Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ওটিটি কাঁপাচ্ছেন চঞ্চল-মোশাররফরা, বাংলাদেশে নজর কলকাতার

ওটিটি সিরিজ় ‘কারাগার’র প্রথম সিজ়ন গত আগস্টে হইচই প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেয়েছে। এখন পর্যন্ত এই সিরিজটি হইচই- এ বাংলাদেশের অরিজিনালগুলোর মধ্যে সর্বাধিক ভিউজ় পেয়েছে। এর পরে রয়েছে ‘মহানগর’ ও ‘কাইজ়ার’

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:১৯ পিএম

বাংলাদেশের ওটিটি কনন্টেন্ট ক্রমাগত আলোচনায় আসছে। ওটিটি প্ল্যাটফর্মের কারণে এখন যেকোনো দেশের সিরিজ়-সিনেমা দর্শকের হাতের মুঠোয়। বাংলাদেশি অভিনেতা মোশাররফ করিম, চঞ্চল চৌধুরী, আফরান নিশোরা এক প্রকার অলিখিত দখলদারিত্ব নিয়েছেন ওটিটি প্ল্যাটফর্মের। এবার তাই বাংলাদেশের দিকে জোর নজর দিয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রযোজকরা।

সৈয়দ আহমেদ শাওকি পরিচালিত ওটিটি সিরিজ “কারাগার”-এর প্রথম সিজন গত আগস্টে “হইচই” প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেয়েছে। এখন পর্যন্ত এই সিরিজটি “হইচই” এ বাংলাদেশের অরিজিনালগুলোর মধ্যে সর্বাধিকবার দেখা হয়েছে। এরপরেই রয়েছে “মহানগর” ও “কাইজার”।

আন্তর্জাতিক সিরিজ দেখেন এমন বাঙালি বিশ্লেষকেদের ধারণা, “কারাগার”-এর মতো কন্টেন্ট তারা বাংলা ভাষায় আগে দেখেননি। 

হইচই-এর চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) সৌম্য মুখোপাধ্যায়ের মতে,  ‘‘বাংলাদেশে ব্যবসা বাড়াতে ‘কারাগার’ খুবই সাহায্য করেছে। আমরা গর্বিত এই শো নিয়ে।’’ 

হইচই-এর পাশাপাশি আড্ডা টাইমস, প্ল্যাটফর্ম এইট, ক্লিকের মতো একাধিক ওটিটি এসেছে বাজারে, যারা বাংলা সিরিজ তৈরি করছে। প্রতিযোগিতার বাজারে সব কিছুকে ছাপিয়ে নজর কাড়ছে বাংলাদেশি সিরিজগুলো।

“কারাগার” ছাড়া “তকদির” (হইচই) সিরিজটির পরিচালনা করেছেন শকি। “কাইজার”র অন্যতম প্রযোজক তিনি। 

ফোনে আনন্দ প্লাসকে শকি বললেন, ‘‘দর্শক কোনো কন্টেন্টকে কীভাবে গ্রহণ করবেন, তা আগে থেকে বলা যায় না। এত প্রশংসা পেয়ে ভালোই লাগছে। তবে আমি যা বানাতে চাই, যা দর্শককে দেখাতে চাই, তেমন কন্টেন্ট বানাই।’’ 

পরিচালক জানান, হইচই-এর কাছে প্রথমে তিনি একটা গল্প নিয়ে গিয়েছিলেন। হইচই কর্তৃপক্ষ জিজ্ঞেস করেছিল, গল্পটার ভৌগোলিক অবস্থান টেক্সাস করে দিলে কী একই আবেদন থাকবে? তিনি বলেছিলেন, থাকবে। তখন তারা বলেছিল, এমন কিছু ভাবতে যাতে বাংলাদেশের গন্ধ থাকবে, বাংলাদেশকে ভালোমতো চিনতে পারবেন দর্শক। 

শাওকি আরও জানান, ‘‘দক্ষিণ কোরীয় সিরিজগুলোর কথা যদি বলেন, সেগুলোতেও দক্ষিণ কোরিয়াকে খুব ভালোভাবে চেনা যায়। আমাদের সিনেমা-সিরিজ বানানোর পদ্ধতি বিদেশ থেকেই অনুপ্রাণিত। তাই গল্পগুলোকে ‘লোকাল’ হতেই হবে।’’

“কারাগার”-এর মুখ্য চরিত্র এক কয়েদির, যার দাবি তিনি মীরজাফরকে হত্যা করেছিলেন! ঢাকার এক পরিত্যক্ত জেলে সিরিজটির শ্যুটিং হয়। 

অন্যদিকে “তকদির”র মুখ্য চরিত্র শববাহী গাড়ির এক চালক। দুটো সিরিজ়েই অনবদ্য অভিনয় চঞ্চল চৌধুরীকে জনপ্রিয়তার চুড়োয় নিয়ে গেছে।

“মহানগর” পলিটিক্যাল থ্রিলার, যার মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম। “কাইজার”ও থ্রিলার ঘরানার, মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো। 

ব্যবসায়িক দিক থেকে থ্রিলার বানানো “নিরাপদ”। শাওকির মতে, ‘‘ওটিটিতে দর্শক টাকা দিয়ে দেখছেন। তারা মেনু চান, যেখানে নানা স্বাদের কন্টেন্ট থাকবে। থ্রিলার এখন বেশি চলছে। অন্য কন্টেন্টও পরে বানাব।’’

বাংলাদেশি প্ল্যাটফর্ম “চরকি”তে নুহাশ হুমায়ুনের “ষ” সিরিজ়টি প্রশংসিত হয়েছে। এখানে ফ্যান্টাসির সঙ্গে মেশানো হয়েছে হরর। আবার সামাজিক বার্তাও রয়েছে সিরিজটিতে।

ভাবনা, গল্প, পরিবেশন সর্বোপরি নতুন কিছু করার আয়োজনে তাই বাংলাদেশের দিকে নজর দিয়েছে কলকাতা। এমনটিই জানালো ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার।

About

Popular Links