Saturday, June 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জমি লিখে না দেওয়ায় মাকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ

ছোট ছেলে ও তার স্ত্রী দ্রুত লাশ দাফনের ব্যবস্থা করতে থাকেন। বিষয়টি অস্বাভাবিক মনে হলে দাফনে বাধা দেন আরেক ছেলে

আপডেট : ০১ জুন ২০২৪, ০১:০৮ পিএম

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় সম্পত্তি লিখে না দেওয়ায় বৃদ্ধ মাকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার ছোট ছেলে ও পুত্রবধূর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বৃদ্ধার মেজ ছেলে আব্দুল হাই।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) দুপুরের দিকে রাহিলা খাতুনের (৯৬) মৃত্যু হয়। তিনি টেপিরবাড়ী গ্রামের মৃত আব্দুল কাদিরের স্ত্রী।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুইজন হলেন- বৃদ্ধার ছোট ছেলে ইলিয়াস (৫০) এবং তার স্ত্রী ফাতেমা খাতুন (৪৫)।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রাহিলা খাতুনের নামে অনেক সম্পত্তি রয়েছে। ইলিয়াস তার মাকে নিজের কাছেই রাখতেন। ইতোমধ্যে গোপনে ইলিয়াস নিজের ও তার স্ত্রীর নামে ১৩-১৪ বিঘা জমি লিখে নিয়েছেন। এ ঘটনায় আব্দুল হাই আদালতে মামলাও দায়ের করেন, যা এখনও গাজীপুর আদালতে চলছে।

অভিযোগ সূত্রে আরও জানা যায়, ২৯ মে ইলিয়াস তার মাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় এবং রাত ১০টার দিকে প্রাইভেট কারে করে বাড়িতে আসে। এ সময় তার বাড়ির সিকিউরিটি লাইট বন্ধ রাখে। এরপর বৃহস্পতিবার দুপুরে জানানো হয়, তাদের মায়ের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় ইলিয়াস ও তার স্ত্রী দ্রুত লাশ দাফনের ব্যবস্থা করতে থাকে। বিষয়টি অস্বাভাবিক মনে হলে দাফনে বাধা দেন আব্দুল হাই। পুলিশ এসে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

অভিযোগে আব্দুল হাই বলেন, “ইলিয়াস ও তার স্ত্রী মাকে প্রায় সময়ই শারীরিক নির্যাতন করত। অন্য ভাইবোনদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বাধা দিত। ভাইবোনেরা যোগাযোগের চেষ্টা করলে তাদের মারধরসহ খুন-জখমের হুমকি দিত।”

মায়ের মৃত্যুর জন্য ছোট ভাইকে অভিযুক্ত করে আব্দুল হাই জানান, নির্যাতনের কারণেই তার মায়ের মৃত্যু হয়েছে এবং তার মায়ের লাশ দাফনে বাধা দেন তিনি। মায়ের মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ থাকায় ছোট ভাই ও তার স্ত্রীকে অভিযুক্ত করে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

তিনি বলেন, “মায়ের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। গোসল করানোর সময় এটা দেখা গেছে। মা জমি লিখে না দেওয়ায় ইলিয়াস মাকে নির্যাতন করেছে। ফলে মায়ের মৃত্যু হয়েছে।” তবে এ ঘটনায় বৃদ্ধার বড় ছেলের কোনো অভিযোগ নেই বলে জানিয়েছেন।

স্থানীয়রা বলেন, “আমরা শুনেছি তিনি মারা গেছেন। তবে কীভাবে মারা গেছেন তা বলতে পারব না। তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমিসংক্রান্ত সমস্যা রয়েছে।”

অভিযুক্ত ইলিয়াস হোসেন বলেন, “বৃহস্পতিবার গাড়িতে করে মাকে নিয়ে আমার মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাই। শ্রীপুর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে নিয়ে জমির দলিল করেছি। কিন্তু জোর করে জমি লিখে নিইনি। মা আমাকে ইচ্ছে করেই জমি লিখে দিয়েছেন। আমি মাকে কেন মারব। আমি সব সময় মায়ের সেবা করেছি। আজ যে আমার মা মারা যাবে, তা কি আমি জানতাম?”

শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাখাওয়াত বলেন, “এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে সে অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

About

Popular Links