Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত চিত্রনায়িকা পপি

করোনাভাইরাস মুক্ত হয়ে আবার যেন কাজে ফিরতে এবং সামর্থ্য অনুযায়ী মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারেন এজন্য দেশাবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন তিনি

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২০, ০১:০৩ পিএম

ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকা সাদিকা পারভিন পপি করোনাভাইরাসের সাথে লড়ছেন। বর্তমানে চিকিৎসকের পরামর্শে খুলনার বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন তিনি।

করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা দিলে গত সপ্তাহে পপি খুলনা মেডিকেল কলেজে নমুনা পরীক্ষা করান। বুধবার (২২ জুলাই) ফলাফল আসে তিনি কোভিড-১৯ পজেটিভ। এরপর থেকে তিনি খুলনায় পৈত্রিক বাসভবন জমিদার বাড়িতে আইসোলেশনে চলে যান।

পপি সাংবাদিকদের জানান, বেশ কিছু দিন ধরে তার জ্বর ছিল, সাথে কাশি। মাঝে জ্বর কমেও গিয়েছিল। কিন্তু শরীর ভালো লাগছিল না। এক সময় শ্বাসকষ্ট অনুভূত হচ্ছিল। পরে পরিবারের লোকজন তাকে নমুনা পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন। বুধবার সেই ফল হাতে পেয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, “এখন শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে অনেকটা ভালো। জ্বর নেই। তবে গলাব্যথা ও কাশির সাথে কিছুটা শ্বাসকষ্ট আছে। স্বাদ ও ঘ্রাণ এখনও ফিরে পাইনি।”

পপি জানান যে আগামী সপ্তাহে দ্বিতীয়বার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করবেন তিনি এখনও হাসপাতালে যাওয়ার প্রয়োজন বোধ করছেন না।

পপিদের বাসার কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হননি। তাহলে তিনি কীভাবে আক্রান্ত হলেন? এবিষয়ে পপি বলেন, “করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পর থেকে বেশ সতর্কতার সাথে চলাফেরা করছিলাম। তবে কিছু দিন রাতের বেলা শহরের বিভিন্ন জায়গায় ছিন্নমূল অসহায় মানুষের জন্য খাবার বিতরণ করেছি। এর বাইরে কোথাও বের হইনি। এভাবেই কোথা থেকে হয়ত আক্রান্ত হয়েছি।”

করোনাভাইরাস মুক্ত হয়ে আবার যেন কাজে ফিরতে এবং সামর্থ্য অনুযায়ী মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারেন এজন্য দেশাবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন তিনি।

পপির বাবা মিয়া কবির হোসেন টুলু শুক্রবার রাতে জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর গত ১৩ মার্চ ঢাকা থেকে খুলনার বাড়িতে চলে আসেন পপি। তারপর থেকে সেখানেই অবস্থান করছেন তিনি।

প্রথম দিকে পরিবারের সহযোগিতায় পপি শহরের বিভিন্ন জায়গায় স্বল্প আয়ের মানুষদের সহায়তা দিয়েছেন। পরে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে গেলে ঘর থেকে বের হওয়া বন্ধ করে দেন তিনি।

About

Popular Links