Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাজের কাছ থেকে ‘ডিভোর্স’ চাইলেন পরীমণি

ঢাকাই সিনেমার এ অভিনেত্রী জানান, তার পক্ষে রাজের সঙ্গে আর সংসার করা সম্ভব নয়

আপডেট : ০৬ জুন ২০২৩, ০৪:০৯ পিএম

গত বছরের শুরুতে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন চিত্রনায়িকা পরীমণি এবং চলচ্চিত্র অভিনেতা শরিফুল রাজ। তাদের ঘর আলো করে আসে এক ছেলে সন্তানও। কিন্তু বছর না পেরোতেই রাজ-পরীর সংসারে ভাঙনের সুর বেজে ওঠে। যদিও খুব দ্রুতই সবকিছু সামলে নেন তারা।

কিন্তু গত মাসের শেষদিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অভিনেত্রী তানজিন তিশা, নাজিফা তুষি ও সুনেরাহ বিনতে কামালের সঙ্গে ফাঁস হওয়া ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি-ভিডিও ক্লিপ ভাইরালের পর স্বামী ও চিত্রনায়ক শরিফুল রাজের সঙ্গে সংসারে টানাপড়েনের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন পরীমণি। তিনি জানান, রাজের সঙ্গে অনেক চেষ্টা করেও এক ছাদের নিচে থাকতে পারেননি তিনি।

রাজ এবং পরীমণি একসঙ্গে থাকছেন না- খবরটা পুরোনো। নতুন খবর হলো ২৪ ঘণ্টার মধ্যে স্বামী শরিফুল রাজের কাছ থেকে “ডিভোর্স” চেয়েছেন এ চিত্রনায়িকা। ঢাকাই সিনেমার এ অভিনেত্রীর ভাষ্যে, তার পক্ষে রাজের সঙ্গে আর সংসার করা সম্ভব নয়। তাই তিনি দ্রুতই বিচ্ছেদের পথে হাঁটতে চাচ্ছেন।

সোমবার (৫ জুন) গণমাধ্যমের লাইভে নিজের দাম্পত্য সংকট এবং রাজের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। সেখানে তিনি বলেন, “আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাজ আমাকে ডিভোর্স দিয়ে দিক, সেটা চাইছি। আমি আর রাজের স্ত্রী হয়ে থাকতে চাই না। রাজ্যের মা হয়ে থাকতে চাচ্ছি, যার মধ্যে কোনো মিথ্যা নেই।”

শরিফুল রাজকে আগাগোড়া “ফেইক” মানুষ হিসেবে উল্লেখ করে পরীমণি বলেন, “যে মানুষ আমাকে পাবলিকলি অসম্মান করে, তেমন একটা ফেইক মানুষের সঙ্গে আমি থাকতে পারব না। যিনি একজন মানুষকে রেসপেক্ট দেয়া তো ভেতর থেকে আসে, সেটা তো আপনি দেখাতে পারবেন না।”

শরিফুল আলম রাজ-পরীমণি ফেসবুক

রাজকে “অতিথি পাখি”' উল্লেখ করে এ ঢালিউড অভিনেত্রী বলেন, “বাচ্চার দায়িত্ব একজনের ওপরে চাপিয়ে দিয়ে রাজ ঘুরে বেড়াবে, সেটা হয় না।”

পারস্পরিক সমস্যার মধ্যে কোনোভাবেই সন্তানকে টেনে এসে আবেগঘন পরিস্থিতি তৈরি করা যাবে না উল্লেখ করে পরীমণি বলেন, “সব আর্কাইভ থেকে যাবে, রাজ্য বড় হয়ে এসব দেখবে, যা ভালো হবে না। তাই বাচ্চাকে ক্যাশ করে কিছু করার চেষ্টা কোরো না, সেটা ভালো হবে না। আমি আমার বাচ্চার মাকে অসম্মান করতে চাই না- এসব ভুলভাল কথা মানুষকে আর গিলায়ো না। তুমি মুখে বলো, আমাদের একটা বেবি আছে, সেই কথাটা সুস্থভাবে নিজের মাথায় ঢোকাও।”

দাম্পত্য কলহের ব্যাপারে স্বামী রাজের সঙ্গে বসতে (সমঝোতায়) চান কি-না, এমন প্রশ্নের জবাবে পরীমণি বলেন, “বসার হলে আগেই হতো। আর আমি তার সঙ্গে বসতে চাইনা। কারণ বসে কোনো লাভ নেই।”

এর আগে পরিমণি জানিয়েছিলেন, গত ২০ মে নিজের জিনিসপত্র নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেছে রাজ। এরপর থেকে তিনি বাসায়ও ফেরেননি, ফোনও ধরেননি। অনলাইন সংবাদমাধ্যম বিডিনিউজ টোয়েন্টি ফোরের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সংসার ছেড়ে যাওয়ার কারণটা  সবাইকে জানিয়ে দিতে পরীমনিকে অনুরোধ করেছিলেন রাজ।

