Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জানুয়ারিতে এলো দুই বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স

একক মাস হিসেবে জানুয়ারিতে আসা রেমিট্যান্স গত সাত মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ

আপডেট : ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৭:১১ পিএম

প্রবাসী আয় নিয়ে সুখবর দিল বাংলাদেশ ব্যাংক, ২০২৩ সালের জুনের পর প্রথমবারের মতো এ বছরের জানুয়ারিতে প্রবাসীরা দুই বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে দেখা গেছে, প্রবাসীরা জানুয়ারিতে ২.০১ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। ২০২৩ সালের ডিসেম্বরে ১৯৯ কোটি এবং গত বছরের জানুয়ারিতে ১৯৬ কোটি ডলার রেমিট্যান্স দেশে আসে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, বৈধপথে রেমিট্যান্স আনার উদ্যোগের ফলে এমনটি হয়েছে। এর পাশাপাশি অতিরিক্ত প্রণোদনা প্রবাসী বাংলাদেশিদের উৎসাহিত করছে। তারা আশা করেন, ভবিষ্যতে বৈধ চ্যানেলের মাধ্যমে আরও রেমিট্যান্স আসবে কারণ অনেক প্রবাসী এখন হুন্ডি নেটওয়ার্ক এড়িয়ে চলছে।

রেমিট্যান্স কেনার ঘোষিত দর ১০৯ টাকা ৫০ পয়সা হলেও ১২২ টাকা পর্যন্ত দরে রেমিট্যান্স কেনা যাচ্ছে। এ কারণে রেমিট্যান্স বেড়েছে।

একক মাস হিসেবে জানুয়ারিতে আসা রেমিট্যান্স গত সাত মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ।

২০২৩ সালে রেকর্ড ১৩ লাখের বেশি শ্রমিক দেশের বাইরে যান। গত বছর ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স এসেছে ২ হাজার ১৯২ কোটি ডলার, যা আগের বছরের তুলনায় মাত্র ৬৩ কোটি ডলার বা ২.৮৮% বেশি।

রেমিট্যান্স বাড়লেও রিজার্ভ কমে ২০ বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমেছে। বৃহস্পতিবার দিন শেষে রিজার্ভ দাঁড়িয়েছে ১৯ দশমিক ৯৪ বিলিয়ন ডলার। এর আগের দিন বুধবার শেষে রিজার্ভ ছিল ২০ বিলিয়ন ডলারের ওপরে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গত কয়েক মাস ধরে বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে যাচ্ছে, আমদানি চাহিদা মেটাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রতিদিন ডলার বিক্রি করছে।

সাধারণ হিসাবে, একটি দেশের ন্যূনতম তিন মাসের আমদানি ব্যয়ের সমান রিজার্ভ থাকা উচিত। বাংলাদেশ এখন সেই মানদণ্ডের তলানিতে।

About

Popular Links