Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মুক্তির আগেই অনিশ্চয়তায় দীপিকার ‘ছপাক’!

এসিড আক্রান্ত নারী লক্ষ্মী আগরওয়ালের জীবন কাহিনীই এই সিনেমার মাধ্যমে দেখানো হবে দর্শকদের

আপডেট : ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:২৩ এএম

মুক্তির আগেই আইনি জটিলতার মুখে পড়েছে বলিউডের আলোচিত ছবি “ছপাক”। ছবিটি নিয়ে এবার মামলা হয়েছে ভারতের হাইকোর্টে।

আগামী বছরের ১০ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল দীপিকা পাড়ুকোন অভিনীত এই ছবিটি। এর চিত্রনাট্য লেখার স্বত্ব নিয়ে এবার মুম্বাই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন রাকেশ ভারতী নামে এক লেখক।

তিনি দাবি করেছেন, “ছপাক” ছবির চিত্রনাট্য তার লেখা হলেও তাকে ক্রেডিট দেওয়া হচ্ছে না। তাই ছবির চিত্রনাট্যের ক্রেডিটের দাবিতে মুম্বাই হাইকোর্টে পিটিশন ফাইল করেছেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদসংস্থা এএনআই-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী পিটিশনে লেখা রয়েছে, “অনেকদিন ধরেই গল্পটি নিয়ে বিভিন্ন শিল্পীর দ্বারস্থ হয়েছেন রাকেশ। এমনকি প্রযোজকদের সঙ্গেও যোগাযোগ করছিলেন তিনি।”

রাকেশ ভারতীর দাবি, তিনি তার গল্পটি নিয়ে বেশ কয়েকজন শিল্পীর কাছে নিয়ে গিয়েছিলেন এবং ছবির প্রযোজকরা সম্পূর্ণ গল্পটাই রেখেছেন। যা মূলত তারই মস্তিষ্কপ্রসূত। প্রথমদিকে সব শিল্পীই কাজটি নিয়ে আগ্রহ দেখালেও বিভিন্ন কারণে বিষয়টি পেছাতে শুরু করে। ফলস্বরূপ, তিনি ছবিটির প্রযোজনার কাজ শুরু করতে পারেননি।

রাকেশ আরও দাবি করেন, ‘‘ছপাক’’ নির্মাতাদের বিরুদ্ধে একটি অস্থায়ী আদেশ জারি করা দরকার এবং যতক্ষণ না তাকে ছবি লেখার কৃতিত্ব তাকে দেওয়া হচ্ছে ততক্ষণ যেন ছবিটিকে মুক্তি দেওয়া না হয়। 

প্রসঙ্গত, এসিড আক্রান্ত নারী লক্ষ্মী আগরওয়ালের জীবন কাহিনীই এই সিনেমার মাধ্যমে দেখানো হবে দর্শকদের।

১২ বছর বয়সে অ্যাসিড হামলার শিকার হয়েছিলেন লক্ষ্মী। ২০১৪ সালে লক্ষ্মী আগরওয়ালকে “আন্তর্জাতিক সাহসী নারী” পুরস্কারও দিয়েছিলেন তৎকালীন মার্কিন ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা। এসবই উঠে এসেছে ‘‘ছপাক’’ ছবিতে। ছবিটি তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরে লক্ষ্মীর সঙ্গে কথাও বলেছিলেন পরিচালক মেঘনা গুলজার। কপিরাইটের জন্য ১৩ লাখ ভারতীয় রুপিও দেওয়া হয় লক্ষ্মীকে। প্রথমদিকে ওই অর্থের বিনিময়ে রাজি হলেও সম্প্রতি আরও বেশি অর্থ দাবি করে বসেন তিনি।

About

Popular Links