Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

আরেক দফা বেড়েছে সাবান-শ্যাম্পু-টুথপেস্টের দাম

বাজারে আরেক দফা এসব পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় বাড়ছে সাংসারিক খরচ। ফলে বেড়েছে সীমিত আয় ও নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষের ভোগান্তিও

আপডেট : ১৬ মে ২০২২, ০১:৪৯ পিএম

ভোজ্যতেলের সঙ্গে বাজারে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম, যার মধ্যে রয়েছে সাবান, শ্যাম্পু, টুথপেস্টও। এরই মধ্যে দেশের বাজারে আরেক দফা এসব পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় বাড়ছে সাংসারিক খরচও। ফলে সেই সঙ্গে বেড়েছে সীমিত আয় ও নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষের ভোগান্তিও। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে প্রথম আলো।

বাজারে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা নতুন দামের পণ্য সরবরাহ করতে শুরু করলেও অধিকাংশ দোকানে আগের দামের পণ্য বিক্রি হচ্ছে।

রবিবার (১৫ মে) ঢাকার কাঁঠালবাগান, পান্থপথ, ফার্মগেট ও কারওয়ান বাজারে দেখা যায়, বেড়েছে সুগন্ধি সাবানের দামও। আকারভেদে প্রতিটি সাবানের দাম ২-৪ টাকা বেড়েছে। ব্র্যান্ডভেদে এক কেজি ওজনের এক প্যাকেট গুঁড়া সাবানের দাম ৫ থেকে ১০ টাকা বেড়েছে।

বাদ যায়নি কাপড় কাঁচা ও থালাবাসন ধোয়ার সাবানও। মাঝারি আকারের একটি কাপড় কাচা সাবানের দাম আগের চেয়ে ৩ টাকার মতো বেড়েছে। অন্যদিকে, থালাবাসন ধোয়ার মাঝারি আকারের একটি সাবানের দাম বেড়েছে ৫ টাকা।

সুপরিচিত একটি ব্র্যান্ডের শ্যাম্পুর ১৮০ মিলিলিটারের বোতলের দাম যেখানে আগে ১৮০ টাকা ছিল, সেখানে তা এখন বেড়ে ২০০ টাকায় দাঁড়িয়েছে। একটি ব্র্যান্ডের ৪৫ গ্রামের দাঁত মাজার টুথপেস্টের দামও আগে ৪২ টাকা থাকলেও সেটি এখন বাড়িয়ে ৪৫ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

বিক্রেতাদের ভাষ্যমতে, গত বছরের শেষ দিক থেকেই একাধিকবার এসব পণ্যের দাম বেড়েছে। পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের আগে ও পরে নতুন করে এগুলোর দাম বাড়ানো হয়েছে। নতুন দামের পণ্য এখন বাজারে সরবরাহ করা হচ্ছে।

ঢাকার কাঁঠালবাগান এলাকার মা জেনারেল স্টোরের মালিক মো. আকরাম হোসেন জানান, নিয়মিত বিরতিতে এখন সাবানের দাম বাড়ছে। বাজারে কোনো পণ্যের দামই স্থিতিশীল নেই।

প্রতিষ্ঠানগুলো জানায়, দাম বাড়ার বেশ কিছু কারণ রয়েছে।

প্রথম আলোকে নিত্যব্যবহার্য পণ্য খাতের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান ইউনিলিভার বাংলাদেশের করপোরেট অ্যাফেয়ার্স, পার্টনারশিপ অ্যান্ড কমিউনিকেশনের প্রধান শামীমা আক্তার জানান, বিশ্ববাজারে কাঁচামালের মূল্যবৃদ্ধি, পণ্যের ঘাটতি, জাহাজভাড়া বৃদ্ধি, দেশে পরিবহন খরচ বেড়ে যাওয়া এবং ডলারের বিপরীতে টাকার অবমূল্যায়নের কারণে কাঁচামাল আমদানি খরচ ও উৎপাদন ব্যয় অনেক বেড়েছে। এ কারণে মূল্য সমন্বয় ছাড়া আর উপায় ছিল না। খরচ বাড়ার অনুপাতে যথাসম্ভব ছাড় দিয়ে এ মূল্য সমন্বয় করা হয়েছে।

তবে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যগুলোর মূল্যবৃদ্ধির প্রকৃত কারণ যাই হোক, দিনশেষে ভুক্তভোগী হতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকেই। নিত্যপ্রয়োজনীয় এসব পণ্যের দাম বাড়ার ফলে বাড়ছে সংসারের খরচও।

কেউ যদি কাপড় কাচার জন্য এক কেজি গুঁড়া সাবান, থালাবাসন ধোয়ার জন্য আধা লিটার তরল সাবান, একটি সুগন্ধি সাবান, এক বোতল শ্যাম্পু ও টুথপেস্ট কেনে, তাহলে তার খরচ দাঁড়াবে ৫৫৭ টাকা, অথচ ঈদের আগের তা ছিল ৫০৭ টাকা। অর্থাৎ এই কয়েকটি পণ্য কেনার পেছনে আগের বাজেটের চেয়ে প্রায় ১০% ব্যয় বাড়বে।

ঢাকার পশ্চিম তেজতুরী বাজারের বিসমিল্লাহ এন্টারপ্রাইজে শ্যাম্পু কিনতে যাওয়া মো. নান্নু জানান, তিনি যেখানে মাস চুক্তিতে খাওয়াদাওয়া করেন, সেখানে আগে দুই বেলা খাওয়ার জন্য দিতেন দুই হাজার টাকা, এখন নেয় সাড়ে তিন হাজার টাকা। এ অবস্থায় তার মতো মানুষরা কিভাবে চলবে সে প্রশ্নও রাখেন তিনি।

About

Popular Links