Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বাংলাদেশে ‘ফারাজ’ সিনেমার প্রচার-প্রদর্শনে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে হাইকোর্ট এ আদেশ দেন

আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০২:০৮ পিএম

রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বাংলাদেশের সিনেমা হলসহ সব ধরনের অনলাইন প্লাটফর্মে ভারতীয় সিনেমা “ফারাজ” মুক্তি না দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট।

সোমবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিচারপতি মো. খসরুজ্জমান ও বিচারপতি মো. বিচারপতি মো. ইকবাল কবীরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাডভোকেট আহসানুল করিম।

এর আগে, হলি আর্টিজনের ঘটনায় নিহত অবিন্তা কবিরের মা রুবা আহমেদ গত ১২ ফেব্রুয়ারি এ রিট দায়ের করেন। রিটে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।

রিটে আবেদনে ২০১৬ সালের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজনের জঙ্গি হামলার ঘটনার প্রেক্ষাপট নিয়ে নির্মিত ভারতীয় সিনেমা “ফারাজ” বাংলাদেশের মুক্তির প্রশ্নে রুল জারিরও আরজি জানানো হয়।

পরে রিটকারীর আইনজীবী আহসানুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, “ফারাজ সিনেমা বাংলাদেশের কোনো অনলাইন প্লাটফর্মসহ কোথাও প্রদর্শন করা না হয় সেজন্য রিট দায়ের করা হয়েছে। এই সিনেমায় যে চিত্রায়িত করা হয়েছে, সেখানে দেখানো হয়েছে দুই জন জঙ্গি কথা বলছেন, তার মধ্যে একজনের সঙ্গে অবিন্তার সম্পর্ক ছিল বা আছে এবং তার পোশাক-পরিচ্ছদ এমনভাবে দেখানো হয়েছে, যা আমাদের সভ্য সমাজে শিক্ষিত পরিবারের কেউ কখনও এসব পরিধান করে না। এ সিনেমায় মেয়েটাকে চারিত্রিকভাবে অবনতি করা হয়েছে। এমনকি বাংলাদেশের পুলিশকেও ব্যর্থ দেখানো হয়েছে; যা একটি সার্বভৌমত্বের প্রশ্ন। এসব কারণে বাংলাদেশের কোনো প্লাটফর্মে আসা উচিত না। তাই বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে রিট দায়ের করা হয়েছে।”

তিনি আরও জানান, দেশে সিনেমাটি যেন ওটিটি প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্স, অ্যামাজনসহ কোনো প্লাটফর্মে মুক্তি না দেওয়া হয়। তাই বিটিআরসির প্রতি নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

এর আগে, গত ১৯ জানুয়ারি এক সংবাদ সম্মেলনে একই দাবি জানিয়েছিলেন রুবা আহমেদ। তিনি বলেছিলেন, “ফারাজ” সিনেমাটি দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করবে। সিনেমাটির নির্মাতা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। এ ঘটনায় তারা সহমর্মিতাও প্রকাশ করেনি। আইনি নোটিশ পাঠিয়েও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় নিহত হন ফারাজ আইয়াজ হোসেন ও অবিন্তা কবিরসহ ২০ জন। নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবির (আত্মঘাতী) সদস্যদের এই হামলায় গুলিতে দুই পুলিশ কর্মকর্তাও নিহত হন। পরে কমান্ডো অভিযানে পাঁচ জঙ্গির মৃত্যু হয়।

এ জঙ্গি হামলা নিয়ে বানানো হয়েছে বলিউড সিনেমা “ফারাজ”। হানসাল মেহতা পরিচালিত টি-সিরিজের সিনেমাটি গত ৩ ফেব্রুয়ারি ভারতে মুক্তি পেয়েছে। এটির প্রযোজক বলিউড নির্মাতা অনুভব সিনহা।

About

Popular Links