Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ভোটে দাঁড়ানোর গুঞ্জনে কঙ্গনাকে হেমা মালিনী’র ‘খোঁচা’

কঙ্গনা রানাউতকে বিতর্কিত বলিউড অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্তের সঙ্গে তুলনা করেন হেমা মালিনী

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫৪ এএম

বিভিন্ন মন্তব্যের কারণে প্রায়ই সংবাদের শিরোনাম হয়ে থাকেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। এবারও তেমনটিই করলেন।তবে এবার শিরোনাম হয়েছেন অন্যকারণে। সম্প্রতি গুঞ্জন কঙ্গনা রানাউত রাজনীতিতে নামছেন। এমনকি তাকেও নাকি মথুরা থেকেই নির্বাচন করতে দেখা যাবে।

বিষয়টি নিয়ে বলিউডের “ড্রিম গার্ল” হিসেবে পরিচিত হেমা মালিনীর মন্তব্য জানতে চায় সাংবাদিকরা। ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) প্রার্থী হিসেবে মথুরার লোকসভা সংসদ সদস্যের দায়িত্ব পালন করছেন নন্দিত এ অভিনেত্রী। তবে জবাবে কঙ্গনাকে নিয়ে কিছুটা বাঁকা সুরে মন্তব্য করেছেন ধর্মেন্দ্রপত্নী।

 কঙ্গনাকে বিতর্কিত অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্তের সঙ্গে তুলনা করে বসেন হেমা মালিনী। বলেন, “আগামী দিনে রাখি সাওয়ান্ত-ও হয়ত এখান থেকে নির্বাচনে দাঁড়াবেন!”

তিনি আরও বলেন, “এটা ভগবানের ইচ্ছের ওপর নির্ভর করছে। ভগবান কৃষ্ণ যা চাইবেন, তাই হবে।” এরপর তার ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য, “মথুরা থেকে তো শুধু সিনেমার তারকারা নির্বাচিত হবেন। স্থানীয় কেউ সংসদ সদস্য হতে চাইলে আপনারা হতে দেবেন না!”

হেমার এই মন্তব্য শুনে অনেকে অবশ্য সমালোচনা করছেন। তার স্বামী ধর্মেন্দ্র এবং ছেলে সানী দেওল-ও রাজনীতিতে যোগ দিয়েছেন। সেই তিনিই কিনা তারকাদের রাজনীতিতে আসা নিয়ে খোঁচা দিলেন। 

সম্প্রতি রাজনীতি প্রসঙ্গে কঙ্গনা সংবাদমাধ্যমে জানিয়ে ছিলেন, ”আমরা যে স্বাধীনতা পেয়েছি তা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু এবং বীর সাভারকরের মতো বিপ্লবীদের কারণে। এই স্বাধীনতা আমরা ভিক্ষা করে পাইনি, স্বাধীনতা পেয়েছি নিজেদের অধিকারে, এর জন্য লড়াই করতে হয়েছে আমাদের।” 

এই প্রসঙ্গে কঙ্গনা আরও বলেন, ”আমি নেতা সুভাষচন্দ্রের অনুগামী, আমি একেবারেই গান্ধীবাদী নই। এটা হয়তো অনেক লোককে বিরক্ত করবে যে আমি এই ধরনের কথা বলছি। তবে প্রত্যেকেরই একটা নিজস্ব এবং পছন্দের আদর্শ রয়েছে। আমি বিশ্বাস করি যে, নেতাজি এবং সাভারকরের মধ্যে লড়াইয়ের আগুন লুকিয়ে আছে।” কঙ্গনার কথায়, নেতাজি সুভাষচন্দ্র ক্ষমতার জন্য ক্ষুধার্ত ছিলেন না, স্বাধীনতার জন্য ক্ষুধার্ত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, কঙ্গনা রানাউত বরাবরই বিজেপি পন্থী। নরেন্দ্র মোদীর বিভিন্ন প্রকল্পের পক্ষে সমর্থন দিয়েছেন তিনি। তবে রাজনীতিতে আসার কথা সরাসরি কখনও বলেননি। গত বছরের ডিসেম্বরে এক সভায় বলেছিলেন, “কোনো রাজনৈতিক দলের সদস্য না হয়েও আমি জাতীয়তাবাদের প্রচার করি, করবো।”

এরপর থেকেই গুঞ্জন, তিনি ভোটের মাঠে নামছেন।

About

Popular Links