Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বলিউড ছেড়ে করোনাভাইরাস রোগীদের সেবিকা

করোনাভাইরাস মহামারি ভারতে আঘাত হানলে শিখা সিদ্ধান্ত নেন আবারও নতুন ভূমিকায় অভিষেক করবেন তিনি তবে এবার "লাইট - ক্যামেরা - অ্যাকশন" ছাড়াই

আপডেট : ১০ মার্চ ২০২১, ০৭:৫৯ পিএম

করোনাভাইরাস মহামারির এক বছরে বিশ্ব দেখেছে মৃত্যু, দেখেছে অর্থনৈতিক সমস্যা এবং মানসিক উদ্বেগ। একই সঙ্গে দেখেছে আত্মত্যাগ, সাহসীকতা, অধ্যাবসায় এবং দৃঢ় সংকল্প।

নিজেকে পুনরায় গড়ে তুলেছে কেউ কেউ, কেউবা অন্যকে সহায়তা করে জীবনের উদ্দেশ্য খুঁজে পেয়েছে এবং অনেকেই কর্মজীবনের  মূল স্রোতে ফিরে যাচ্ছে হাল না ছেড়েই।

তেমনই একজন শিখা মালহোত্রা। ২৫ বছরের শিখা বলিউডের রঙিন দুনিয়ার ঝকমকে জীবন ছেড়ে এসেছেন মানবতার খাতিরে।

২০১৬ সালে সুপারস্টার শাহরুখ খানের সাথে অভিনয় থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন শিখা। সর্বশেষ ২০২০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত "কাঞ্চি" চলচ্চিত্রে প্রধান ভূমিকায় ছিলেন তিনি। "কাঞ্চি"র জন্য তিনি পেয়েছেন প্রশংসা ও তারকাখ্যাতি। 

কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারি ভারতে আঘাত হানলে শিখা সিদ্ধান্ত নেন আবারও নতুন ভূমিকায় অভিষেক করবেন তিনি। তবে এবার "লাইট - ক্যামেরা - অ্যাকশন" ছাড়াই। 

২০২০ সালের মার্চ মাসে ভারতজুড়ে লকডাউন শুরু হয়ে যাওয়ার দু'দিন পর, নার্সিং ডিগ্রিধারী শিখা মুম্বাইয়ের আশেপাশের বিভিন্ন হাসপাতালে স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রম শুরু করেন। শিখা বলেন, "সবার আগে আমি একজন নার্সিং অফিসার। তারপর অভিনেত্রী।"

"জীবন এবং মৃত্যু, এতগুলো অভিব্যক্তি, আবেগ, সুখ-দুঃখ আমাকে বদলে দিয়েছে। হঠাৎ করেই আমি যেন আরও পরিণত, আরও দৃঢ় মানুষ হয়ে উঠেছি।"

বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কোভিড-১৯ আক্রান্ত দেশ ভারতের সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ শহরগুলোর মধ্যে মুম্বাই অন্যতম।

শিখা একটি সরকারী হাসপাতালে নার্সিং অফিসার হিসাবে কাজ করছিলেন এবং সব বয়সের কোভিড-১৯ রোগীর সেবা ও চিকিৎসা করে যাচ্ছিলেন।

কিন্তু কর্মক্ষেত্রে যোগদানের সাত মাস পর অক্টোবর মাসে শিখা নিজেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। একমাস একা হাসপাতালে কাটিয়ে সুস্থ হন তিনি। কিন্তু সুস্থ হবার কিছুদিন পরেই একটি স্ট্রোকের শিকার হন শিখা এবং শরীরের ডান দিক অবশ হয়ে যায় তার। এই নিয়ে জীবনে দ্বিতীয়বারের মত পক্ষাঘাতগ্রস্থ হয়েছিলেন তিনি।

শিখা বলেন, "আমি মনে করি, আমার জন্য একটি বড় ধাক্কা ছিল এটা। কারণ দ্বিতীয়বার এই ঘটনার পর আমি ভেবেছিলাম, ওহ, এই বুঝি সব শেষ।" 

তবে সেই অবস্থা থেকে নিজেকে সম্পূর্ণ পুনরুদ্ধার করেছেন শিখা। তিনি বিশ্বাস করেন তার বাবা-মায়ের সমর্থন ছাড়া সুস্থ হতে পারতেন না।

নতুন চলচ্চিত্রে কাজ করার প্রস্তাব আসতে শুরু করায় শিখা আবারও অভিনয় জগতে পুরোদমে ডুব দেবার পরিকল্পনা করছেন।  তবে যখনই প্রয়োজন হবে তখনই নার্স হিসাবে কাজ করার জন্য প্রস্তুত আছেন বলে জানান তিনি।

About

Popular Links