Tuesday, June 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রাজধানীতে বোমা কারখানার সন্ধান, ৬৫ হাতবোমাসহ আটক ৩

র‌্যাবের ধারণা- বোমাগুলো ভয়াবহ বিপজ্জনক এবং উপজেলা নির্বাচনসহ অন্যান্য ঘটনায় সেগুলো ব্যবহার করতে তৈরি করা হচ্ছিল

আপডেট : ২৩ মে ২০২৪, ০৯:৫৮ এএম

রাজধানীর বাড্ডার টেকপাড়া এলাকায় বোমা তৈরির একটি কারখানা থেকে ৬৫টি হাত বোমাসহ তিনজনকে আটক করার কথা জানিয়েছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাব।

বুধবার (২২ মে) রাতে র‍্যাব-৩-এর একটি দল ওই কারখানায় অভিযান চালায়।

র‌্যাবের ধারণা- বোমাগুলো ভয়াবহ বিপজ্জনক এবং উপজেলা নির্বাচনসহ অন্যান্য ঘটনায় সেগুলো ব্যবহার করতে তৈরি করা হচ্ছিল।

বুধবার রাত ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে এক সংবাদ বিফ্রিংয়ে র‍্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. ফিরোজ কবীর বলেন, “বোমা তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়ে এলাকাটি ঘিরে রাখা হয়। পরে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট পৌঁছালে অভিযান শুরু হয়।”

অভিযান শেষে ফিরোজ কবীর সাংবাদিকদের বলেন, “৮ থেকে ১০ দিন আগে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রিক একটি গ্রুপ ঢাকা শহরে বোমা তৈরি করছে এমন খবর পায় র‍্যাব। এরপরে তাদের কার্যক্রম অনুসরণ করে তথ্য পাওয়া যায়, বুধবার পূর্ব-বাড্ডার টেকপাড়া এলাকার একটি বাসায় আধুনিক হাত বোমা তৈরি করছে চক্রটি।”

তিনি জানান, সেই তথ্যের ভিত্তিতে র‍্যাব-৩-এর একটি দল বাসাটি ঘিরে অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় হাতেনাতে তিনজনকে আটক করা হয় এবং ৬৫টি হাতবোমাসহ বোমা তৈরির বিপুল সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

আটকরা হলেন- ফাহিম, লিমন ও আকুল। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাতে র‌্যাব বলছে, তারা মূলত জুতার কারখানায় কাজ করে। সজীব নামে এক ব্যক্তির মাধ্যমে এখানে ২৬,০০০ টাকার চুক্তিতে হাতবোমা বানানোর কাজে আসে। তাদের দায়িত্ব ছিল বোমাগুলো তৈরির পর ঘরের ভেতরে রেখে তালা মেরে চাবি মাটির নিচে পুতে রাখা। শুধু সজীবই জানবে চাবি রাখার বিষয়টি।

র‍্যাব-৩ এর অধিনায়ক বলেন, “বোমাগুলো বুধবার রাতে অনাবিল পরিবহনের বাসে করে গাজীপুর পাঠিয়ে দেওয়ার কথা ছিল। গাজীপুরে বোমাগুলো কার কাছে যাবে, সেটি জানেন না সজীব। তবে মাসুম নামে একজন সেগুলো বাস থেকে নিয়ে যাবেন সেই তথ্য ছিল তার কাছে।”

ফিরোজ কবীর বলেন, “র‍্যাব-৩-এর বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট উদ্ধারকৃত বোমাগুলো পর্যালোচনা করে বলেছে, সেগুলো সাধারণ ককটেলের মতো নয়, বরং ভয়াবহ বিপজ্জনক।”

তিনি আরও বলেন, “জঙ্গিদের কাট-আউট সিস্টেমে অর্থাৎ চক্রের একজন অন্যজন সম্পর্কে জানলেও তৃতীয়জন সম্পর্কে জানবে না এমন পদ্ধতিতে বোমাগুলো বানানো হচ্ছিল। আটক তিনজন অর্থের বিনিময়ে বোমা তৈরি করতে এসেছে। তারা আগেও এভাবে টাকার বিনিময়ে বোমা তৈরি করেছে। বোমাগুলো কোথায় ব্যবহার হবে সুনির্দিষ্টভাবে তারা বলতে পারেনি। তবে সামনে উপজেলা নির্বাচনসহ অনেকগুলো ঘটনায় নাশকতা করতে ব্যবহার করতে পারে বলে আমরা ধারণা করছি।”

এর সঙ্গে আরও যারা জড়িতদের তাদের আইনের আওতায় আনতে চেষ্টা চলছে বলেও জানান র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।

About

Popular Links