রাজ বলেছিলেন, “পরীমনি জানে কেন আমি সংসার ছেড়েছি। পরীমনি যাকে ওস্তাদ মানে এবং আমার বড় ভাই সেই নির্মাতা গিয়াসউদ্দিন সেলিম এবং তার স্ত্রীও জানেন, কেন আমি বাসা ছেড়েছি। তো পরী বলুক কেন রাজ বাসা থেকে বের হয়ে গিয়েছে।”

পরীমণি-শরিফুল রাজ/ সংগৃহীত

এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে পরীমণি যাকে ওস্তাদ বলে ডাকেন, সেই নির্মাতা গিয়াসউদ্দিন সেলিমকে দোষারোপ করেন। তিনি বলেন, “রাজ যে সংসার ছাড়বেন, সেটি ছিল পূর্বপরিকল্পিত। কারণ আমি জ্বরের জন্য হাসপাতালে ভর্তি ছিলাম, বাড়িতে এসে লিভিং রুমে দেখি বড় বড় কালো ব্যাগে রাজের জিনিসপত্র রাখা। যে রাতে রাজ বাসা ছাড়ে সেই রাতে আমার ওস্তাদ গিয়াসউদ্দিন সেলিম এবং তার স্ত্রী বাসায় আসেন, তাদের সঙ্গে রাজও আসে। আমাদের সবার মিলে হাওরে বেড়াতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আমি ওদের আনা বড় গাড়িতে যেতে চাইনি ছেলের জন্য, ওর ঘুমের সমস্যা হবে। কিন্তু রাজ বলে সে ওই গাড়িতেই যাবে, পরে বুঝলাম গাড়ি আনা হয়েছে রাজের জিনিসপত্র নেওয়ার জন্য। ওরা জানতো আমি ছেলেকে নিয়ে আসলে যাব না। তখন গিয়াসউদ্দিন সেলিম আমাকে জিজ্ঞাসা করেন, কেন আমি রাজকে ডিভোর্স দিচ্ছি না। আমি বলি, কেন আমি ডিভোর্স দিব?”

এ চিত্রনায়িকা আরও বলেন, “এরপর গিয়াসউদ্দিন সেলিম যখন আমাকে জিজ্ঞাসা করেন, ডিভোর্স হলে রাজকে আমি বাচ্চা দেখতে দিব কি না। তখন আমি পরিষ্কার বুঝে যাই আমার ওস্তাদ (গিয়াসউদ্দিন সেলিম), তার স্ত্রী এবং রাজ তিনজন মিলে নাটক করছেন। ওস্তাদের সঙ্গে বাসায় আসার আগেই তার অফিসে বসে বাসা ছেড়ে যাওয়ার বিষয়ে কথা সেরে নিয়েছে রাজ এবং আমি নিশ্চিত, রাজ যে বাসা ছাড়তে চায় এই বিষয়টায় গিয়াসউদ্দিন সেলিম ইনভলব। তিনি পুরোটা জানেন।”

ঘরোয়া আয়োজনে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন চিত্রনায়িকা পরীমণি এবং অভিনেতা শরীফুল রাজ/ ফেসবুক

পরীমণির দাবি, পুরো ঘটনা বাসার ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার ভিডিওতে ধারণ করা আছে। এমনকি প্রয়োজনে সেই প্রমাণও দেবেন বলে জানান তিনি।

এদিকে শরীফুল রাজ বলেন, “পরী কী বলেছে, তা আমি জানি না। তবে আমাদের সংসার থাকছে না, এটা চূড়ান্ত। আমার আর কিছু বলার নেই।”

গত ২৯ মে দিবাগত রাত দেড়টার দিকে শরিফুল রাজের ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডি থেকে ছড়িয়ে পড়ে অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল, তানজিন তিশা ও নাজিফা তুষির সঙ্গে ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও ক্লিপ। ভিডিও এবং ছবিতে কিছুটা “অস্বাভাবিক” অবস্থায় দেখা গেছে তিন অভিনেত্রীকে। কথাবার্তায়ও ছিল অস্বাভাবিকতা। যদিও কিছুক্ষণ পরই সেগুলো মুছে দেওয়া হয়। ওই ছবি-ভিডিও কে পোস্ট করেছে তার কিছুই জানা যায়নি এখনও। তবে ওই ভিডিওর সূত্র ধরেই রাজ-পরীর সংসারে আলাদা থাকার খবর প্রকাশ্যে আসে।

একটি সিনেমার শুটিংয়ে চিত্রনায়ক শরিফুল রাজ ও চিত্রনায়িকা পরীমণির প্রথম দেখা। আর সেই সাক্ষাতের এক সপ্তাহের মাথায় ২০২১ সালের ১৭ অক্টোবর তারা গোপনে বিয়ে করেন। ২০২২ সালের ১০ জানুয়ারি সেই খবর প্রকাশ্যে আনেন তারা। একই দিনে সন্তান ধারণের বার্তাটিও দেন এ দম্পতি। এরপর ২২ জানুয়ারি তারা পারিবারিক আয়োজনে বিয়ে সারেন। একই বছরের ১০ আগস্ট তাদের ঘর আলো করে আসে পুত্রসন্তান শাহীম মুহাম্মদ রাজ্য।

About

Popular Links