• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৪ রাত

মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশ

  • প্রকাশিত ০৯:৩৫ রাত ডিসেম্বর ৩, ২০১৮
জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী
মিস বাংলাদেশ জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। ছবি: ফেসবুক

বক্তব্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্যে ভুল করে ফেলেছেন ঐশী। সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন যে মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ ২য় বার অংশগ্রহণ করছে। তবে মূলত বিশ্ব সুন্দরীর লড়াইয়ে অফিসিয়াল ফ্র্যাঞ্চাইজির ব্যানারে এটি বাংলাদেশের ৩য় অংশগ্রহণ

মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতার ৬৮তম আসরের সেরা সুন্দরীদের তালিকার ‘সেরা ৩০’এ স্থান পেয়ে ইতিহাস গড়লো মিস বাংলাদেশ জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। এ নিয়ে আয়োজকদের অফিসিয়াল পেজে ছাপা হয়েছে ঐশীর সাক্ষাৎকার। 

মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় এটিই বাংলাদেশের এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ অর্জন। হাজারও সুন্দরীদের পেছনে ফেলে ঐশী এখন বিশ্ব সুন্দরী হওয়ার দৌড়ে। প্রতিযোগিতায় হেড টু হেড চ্যালেঞ্জে গ্রুপ-৬ এ মিস নাইজেরিয়াকে ৩-০ ভোটে হারিয়ে এ কীর্তি গড়েন তিনি। 

সাক্ষাৎকারে মিস বাংলাদেশ বলেন, “আমার দেশের ইতিহাস নিয়ে আমি গর্ব করি আর বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে আমি গর্বিত।”

মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগীতায় এটিই বাংলাদেশের সেরা অর্জন। গত বছর এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ থেকে অংশ নিয়েছিলো জেসিয়া ইসলাম। সেরা ৪০ জনের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি।


তবে বক্তব্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্যে ভুল করে ফেলেছেন ঐশী। সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন যে মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ ২য় বার অংশগ্রহণ করছে। তবে মূলত এটি বিশ্ব সুন্দরীর লড়াইয়ে অফিসিয়াল ফ্র্যাঞ্চাইজির ব্যানারে এটি বাংলাদেশের ৩য় অংশগ্রহণ। 

২০১৭ সালে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন জেসিয়া ইসলাম। এর আগে ১ম বাংলাদেশী হিসেবে ২০০১ সালে ৫১তম মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন তাবাসসুম ফেরদৌস শাওন।   


আরও পড়ুন: যে উত্তর দিয়ে মিস ওয়ার্ল্ডের 'সেরা ২০' এ স্থান পেলো ঐশী


 প্রসঙ্গত, বরিশাল বিভাগের পিরোজপুর জেলার মাটিভাঙ্গা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ঐশী। ১৮ বছর বয়সী এই সুন্দরী চলতি বছর বিজ্ঞান বিভাগ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেছেন।

এ বছর ৩০ হাজার প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ খেতাব জিতে নেন ঐশী।

চলতি মাসের ৮ ডিসেম্বর চীনের সানাইয়া শহরে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব সুন্দরীর গ্র্যান্ড  ফিনালের জমকালো আসর। গতবার মুকুট অর্জন করেন ভারতের মানুসি চিল্লার।