Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রিনা খান: মাঝেমধ্যে মনে হয় ভাগ্য খারাপ, বাংলাদেশের শিল্পী হয়েছি

রিনা খান বলেন, ‘পারিশ্রমিক নিয়ে আমাদের মধ্যে বৈষম্য আছে। নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা। এ কারণে অনেকেই শেষ সময়ে কষ্টে থাকেন’

আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৪:৫৩ পিএম

খল অভিনেত্রী হিসেবে ঢাকাই চলচ্চিত্রে যে কজন অভিনেত্রী রয়েছেন, তাদের মধ্যে জনপ্রিয়তা আর খ্যাতির দিক থেকে সবচেয়ে বেশি পরিচিতি পেয়েছেন রিনা খান। ক্যারিয়ার নিয়ে তার মধ্যে কোনো আক্ষেপ বা হতাশা না থাকলেও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার না পাওয়া নিয়ে তার মধ্যে কিছুটা আক্ষেপ রয়েছে।

শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) গাজীপুর কবিরপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ফিল্ম সিটিতে পরিচালক সমিতির বনভোজনে বহুদিন পর দেখা গেল তাকে।

আগের মতো তাকে সিনেমায় দেখতে না পাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে এই অভিনেত্রী বলেন, আমিতো কাজ করতে চাই। কিন্তু যে ধরণের চরিত্র করা উচিৎ, তেমন চরিত্র পাই না।”

তবে তিনি যে মাপের অভিনেত্রী অন্য দেশে জন্মালে নিজেকে উজাড় করে দিতে পারতেন বলে জানান। সংবাদমাধ্যম সমকালের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, “ভারতে আমাদের জেনারেশনের শিল্পীরা এখনো ভিন্ন ভিন্ন ক্যারেক্টারে করে যাচ্ছেন। কিন্তু আমরা সেভাবে কাজ করতে পারছি না। অনেকদিন ঘরে বসে থাকলে খারাপ লাগে।”

তিনি আরও বলেন, “পারিশ্রমিক নিয়ে আমাদের মধ্যে বৈষম্য আছে। নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা। এ কারণে অনেকেই শেষ সময়ে কষ্টে থাকেন। মাঝেমধ্যে মনে হয় ভাগ্য খারাপ, বাংলাদেশের শিল্পী হয়েছি। অন্য দেশের শিল্পী হলে আরও ভালো থাকতাম।”

এই অভিনেত্রী বলেন, “অধিকাংশ সিনেমায় আমার কাজ ছিল খল অভিনেত্রী হিসেবে। অন্তত ৫০টি ছবিতে পজিটিভ চরিত্রে কাজ করেছি। আল্লাহর কাছে হাজার শুকরিয়া আমাকে খল নায়িকা হিসেবে শীর্ষে রেখেছেন।”

রিনা খান বলেন, “বাইরে বের হলে মানুষ আমার বিভিন্ন চরিত্র নিয়ে কথা বলে। শুনেছি, অনেক ফ্যামিলিতে বলা হয় রিনার মতো কূট চাল দিচ্ছে উনি। সেলফি তোলার ধুম পড়ে যায়। আমি মনে করি এটা আমার কর্মের সার্থকতা।”

About

Popular Links