Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রণবীর থেকে সঞ্জু

২০১৬ সালে রাজকুমার হিরানির মেসেজ মোবাইল স্ক্রিনে ভেসে ওঠা থেকেই শুরু। প্রথমে নাকি চরিত্রের জন্য রাজি ছিলেন না রণবীর। পরে চ্যালেঞ্জ অ্যাকসেপ্ট করেন। শুরু হয় যুদ্ধ। সঞ্জু হয়ে ওঠার সেই অভিজ্ঞতা নিয়ে জানালেন রণবীর নিজে। 

আপডেট : ০৯ জুলাই ২০১৮, ১১:৩৩ পিএম

টানা ছয় ঘণ্টা প্রস্থেটিক মেকআপ টিপের সামনে বসে থাকা।একের পর এক লুক টেস্ট বাদ! ফাইনাল টেক ফ্লপ! রাত তিনটায় ঘুম থেকে উঠেই প্রোটিন শেকে চুমুক। তারপর সারাদিন ঘাম ঝরিয়ে জিমের ইনস্ট্রাকটরের কথা মতো চলা। একটু গাঁইগুঁইয়েও চোখ রাঙানি। নিজের ভিতরের রণবীরকে দমিয়ে রেখে আপাদমস্তক ‘সঞ্জু’ হয়ে ওঠার সময়গুলোর কথা জানালেন রণবীর কপূর। 

অভিজ্ঞতা মানে তো সে এক ধুন্ধুমার কাণ্ড! কায়মনোবাক্যে সম্পূর্ণ একটা আলাদা মানুষ হয়ে ওঠা জীবনের এক অন্যতম অভিজ্ঞতা বলে জানিয়েছেন রাজকুমার হিরানির ‘সঞ্জু’। সঞ্জয়ের লুক পুরোপুরি না এলে ছবিটাই জমত না। কেমন করে ছবির জন্য ভোলবদল হয়েছে রণবীরের সে সম্পর্কে রাজকুমার হিরানি বলেছেন, ‘‘প্রথম চ্যালেঞ্জ ছিল সঞ্জয় দত্তের চরিত্রে কে অভিনয় করবে? এমন একজন যে চেহারায়, কথাবার্তা ও আদবকায়দায় পুরোপরি সঞ্জয় হবে। তার মতো করেই ভাববে।’’ রণবীর যে সেই জায়গায় একশোয় একশো পেয়েছেন সে কথা অবশ্য বলতে ভোলেননি পরিচালক।

শেষমেশ সেই অভিজ্ঞতা নিয়ে জানালেন রণবীর নিজে। ২০১৬ সালে রাজকুমার হিরানির মেসেজ মোবাইল স্ক্রিনে ভেসে ওঠা থেকেই শুরু। প্রথমে নাকি চরিত্রের জন্য রাজি ছিলেন না রণবীর। পরে চ্যালেঞ্জ অ্যাকসেপ্ট করেন। শুরু হয় যুদ্ধ।

প্রথমেই শুরু হয় সঞ্জয় দত্তের মতো চেহারা ফুটিয়ে তোলার জন্য লুক টেস্ট। রণবীর জানিয়েছেন, প্রতি দিন অন্তত ছ’ঘণ্টা প্রস্থেটিক মেকআপ টিমের সঙ্গে আলোচনায় বসতে হত। একটার পর একটা লুক টেস্ট বাতিল হয়েছে। ফাইনাল লুক প্রকাশ্যে আসার আগে কমপক্ষে ছ’বার নিজের লুক বদল করেছেন রণবীর। অভিনেতা বলেছেন, ‘‘ছ’ঘণ্টা চেয়ারে বসে পোজ দিতে হত। মেকআপ নিয়ে আলোচনা চলত। শেষে বলা হত টেক ক্যানসেল। ফের পরের দিন একই ভাবে বসতে হত।’’

এর পর শারীরিক কসরত। রণবীরের কথায়, প্রতিদিন রাত তিনটেয় উঠে এক গ্লাস প্রোটিন শেক ছিল তাঁর বরাদ্দ। তার পর ৮-৯টা মিল। সেই সঙ্গে জিম সেশন। ‘‘জিম করা আমার একেবারেই অপছন্দের। তবে এই বায়োপিকে চেহারার খুবই গুরুত্ব রয়েছে। সঞ্জয়ের মতো পেশী বানাতে আমাকে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ নিতে হয়েছিল,’’ বলেছেন ‘সঞ্জু’র রণবীর। মাস খানেকের চেষ্টায় চেহারার পরিবর্তন দেখে নিজেই নাকি খুব অবাক হয়ে গিয়েছিলেন। অভিনেতা বলেছেন, ‘‘আমার শরীরে পেশীর ঢেউ খেলছিল। জীবনে এমন চেহারার কথা ভাবিনি। সেটে সবাই আমাকে দেখে বলেছিল, এ বার আমরা সফল হতে চলেছি।’’

সফল হয়েছেনও বটে। মুক্তির প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই ২০০ কোটির ক্লাবে পা দিয়েছে ‘সঞ্জু’। প্রায় কোণঠাসা অবস্থা থেকে বলিউডে আবারো নিজের অবস্থানটা পাকাপোক্ত করে তুলে ধরলেন রণবীর।


About

Popular Links