Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রাজের ফেসবুকে তিশা-তুষি-সুনেরাহর ভিডিও নিয়ে বিতর্ক, ‘দোষী’ পরীমণি

নাম প্রকাশ না করলেও ছবি ও ভিডিওগুলো রাজের স্ত্রী পরীমণি প্রকাশ করেছেন বলেই ইঙ্গিতপূর্ণভাবে বুঝিয়েছেন সুনেরাহ

আপডেট : ৩০ মে ২০২৩, ০৩:০৬ পিএম

রুপালি পর্দার তারকাদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে ফের উত্তাল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। সোমবার (২৯ মে) মধ্যরাতে হঠাৎই অভিনেতা শরিফুল রাজের ফেসবুক আইডি থেকে ছড়িয়ে পড়ে অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল, তানজিন তিশা ও নাজিফা তুষির সঙ্গে ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও ক্লিপ।যদিও কিছুক্ষণ পরই সেগুলো  মুছে দেওয়া হয়।

ভিডিও এবং ছবিতে কিছুটা “অস্বাভাবিক” অবস্থায় দেখা গেছে তিন অভিনেত্রীকে। কথাবার্তায়ও ছিল অস্বাভাবিকতা।তাই বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল হ্যান্ডেলে চলছে আলোচনা-সমালোচনা।

বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল।  রাত ৩টার দিকে বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন সুনেরাহ।সেখানে পরীমণির নাম উল্লেখ না করলেও “রাজের স্ত্রী” হিসেবে চলে এসেছে তার প্রসঙ্গ।

দীর্ঘ ফেসবুক স্ট্যাটাসে সুরেরাহ জানান, এসব ভিডিও বছর পাঁচেক আগের, যখন তারা একসঙ্গে “ন ডরাই” ছবির কাজ করেছিলেন।

ফেসবুকে এই অভিনেত্রী লিখেছেন, “আমি রাজকে ১০ বছর ধরে চিনি। সে আমার সবচেয়ে ভালো বন্ধু। আমরা সবাই জানি যে, কাছের বন্ধুর সঙ্গে কীভাবে কথা বলতে হয়! সমস্যা হলো, সে একজন ছেলে এবং আমি একজন মেয়ে।”

পরীমণির নাম উল্লেখ না করেই সুনেরাহ বলেন, “বিয়ের পর রাজের সঙ্গে আমার যোগাযোগ নেই বললেই চলে। সেদিন ওর সঙ্গে দেখা হয়েছিল একটি ডাবিং স্টুডিওতে, আমরা একটি ছবি তুলি। আমি জানি না পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে ছবি তোলায় কী ভুল ছিল। তার স্ত্রী ছবিটি দেখে আমার ওপর কোনো কারণ ছাড়াই রেগে গিয়েছেন।”

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগে রাজের সঙ্গে সুনেরাহর দেখা হয়েছিল একটি ডাবিং স্টুডিওতে। সে সময় তারা সেলফি তুলে পোস্ট করেছিলেন ফেসবুকে। ওই ছবিকে ইঙ্গিত করে রাজের স্ত্রী, চিত্রনায়িকা পরীমণিও সোশ্যাল হ্যান্ডেলে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন।

রাজের আইডি থেকে পোস্ট করা ভিডিওগুলো নিয়ে সুনেরাহর ভাষ্য, “যে ভিডিওগুলো আপনারা দেখেছেন, সেগুলো পাঁচ বছর আগের। আমাদের বয়স কম ছিল। আমরা সেভাবেই কথা বলার চেষ্টা করছিলাম, যেভাবে ‘ন ডরাই'র জন্য প্রতিদিন অনুশীলন করতাম। কারণ আমরা (বিশেষ করে আমি) সিনেমায় এসব গালি ব্যবহার করেছি। আরেকটি ফটো আমি তাকে পাঠিয়েছিলাম শুটিংয়ের প্রয়োজনে মার খেয়ে ব্যথা পেয়েছিলাম, সেটা দেখানোর জন্য (ছবিতে লিয়াকত আমাকে মারতেন, যারা ‘ন ডরাই' দেখেছেন তারা জানেন); আঘাতের কারণে শুটিংয়ে যাওয়ার মতো অবস্থায় নেই বোঝাতে। এই ছবি আমি শুধু তাকে পাঠাইনি, নির্মাতাকেও দিয়েছি।”

সবশেষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিলেন সুনেরাহ।নাম প্রকাশ না করলেও ছবি ও ভিডিওগুলো রাজের স্ত্রী পরীমণি প্রকাশ করেছেন বলেই ইঙ্গিতপূর্ণভাবে বুঝিয়েছেন সুনেরাহ।

তার ভাষ্য,  “দয়া করে এটাকে বড় করে দেখবেন না, কারণ রাজের আইডি হ্যাক হয়েছিল এটা নিশ্চিত। আর আমরা সবাই জানি কে করেছেন। জনসমক্ষে হৈচৈ করতে যার কোনো কারণ লাগে না! যারা এগুলো ছড়িয়ে আমাকে হেনস্তা করার চেষ্টা করবেন, তাদের বিরুদ্ধে আমি আইনি ব্যবস্থা নেবো।”

About

Popular Links