Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রুপিতে বাণিজ্য লেনদেনের কথা ভাবছে বাংলাদেশ ব্যাংক

২০২১-২২ অর্থবছরে বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ১৫.৯৩ বিলিয়ন ডলার লেনদেন হয়েছে

আপডেট : ১৮ মার্চ ২০২৩, ১০:০৯ পিএম

ডলারের সংকট এড়াতে আমদানি ও রপ্তানি দায় মেটাতে ভারতীয় রুপির ব্যবহারের একটি প্রস্তাব মূল্যায়ন করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

কর্মকর্তারা বলেছেন, বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে ভারতীয় রুপিতে তাদের সংশ্লিষ্ট ঋণদাতা বা বিদেশে শাখার সঙ্গে অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করতে দেওয়া হবে। এর আওতায় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা রুপি ব্যবহার করে বৈদেশিক মুদ্রার বাণিজ্য লেনদেন করতে পারবেন।

বর্তমানে স্থানীয় ব্যবসায় আটটি বিদেশী মুদ্রা ব্যবহার করে তাদের রপ্তানি এবং আমদানি নিষ্পত্তি করতে পারে। তা হলো- মার্কিন ডলার, কানাডিয়ান ডলার, অস্ট্রেলিয়ান ডলার, সিঙ্গাপুর ডলার, ইউরো, ব্রিটিশ পাউন্ড, সুইস ফ্রাঙ্ক এবং চীনা ইউয়ান।

বাংলাদেশ ব্যাংক গভর্নর আবদুর রউফ তালুকদার গত মাসে ভারত সফরের পর আন্তর্জাতিক বিলগুলো মেটাতে ভারতীয় মুদ্রা ব্যবহারের বিষয়টি আবারও আলোচনায় আসে। মূলত আরবিআই কর্তৃপক্ষ ওই প্রস্তাব করেছিল।

২০২১ সালের আগস্টে ৪৮ বিলিয়ন ডলারের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ নিয়ে গর্ব করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর বৈশ্বিক সরবরাহ শৃঙ্খলে বাধার কারণে আমদানি বিল রপ্তানি ও রেমিট্যান্সকে ছাড়িয়ে যাওয়ায় ২০২৩ সালের ১৫ মার্চ এটি ৩১.২৮৬ বিলিয়নে নেমে এসেছে।

গত আট মাসে বাংলাদেশি মুদ্রা টাকা ডলারের বিপরীতে প্রায় ২০% অবমূল্যায়িত হয়েছে। বর্তমানে প্রতি ডলারে ১০৪.৫৬ টাকা পাওয়া যাচ্ছে।

২০২১-২২ অর্থবছরে বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ১৫.৯৩ বিলিয়ন ডলার লেনদেন হয়েছে।

বছরে ১৩.৯৩ বিলিয়ন ডলারের শিল্পের কাঁচামাল, মূলধনী যন্ত্রপাতি, তুলা, সুতা, কাপড় এবং রাসায়নিক আমদানি করা হয়েছে।

বাংলাদেশ একই বছর প্রতিবেশী দেশে ২ বিলিয়ন ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে।

About

Popular Links