Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মাহিয়া মাহি: মা হওয়ার আগে-পরের দুই অনুভূতিই বৈচিত্র্যময়

প্রথমবারের মতো মা হওয়ার কয়েকদিন আগেই বিতর্কিত একটি বিষয়কে কেন্দ্র করে আইনি জটিলতায় জড়িয়ে কারাগারে যেতে হয়েছিল মাহিকে

আপডেট : ৩০ মার্চ ২০২৩, ০৫:১৭ পিএম

২০২৩ সালটা উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে পার করছেন মাহিয়া মাহি। এ বছরে প্রথম তিন মাসেই হজ, মামলা, গ্রেপ্তার, সন্তান জন্মদানের মতো একের পর এক বিচিত্র অভিজ্ঞতার স্বাদ পেয়েছেন এ চিত্রনায়িকা। তবুও ২০২৩ সালটা মাহির জীবনে আলাদাভাবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ঢাকাই সিনেমার এ অভিনেত্রী যে এ বছরেই পেয়েছেন মাতৃত্বের স্বর্গীয় অনুভূতি।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) রাত ১১টা ২০ মিনিটে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ছেলে সন্তানের জন্ম দেন মাহিয়া মাহি। তবে এ অভিনেত্রীর জন্য মাতৃত্বের স্বাদ পাওয়ার আগের অনুভুতিটা অনিশ্চয়তার কালো মেঘে ঢাকা ছিল। বিতর্কিত একটি বিষয়কে কেন্দ্র করে আইনি জটিলতায় জড়িয়ে কারাগারে যেতে হয়েছিল মাহিকে; অন্তঃসত্ত্বা এক নারীর জন্য এটি ভয়াল অভিজ্ঞতাই বটে।

তবে নবজাতকের আগমনে সেই কষ্ট ভুলে গেছেন মাহিয়া মাহি। প্রথমবারের মতো সন্তানের মা হয়ে বরং জীবনের নতুন অর্থ খুঁজে পেয়েছেন এ চিত্রনায়িকা। মাতৃত্বের স্বাদ পাওয়ার পরবর্তী অনুভূতি জানিয়ে তিনি বলেন, “জীবনের সেরা উপহার পেলাম। মা হওয়ার পর এবং আগের অনুভূতি– দুটিই বিচিত্র। মা হওয়ার পর নিজের মাকে আমি নতুন করে অনুভব করছি।”

ঢাকাই সিনেমার এ নায়িকা আরও বলেন, “বাবুকে ৪০ সপ্তাহ পেটে ধারণ, কত ধরনের হরমোনাল পরিবর্তন, প্রথম পেটের ভেতরে বাবুর লাথি অনুভব, প্রথম ওর মুখটা দেখা- সবকিছুই প্রথম আর অদ্ভুত জাদুকরি এক অনুভূতি। বাবুর ছোট ছোট আঙুল ছোঁয়ার অভিজ্ঞতা আমার জীবনের অন্যরকম এক শিহরণ। যখন আমার বাবুর মুখের দিকে তাকালাম, আহা এত দিনের সব কষ্ট নিমেষেই দূর হয়ে গেল। সবাই আমার রাজপুত্রের জন্য দোয়া করবেন।”

২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে গাজীপুরের ব্যবসায়ী রকির সরকারকে বিয়ে করেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। গত বছরের সেপ্টেম্বরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টের মাধ্যমে সবাইকে মা হওয়ার সুসংবাদ দিয়েছিলেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। ততদিনে অবশ্য তিনি দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

তখন মাহিয়া মাহি বলেছিলেন, “আমি তো আমার জীবনের সর্বশ্রেষ্ঠ সময়গুলো পার করছি। দিন-রাত কীভাবে চলে যাচ্ছে টেরই পাচ্ছি না। প্রচণ্ড আদর-যত্নে দিনগুলো কেটে যাচ্ছে। কারণ আমি আল্লাহর অশেষ রহমতে মা হতে যাচ্ছি, ইনশাআল্লাহ।”

About

Popular Links