Tuesday, June 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জনপ্রশাসনমন্ত্রী: বিসিএসে নারীরা পিছিয়ে নয় বরং এগিয়ে যাচ্ছে

৪০তম বিসিএস থেকেই কিন্তু নারীদের কোনো কোটা নেই

আপডেট : ২৮ মে ২০২৪, ০৫:৩৫ পিএম

জনপ্রশাসনমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, ‘‘বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে সিভিল সার্ভিসে নিয়োগে নারীরা পিছিয়ে নয়, বরং এগিয়ে যাচ্ছে ।’’

মঙ্গলবার (২৮ মে) সচিবালয়ে গণমাধ্যম কেন্দ্রে ‘‘বিএসআরএফ সংলাপ’’ অনুষ্ঠানে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান মন্ত্রী। বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ) এ সংলাপের আয়োজন করে।

তিনি বলেন, ‘‘৩৫তম বিসিএসে নারী কর্মকর্তা রয়েছেন ২৭.৯৫%। ১০০ জনের মধ্যে নারী ২৮ জনের মতো। ৩৬তম বিসিএসে আমরা দেখেছি নারী কর্মকর্তা ২৬.২২%। ৩৭তম বিসিএসে দেখেছি ২৪.৭৩%। ৩৮তম বিসিএসে ২৬. ৯১ %। ৪০তম বিসিএসে দেখেছি নারীদের হার ২৬.০৩%। সবশেষ ৪১তম বিসিএসে ২৬. ৭১% নারী প্রার্থী সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন পদায়নের জন্য। ২৯তম বিশেষ বিসিএসে নারী ছিলেন ৪৬.৮১ %। চিকিৎসক নিয়োগে ৪২তম বিশেষ বিসিএসে নারী ছিলেন ৪৯.০২%।’’

মন্ত্রী বলেন, ‘‘১০% নারী কোটা বাতিলের পরও নারীরা আগের মতোই নিয়োগ পাচ্ছেন। এখানে কোনো ব্যত্যয় ঘটেনি। ৪০তম বিসিএস থেকেই কিন্তু নারীদের কোনো কোটা নেই। এতে বোঝা যাচ্ছে, বিসিএসে নারীদের পাওয়ার হার কমেনি। এই তথ্যটা (নিয়োগ পাওয়ার হার কমেছে) আসলে সঠিক নয়। প্রত্যেকটি বিসিএসের ২৬-২৭% নারী সুপারিশপ্রাপ্ত হয়ে থাকেন। সেটি কিন্তু তারা ধরে রেখেছেন সেখানে কোনো ব্যত্যয় নেই।’’

প্রশাসনে মন্ত্রণালয়-বিভাগের ৫৮ জন সচিবের মধ্যে ১১ জন নারী রয়েছেন জানিয়ে ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘‘নারীদের মধ্যে অতিরিক্ত সচিব রয়েছেন ৭৫ জন, যুগ্মসচিব রয়েছেন ১৬৪ জন, উপ-সচিব রয়েছেন ৩৯৪ জন, সিনিয়র সহকারী সচিব রয়েছেন ৬৫৮ জন।’’

তিনি আরও বলেন, ‘‘৬৪ জেলার মধ্যে নারী জেলা প্রশাসক রয়েছেন ৭ জন, নারী ইউএনও ১৫১ জন, নারী বিভাগীয় কমিশনার রয়েছেন একজন। সহকারী কমিশনার (ভূমি) রয়েছেন ৮৮ জন।’’

ক্যাডার সার্ভিস ছাড়াও সবমিলিয়ে সরকারি চাকরিতে ২৯% নারী রয়েছেন বলে জানান জনপ্রশাসন মন্ত্রী।

 

About

Popular Links