• বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৪৯ সন্ধ্যা

ভারতীয় ভিসা বাতিলের পর ঢাকার পথে ফেরদৌস

  • প্রকাশিত ১০:২৩ রাত এপ্রিল ১৬, ২০১৯
ফেরদৌস
ভারতের রাজ্যসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুর জেলায় তৃণমূল কংগ্রেসের এক প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণায় চিত্রনায়ক ফেরদৌস। সংগৃহিত

এ ঘটনায় বাংলাদেশ দূতাবাস বিব্রত হয়েছে বলে জানান এক কর্মকর্তা

ভারতের ভিসা বাতিলের পর এবার দেশের পথে রওনা দিয়েছেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) রাতেই শাহজাহাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামার কথা রয়েছে তার।

এদিকে, ভারতের জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে 'একটি রাজনৈতিক দলের পক্ষে' জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নায়ক ফেরদৌস নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নেওয়ায় বিব্রত হয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস। এ বিষয়ে ভারতের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে দেশটির নির্বাচন কমিশনে ও কলকাতার রায়গঞ্জ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দফতরে আপত্তিও জানানো হয়েছে। তবে নির্ধারিত সফর শেষ হয়ে যাওয়ায় ফেরদৌস এখন ঢাকার পথে রয়েছেন। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা বলেন, "আমরা বিব্রত। বিষয়টি আমাদের ধারণার বাইরে ছিল। ফেরদৌস দূতাবাসকে না জানিয়ে একটি দলের পক্ষে রাজনৈতিক প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন।"

ভারতে নির্ধারিত সফর শেষে ঢাকার পথে বিমানবন্দরে অবস্থান করায় ফেরদৌসের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে, ফেরদৌস ঢাকার পথে রয়েছেন।


আরও পড়ুন: ভারতের নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়ে ভিসা বাতিল ফেরদৌসের


উল্লেখ্য, গত রবিবার ও সোমবার (১৪ ও ১৫ এপ্রিল) পশ্চিমবঙ্গের রায়গঞ্জ লোকসভা আসনের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালের পক্ষে নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নেন ফেরদৌস। টালিগঞ্জের দুই তারকা অঙ্কুশ ও পায়েল সরকারের সঙ্গে হুডখোলা গাড়িতে চেপে ওই নেতার পক্ষে রোড শোতে অংশ নেন তিনি। করণদীঘি, হেমতাবাদ, ইসলামপুর-সহ ওই কেন্দ্রের নানা জায়গায় ফেরদৌসকে একবার চোখের দেখা দেখতে রীতিমতো ভিড়ও উপচে পড়েছিল। এসময় বিভিন্ন পথসভায় তৃণমূল প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ফেরদৌস। সেই ছবি ও রোড শো-র ভিডিও ইতোমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে।

এরপরই একজন বিদেশি নাগরিক কীভাবে ভারতের সাধারণ নির্বাচনের প্রচারণায় অংশ নিতে পারেন, এই প্রশ্ন তুলেছে রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি। 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আইন মানেন না এমন অভিযোগ তুলে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “ভারতের একটি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল কীভাবে বিদেশি নাগরিককে দিয়ে পশ্চিমবঙ্গে রোড শো করায়? ভোট কম পড়লে রোহিঙ্গাদের ডেকে আনবেন। কাল হয়তো ইমরান খানকে তৃণমূলের প্রচারে ডাকবেন। আমরা এই ঘটনার নিন্দা জানাই।”

পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি’র সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ ব্যানার্জি ইতোমধ্যেই এই ঘটনায় নির্বাচন কমিশনের পাশাপাশি রায়গঞ্জে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দফতরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তারা বলছেন, বিদেশি নাগরিককে দিয়ে ভোটের প্রচার করানো পরিষ্কার ভারতে নির্বাচনি আচরণবিধির (মডেল কোড অব কন্ডাক্ট) লঙ্ঘন।