Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ক্ষুদ্রঋণ বিতরণ বেড়েছে ২৬%

প্রতিষ্ঠানগুলো কৃষি খাতে ১২৪ কোটি টাকার বেশি বিতরণ করেছে, যা বিতরণ করা সামগ্রিক ঋণের ৫০%

আপডেট : ২০ নভেম্বর ২০২৩, ০৮:০৯ পিএম

এ অর্থবছরে (২০২৩-২৪) ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানগুলো ২৪৯,০০০ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে, যা আগের অর্থবছরের (২০২২-২৩) তুলনায় ২৬.৪১% বৃদ্ধি পেয়েছে।

মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি (এমআরএ) তথ্য বলছে, এই প্রবৃদ্ধি দেশে জনগোষ্ঠীর ক্ষমতায়ন ও দেশের অর্থনৈতিক উত্থানকে উত্সাহিত করতে প্রান্তিক নাগরিকদের প্রচেষ্টাকে তুলে ধরেছে।

ঋণ বিতরণ বৃদ্ধির পাশাপাশি, ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানগুলো সঞ্চয়েও প্রবৃদ্ধি দেখেছে। গ্রাহকরা এ অর্থবছরে (২০২৩-২৪) ৬২,০৫৫ কোটি টাকা জমা করেছে, যা আগের অর্থবছরের (২০২২-২৩) তুলনায় ২৫.১৬% বেশি।

রবিবার ঢাকায় একটি বার্ষিক পরিসংখ্যান কর্মশালায় কর্তৃপক্ষ বলছে, ক্ষুদ্রঋণ খাতে জনগণের ক্রমবর্ধমান আস্থার জন্য সঞ্চয়ের এই বৃদ্ধি হয়েছে।

“বাংলাদেশে ক্ষুদ্রঋণ” শিরোনামে ওই প্রতিবেদনে ঋণ গ্রহীতাদের এ অর্থবছরে (২০২৩-২৪) ১৫০,০০০ কোটি টাকার বেশি ঋণ রয়েছে বলে জানানো হয়।

বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন এমআরএর নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ ইয়াকুব হোসেন।

তিনি বলেন, “ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠান দেশে আর্থিক পরিষেবা প্রদানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আর্থিক অন্তর্ভুক্তির পাশাপাশি স্বাস্থ্য, শিক্ষা, উচ্চশিক্ষা বৃত্তি এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় অবদানেও ভূমিকা রাখে।”

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব শেখ মোহাম্মদ সেলিম উল্লাহ ক্ষুদ্রঋণ খাতের ইতিবাচক গল্প তুলে ধরার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি বলেন, “আরও ইতিবাচক উন্নয়নে অনুপ্রাণিত করার জন্য আমাদের খাতের সফল এবং প্রভাবশালী উদ্যোগগুলো তুলে ধরা উচিৎ।”

এছাড়া এই খাতের সামগ্রিক প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর লক্ষ্যে, এই খাতের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের চ্যালেঞ্জ এবং অসুবিধা মোকাবিলা করতে তাদের দুর্ভোগ কমানোর প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করা এমআরএ এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান মো. ফসিউল্লাহ বলেন, “আমাদের প্রচেষ্টা আর্থিক পরিষেবার বাইরেও প্রসারিত। আমরা সক্রিয়ভাবে টিকাকরণসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে কাজ করি।”

তিনি বলেন, “দ্রুতই ক্ষুদ্রঋণ ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরো (এমএফ-সিআইবি) গঠিত হতে যাচ্ছে।”

নিয়ন্ত্রকের তথ্য অনুসারে, ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের গ্রাহকদের অর্থবছরে বিতরণ করা ঋণের জন্য ৯৮% ঋণ পুনরুদ্ধারের হারও অর্জন করেছে। এই খাতে ৯১% ঋণ গ্রহীতা নারী বলেও জানানো হয়।

এ বছরের জুন পর্যন্ত দেওয়া তথ্যে এসব কথা জানানো হয়।

মোট ঋণের মধ্যে, প্রায় ১০৫,০০০ কোটি টাকা বা ৪২%, এ অর্থবছরে (২০২৩-২৪) এ খাতে ক্ষুদ্রঋণ হিসাবে বিতরণ করা হয়েছে।

এছাড়াও, প্রতিষ্ঠানগুলো কৃষি খাতে ১২৪ কোটি টাকার বেশি বিতরণ করেছে, যা বিতরণ করা সামগ্রিক ঋণের ৫০%।

বর্তমানে, প্রায় ২৫,০০০টি শাখার মাধ্যমে ৭৩১টি এমআরএ-প্রত্যয়িত প্রতিষ্ঠান কাজ করছে, যা সারা দেশে প্রায় চার কোটি প্রান্তিক গ্রাহকের কাছে পৌঁছেছে।

About

Popular Links