Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দাম নিয়ন্ত্রণে না এলে মাংস আমদানির প্রস্তাব দেবে এফবিসিসিআই

আমদানি করার পরও দুবাইয়ে গরুর মাংসের কেজি ৫০০ টাকা হলে বাংলাদেশে কেন ৭৫০ টাকায় কিনতে হবে? এমন প্রশ্ন তুলেছেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন

আপডেট : ২৩ মার্চ ২০২৩, ০৩:১৭ পিএম

আমদানি করার পরও দুবাইয়ে গরুর মাংসের কেজি ৫০০ টাকা হলে বাংলাদেশে কেন ৭৫০ টাকায় কিনতে হবে? এমন প্রশ্ন তুলেছেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন।

তিনি বলেছেন, “এ অবস্থা চল‌তে থাকলে ব্রয়লার মুরগি ও গরুর মাংসের দাম কমাতে সরকারকে আমদানির উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানাবো।”

বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) রাজধানীর মতিঝিলে এফবিসিসিআই বোর্ড রুমে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। রমজান মাস উপলক্ষে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের আমদানি, মজুত, সরবরাহ, বাজার পরিস্থিতি ও বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করতে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের নিয়ে এ মতবিনিময় সভা হয়।

এফ‌বি‌সি‌সিআই সভাপ‌তি বলেন, “এখন গরু ও পোল্ট্রির দাম অস্বাভা‌বিকভাবে বেড়েছে। দে‌শীয় এ খাত বাঁচাতে এতদিন মাংস আমদা‌নি বন্ধ ছিল। এখন য‌দি তারা স‌ঠিক মূল্যে গরুর মাংস ও ব্রয়লার মুর‌গি দিতে না পারে তাহ‌লে আমরা বা‌ণিজ্য মন্ত্রণালয়কে বলবো, বাজার ঠিক রাখতে আমদা‌নির অনুম‌তি দেওয়ার জন্য। আমদা‌নি করলে য‌দি বাজারে দাম কমে যায়, তাহলে আমদা‌নি করতে হ‌বে। মানুষ য‌দি ন্যায্যমূল্যে পণ্য কিনতে না পা‌রে, তাহলে ইন্ডা‌স্ট্রির কথা চিন্তা করে লাভ নেই।”

মো. জসিম উদ্দিন বলেন, “এবার চাহিদার তুলনায় বেশি খেজুর আমদানি করা হয়েছে। শুধু খেজুর নয়, চি‌নি ও ভোজ্যতেলসহ অন্যান্য পণ্যও পর্যাপ্ত রয়েছে। কোনো বাজারে বেশি মূল্য রাখা হলেই কিন্তু বাজার কমিটি বাতিল করবে সরকার। একইসঙ্গে দাম বেশি নেওয়া প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্সও বাতিল করা হবে।”

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে জসিম উদ্দিন বলেন, “আপনাদের সমস্যা থাকতে পারে, তবে সমস্যাটি আমাদের জানাবেন। আশা করবো, আপনারা কেউ বেশি মুনাফা করবেন না।”

এফবিসিসিআইয়ের সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, এম এ মোমেন, বাংলাদেশ দোকান মা‌লিক সমিতির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন ও নিত্যপণ্যের ব্যবসা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের নেতাসহ বাজার কমিটির সভাপতিরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

About

Popular Links