• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৬, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৪ দুপুর

হিরো আলম ও সেফুদাকে ক্ষমা করে দিলেন অনন্ত জলিল

  • প্রকাশিত ০৪:১২ বিকেল জুলাই ১৯, ২০২০
অনন্ত জলিল
অনন্ত জলিল। ছবি: সংগৃহীত

হিরো আলমকে উদ্দেশ করে মোস্ট ওয়েলকাম খ্যাত এই অভিনেতা বলেন, 'তুমি কি বুঝো ইউজ কাকে বলে?'

হিরো আলম ও সেফুদা নামে পরিচিতি পওয়া বিতর্কিত সেফাতুল্লাহকে ক্ষমা করে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন চলচ্চিত্র অভিনেতা অনন্ত জলিল। রবিবার (১৯ জুলাই) নিজের ফেসবুক পেজ থেকে এক ভিডিও বার্তায় এ কথা জানান ঢালিউড অভিনেতা ও ব্যবসায়ী।

ওই ভিডিও বার্তায় অনন্ত জলিল বলেন, “আমি কেন হিরো আলমকে ছবি থেকে বাদ দিলাম। আপনার দেখেছেন, আমি হিরো আলম ও জায়েদ খানের সঙ্গে মিটমাট করে দিই। তাদেরকে সোনারগাঁতে নিয়ে লাঞ্চ করাই। তারা আমাকে কমিটমেন্ট করে, এই বিষয়ে আর কথা বলবে না।”

হিরো আলমকে উদ্দেশ করে মোস্ট ওয়েলকাম খ্যাত এই অভিনেতা বলেন, “তুমি কি বুঝো ইউজ কাকে বলে? তোমার পাশে যদি কোনো এডুকেটেড পারসন থাকত তাহলে তোমাকে অক্ষরে অক্ষরে বুঝিয়ে দিতে পারত ইউজ করা কাকে বলে। কেউ যদি দিনের পর দিন ব্যক্তি স্বার্থে কাজে লাগিয়ে ছুড়ে ফেলে দেয় তাকে ইউজ বলে। যদিও হিরো আলমকে আমার কোনো কাজেই লাগবে না।

এ সময় সেফাতুল্লাহ ওরফে সেফুদাকে হিরো আলমের শুভাকাঙ্ক্ষী উল্লেখ করে অনন্ত জলিল বলেন, "গতকাল তোমাকে ছবি থেকে বাদ দেয়া নিয়ে সে (সেফুদা) অনেকগুলো আপত্তিকর কথা বলেছে। কিন্তু তোমাকে আমি যখন ছবিতে সাইন করেছি কই তখনতো প্রশংসা করে একটা ভিডিও বার্তা দিল না। যদি সে তোমার শুভাকাঙ্ক্ষী হয়ে থাকে তাহলে সে তোমার সুখে হাসবে দুঃখে কাঁদবে। সেফুদা সাহেবতো সবাইকে বলেন অশিক্ষিত, গরিব, ছোটলোক। সেফুদা সাহেবতো অনেক বড়লোক। সেতো অনেক টাকার মালিক সেতো তোমাকে নিয়ে একটা ছবি ইনভেস্ট করল না। উনিতো সবাইকেই গালাগালি করেন। দেশের প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রীদের বিভিন্ন ভাষায় গালাগালি করেন।"

"আজ সকালে আমার ওয়াইফ আমাকে একটা ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছে। উনি ঠিক একইভাবে আমাকে অশিক্ষিত গরিব ছোট লোক বলেছেন। এবার আমি আমার বিষয়ে সেফুদা সাহেব যা বলেছেন তার কোনোটাই যে সত্য নয়, তার প্রমাণ দিই। তিনি বলেছেন আমি অশিক্ষিত, অথচ ২০০১ সালে আমি ম্যানচেস্টার ইউনিভার্সিটি থেকে আমি বিবিএ কমপ্লিট করি। তিনি বলেছেন, আমি গরিব। এজেআই (অনন্ত জলিল ইন্ডাস্ট্রিজ) গ্রুপ ১৯৯৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। আমাদেররফ্যামিলি বিজনেস। আমার বিজনেসের নাম। আমার ইন্ডাস্ট্রিতে ১১ হাজার লোক কাজ করে। এই কম্পানি রান করতে প্রতি মাসে ১৭-১৮ কোটি টাকা খরচ হয়। ২০২১ সালে এখানে ১৫ হাজার লোক কাজ করবে। আর তিনি আমাকে বলেন আমি গরিব, ছোটলোক। বাংলাদেশে এই পর্যন্ত নয়বার আমি সিআইপি হয়েছি। প্রেজেন্ট সিআইপি আমি।"

