও প্রক্রিয়ার ওপর জনগণের আস্থা ক্ষুণ্ন করতে ভূমিকা রেখেছে।

About

Popular Links