Saturday, June 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জামানত হারালেন ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই

নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৪,৬১০ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন তিনি

আপডেট : ৩০ মে ২০২৪, ১০:৫২ এএম

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই শাহাদাত হোসেন জামানত হারিয়েছেন।

বুধবার (২৯ মে) তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তার ফলাফল বিশ্লেষণে বিষয়টি জানা যায়।

জামানত ফিরে পেতে কাস্টিং ভোটের ১৫% ভোটের প্রয়োজন হয়। সে হিসেবে এই নির্বাচনে অন্তত ১১,২৮৪টি ভোট পেলে জামানত ফিরে পাওয়া যেত। তবে শাহাদাত হোসেন পেয়েছেন ৪,৬১০ ভোট।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে নির্বাচনের কন্ট্রোল রুমে উপজেলার ৭১টি কেন্দ্রের চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করেন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আনোয়ার হোসাইন পাটোয়ারী।

ঘোষিত ফলাফলে দেখা যায়, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মোহাম্মদ গোলাম শরীফ চৌধুরী পিপুল বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। আনারস প্রতীকে তিনি পেয়েছেন ৪৮,০২২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দোয়াত-কলম প্রতীকের প্রার্থী মিজানুর রহমান বাদল পেয়েছেন ১৮,৬৭৮ ভোট।

সেতুমন্ত্রীর ভাই শাহাদাত হোসেন টেলিফোন প্রতীকে ৪,৬১০ টি ভোট পেয়ে তৃতীয় হন। এছাড়া মোটরসাইকেল প্রতীকে ওমর আলী ১,৪৮২ ভোট পেয়ে জামানত হারান।

নির্বাচনি বিধি অনুযায়ী, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের জন্য একজন প্রার্থীকে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অনুকূলে ১ লাখ টাকা জমা দিতে হয়। আর ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের জন্য ৭৫,০০০ টাকা জমা দিতে হয়।

নির্বাচনি এলাকার প্রদত্ত ভোটের ১৫% যদি কোনো প্রার্থী না পান, তাহলে তার জামানত বাজেয়াপ্ত হয়। এই বিধি অনুযায়ী শাহাদাত হোসেনকে জামানত রক্ষার জন্য পেতে হতো ন্যূনতম ১১,২৮৪ ভোট। তা না পাওয়ায় নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া অর্থ খোয়াতে হচ্ছে তাকে।

সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আনোয়ার হোসাইন পাটোয়ারী বলেন, “জামানত হারানোয় শাহাদাত হোসেন ও ওমর আলীর চেয়ারম্যান পদের জন্য নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অনুকূলে রাখা ১ লাখ টাকা বাজেয়াপ্ত হবে।”

About

Popular Links