Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মেয়ের শেষকৃত্যে জ্ঞান হারালেন তুনিশা শর্মার মা

তাৎক্ষণিকভাবে তার জ্ঞান ফেরানো সম্ভব হয়নি

আপডেট : ২৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:১২ পিএম

তরুণ অভিনেত্রী তুনিশা শর্মার অকাল মৃত্যুর ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে ভারতের বিনোদন জগত। তার এই অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু এখনও অনেকেই মেনে নিতে পারেননি। মেয়ে হারানোর শোক হয়ত এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেননি তুনিশা শর্মার মা ভনিতা শর্মা। মেয়ের শেষকৃত্যে নিজেকে সামলে রাখতে না পেরে তাই জ্ঞান হারালেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) মুম্বাইয়ের মিরা রোড শ্মশানে তুনিশা শর্মার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়। মেয়ের শেষকৃত্য যখন সম্পন্ন করা হচ্ছিল, তখন ভনিতা শর্মা মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন এবং অজ্ঞান হয়ে যান। পরবর্তীতে তাকে একটি চেয়ারে করে গাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।

ইতোমধ্যে তুনিশা শর্মার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার অনেকগুলো ছবি অনলাইনে এসেছে। ছবিগুলোতে দেখা যায়, অজ্ঞান হওয়ার পর অনেকেই ভনিতা শর্মাকে বাতাস করে জ্ঞান ফেরানোর চেষ্টা করছে। তবে তুনিশা শর্মার মায়ের জ্ঞান ফেরানো সম্ভব হয়নি। পরে কয়েকজন মিলে ভনিতা শর্মাকে চেয়ারে বসান।

তুনিশা শর্মা/ইনস্টাগ্রাম

তুনিশা শর্মার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার অনুষ্ঠানে কানওয়ার ধিলোন, রিম শেখ, অশনুর কৌর, অবনীত কৌর, সিদ্ধার্থ নিগম, অভিষেক নিগম, শিভিন নারাং, বিশাল জেঠওয়াসহ বেশ কয়েকজন তারকা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া, তুনিশার সহ-অভিনেতা শিজান মোহাম্মদ খানের মা ও বোনও তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এসেছিলেন।

অল্প সময়ের মধ্যেই ভারতের ছোট পর্দার জনপ্রিয় মুখ হয়ে উঠেছিলেন তুনিশা শর্মা। তবে প্রতিভাবান এই অভিনেত্রীর জীবনপ্রদীপও নিভে যায় অল্প বয়সেই। সাম্প্রতিক সময়ে “আলি বাবা: দাস্তান এ কাবুল” নামক এক ধারাবাহিকে রাজকন্যা মারিয়ামের চরিত্রে অভিনয় করছিলেন তুনিশা।

শনিবার মহারাষ্ট্রের পালঘর জেলার ভাসাইয়ে সেই ধারাবাহিকের কাজ চলাকালে তুনিশা শর্মা শুটিং সেটে ওয়াশরুমে গিয়েছিলেন। তবে দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার পরেও তিনি ফিরে আসেননি। পরে দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। সেখান থেকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তুনিশাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তুনিশা শর্মা/কোলাজ

তুনিশা শর্মার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ সুস্পষ্টভাবে না জানা গেলেও প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় তার অন্যতম সহ-অভিনেতা শিজান মোহাম্মদ খানের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ আনেন তুনিশার মা ভনিতা শর্মা। তার মৃত্যুর পর শিজান মোহাম্মদ খানের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে করা মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর তাকে চারদিনের জন্য পুলিশের হেফাজতে পাঠানো হয়। 

ভনিতা শর্মার ভাষ্যমতে, তুনিশার সঙ্গে প্রতারণা করেছে শিজান। প্রথমে সে তুনিশার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয়। তবে সম্পর্ক চলাকালেই শিজান অন্য একটি মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। এরপর সে তুনিশার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে। 

জিজ্ঞাসাবাদে শিজান মোহাম্মদ খান বলেন, মৃত্যুর কয়েকদিন আগেও তুনিশা শর্মা আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন। তবে তখন তিনি তাকে উদ্ধার করতে সমর্থ হন। পরবর্তীতে তিনি তুনিশার মাকে পুরো বিষয়টি জানান। সেই তাকে বলেন যেন তুনিশার ভালোমতো খেয়াল রাখা হয়। পুলিশ এখন তার বক্তব্যের সত্যতা যাচাই করছে।

পুলিশি হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদের সময়ে তুনিশা শর্মার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের কথাও স্বীকার করেন শিজান মোহাম্মদ খান। তবে দুজন দুই ধর্মের হওয়ায় তারা সম্পর্কছেদের সিদ্ধান্ত নেন বলে জানান এই অভিনেতা। তাছাড়া, দুজনের বয়সের মধ্যে বিস্তর ব্যবধানও এই বিচ্ছেদের পেছনে ভূমিকা রাখে।

তুনিশা শর্মা/ইনস্টাগ্রাম

মুম্বাইয়ের জেজে হাসপাতালে তুনিশা শর্মার মরদেহের ময়নাতদন্তও শেষ হয়েছে। ময়নাতদন্তে প্রতিবেদনে বলা হয়, ঝুলন্ত অবস্থায় ওই অভিনেত্রীর মৃত্যু হয়েছে। তাছাড়া, মৃত্যুর আগে তিনি অন্তঃস্বত্বাও ছিলেন না। তবে তুনিশা শর্মার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ উদঘাটনে পুলিশ এখনও কাজ করছে।

ছোট পর্দায় তুনিশা শর্মার শুরুটা হয়েছিল শিশুশিল্পী হিসেবে। সনি টিভির শো “মহারানা প্রতাপ-এ চাঁদ কানওয়ারের ভূমিকায় অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি আলোচনায় আসেন। এছাড়া, “ভারত কা বীর পুত্র”, “চক্রবর্তী অশোক সম্রাট”, “গাব্বার পুঞ্চওয়ালা”, “শের-ই-পাঞ্জাব: মহারাজা রঞ্জিত সিংহ”, “ইন্টারনেট ওয়ালা লাভ”-এর মতো ধারাবাহিকে কাজ করে জনপ্রিয়তা পান তিনি।

টিভি নাটকে কাজ করার পাশাপাশি বেশ কয়েকটি বলিউড চলচ্চিত্রেও কাজ করেছেন তুনিশা শর্মা। চিত্রনায়িকা ক্যাটরিনা কাইফের চেহারার সঙ্গে বেশ সাদৃশ্য ছিল তার। “ফিতুর”, “বার বার দেখো” সিনেমায় ক্যাটরিনা কাইফের ছোটবেলার চরিত্রে দেখা গেছিল এই অভিনেত্রীকে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও দারুণ সরব ছিলেন তুনিশা শর্মা। মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগেও ইনস্টাগ্রামে তিনি নিজের একটি ছবি আপলোড করেছিলেন। ক্যাপশনে তুনিশা লিখেছিলেন, “তারা থামে না, যারা নিজের আবেগের কথা শোনে।” কিন্তু এই অভিনেত্রীর জীবনের চাকাও যে কয়েক ঘণ্টা থেমে যাবে, তা বোধহয় কেউ কল্পনাও করেনি তখন।

About

Popular Links