সেফুদার উদ্দেশে অনন্ত জলিল বলেন, "আপনি আল্লাহর কাছে তওবা করেন। আপনি আল্লাহর কাছে বলেন, হে আল্লাহ আমি মানুষের সম্পর্কে না জেনে যে কটূক্তি করেছি টা থেকে আমাকে ক্ষমা করে দিন। আপনাকে একজন স্যান্ডেল দিয়ে পেটানোর কথাও বলেছেন। সেফুদা সাহেব আমার জানা মতে, আপনাকে দোয়া করার মতো কেউ নেই। আজ আমি আপনার জন্য দোয়া করলাম। আল্লাহ যেন আপনাকে ক্ষমা দেন। সেফুদা সাহেব আমি ক্ষমা করতে শিখেছি। আপনাদের দুজনকেই আমি ক্ষমা করে দিলাম। ভালো থাকুক, সুস্থ থাকুন।"

এর আগে হিরো আলমকে নিয়ে সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দিলেও নিজের সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন অনন্ত।

গত বৃহস্পতিবার বিকালে ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে হিরো আলমকে তার সিনেমা থেকে বাদ দেওয়ার কথা জানান তিনি।

ফেসবুকের ওই পোস্টে তিনি বলেন, “আমি হিরো আলমকে নিয়ে কোনো সিনেমা বানাবো না এবং ৫০ হাজার টাকা সাইনিং মানি ফেরত নেব না! সিংহভাগ বিনোদন সাংবাদিকরা এবং চলচ্চিত্র পরিবারের সকল গুণীজনরা হিরো আলমকে নিয়ে সিনেমা না বানানোর জন্য আপত্তি জানাচ্ছেন এবং রিসেন্টলি তার কিছু অশ্লীল ভিডিও  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সকলেই আমাকে নিষেধ করছেন, তাকে নিয়ে সিনেমা না বানানোর।”

“সব সময় আমি বিব্রত হচ্ছি, হিরো আলমের এসব বিতর্কিত বিষয়গুলোর জন্য। দীর্ঘদিন ধরে আমি চলচ্চিত্র অঙ্গনে সম্মানের সহিত কাজ করে আসছি। চলচ্চিত্রের প্রতিটি সংগঠনের সাথে ভালো সম্পর্ক আছে। প্রতিটি সংগঠনই আমাকে সন্মানের চোখে দেখে। তাই এই সম্মান রক্ষার্থে, বিতর্কিত কাউকে নিয়ে আমি সিনেমা বানাতে চাই না,” বলেন অনন্ত।

কোনো চলচ্চিত্র সংগঠন হিরো আলমকে নিয়ে সিনেমা বানাতে চাইছে না দাবি করে তিনি বলেন, “চলচ্চিত্র সংগঠনগুলোর সম্মানার্থে আমিও চাই না বিতর্কিত কাউকে নিয়ে সিনেমা বানাতে।”

অনন্ত আক্ষেপ করে বলেন, “আরেকটি কারণ উল্লেখ না করলেই নয়। কিছুদিন আগে আমি নিজ উদ্যোগে জায়েদ খানের সাথে হিরো আলমকে মিল করিয়ে দিয়েছিলাম এবং প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে তাদেরকে নিয়ে একসঙ্গে লাঞ্চ করেছিলাম। মীমাংসা করে দেওয়ার পরেও একই বিষয় নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় হিরো আলম মন্তব্য করছেন যা মোটেও কাম্য নয়।”

“আমার এত ব্যস্ততার মাঝেও আমি তাকে পাশে বসিয়েছিলাম, সে আমার মর্যাদা বোঝে নাই। আমার মর্যাদা যেহেতু বোঝে নাই তাই আমি চাই না ভবিষ্যতে তার দ্বারা আমার মর্যাদা ক্ষুণ্ণ হোক। আমি চাচ্ছিলাম, তার পাশে দাঁড়িয়ে তাকে সহযোগিতা করার, যাতে করে তার উপকার হয়। এ ধরনের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের মানুষের সাথে আমার কাজ করা সম্ভব না। তার এই  চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের কারণে আমি আর তাকে নিয়ে সিনেমা বানাবো না, পঞ্চাশ হাজার টাকা সাইনিং মানি যেটি দিয়েছি সেটি আমি চাইছি না, সেটি তাকে আমি দিয়ে দিলাম,” বলেন অনন্ত জলিল।

তিনি বলেন, “মিট করার পরও হিরো আলম এই বিষয়ে একটি ভিডিও বার্তা দেয়। ভিডিওর ক্যাপশনে সে লিখে, অনন্ত জলিল আমাকে ইউজ করেছে।”

 

59
50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail