Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নওয়াজউদ্দিন: গায়ের রং কালো বলে এখন আর অবহেলার সুযোগ নেই

নওয়াজ বলেন, কালে রঙের চামড়ার মানুষের চাহিদা আছে ইন্ডাস্ট্রিতে। কালো রঙের মানুষদের ক্যামেরায় দেখানোর ক্ষেত্রে সততা থাকে

আপডেট : ১২ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:১৩ পিএম

বলিউডের শক্তিমান অভিনেতাদের কাতারে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী অন্যতম। যশ-খ্যাতি নিয়েও সাদামাটা জীবনে অভ্যস্ত তিনি। 

“কিক”, “গ্যাংগস অব ওয়াসেপুর', “মান্টো”, “রইস”, “বাবুমশাই বন্দুকবাজ”, “বজরঙ্গী ভাইজান” এর মতো অসংখ্য সিনেমা দিয়ে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন এই অভিনেতা।

গায়ের রং কালো হওয়ায় প্রথম দিকে “বিদ্রুপের” মুখোমুখি হতে হয়েছে তাকে। ২০১৭ সালে হিন্দুস্তান টাইমসের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে সেকথা জানিয়েছিলেন তিনি। বলেছিলেন, “তিনি শিল্পে বর্ণবাদী লোকেদের কারণে প্রত্যাখ্যানের মুখোমুখি হয়েছেন।” তবে অভিনয়ই তার সব সমালোচনার জবাব দিয়েছে। এবার আবারও একই বিষয়ে বেশ মনখুলে কথা বললেন তিনি।

সম্প্রতি ইকোনোমিকস টাইমসের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বলিউড ইন্ডাস্ট্রি, নায়ক-নায়িকাদের সম্মানি ও সিনেপাড়ার সামগ্রিক বিষয় নিয়ে সমালোচনা করেছেন তিনি। তিনি বলেছেন, বেশি সম্মানি নেওয়া আদতে সিনেমার ক্ষতি করছে। সঙ্গে তিনি জানান, কালো রঙের কারণে তার চাহিদা বেড়েছে। 

সুদর্শন অভিনেতা না হওয়ার চ্যালেঞ্জ আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, “পরিচালকরা সত্যিকার অর্থে অভিনয়ের জন্যই যদি লোক খোঁজে তাহলে আমাকে ডাকবে। আমার চাহিদা আছে। কালে রঙের চামড়ার মানুষের চাহিদা আছে ইন্ডাস্ট্রিতে। কালো রঙের মানুষদের ক্যামেরায় দেখানোর ক্ষেত্রে সততা থাকে। আমি যদি ক্যামেরার সামনে সৎ থাকি তাহলে সিনেমাজুড়ে এমনিতেই আমাকে সুন্দর দেখাবে।”

তবে, অনেকেই ক্যামেরার সামনে সুন্দর। অন-স্কিন আর বাস্তবে অনেকের ক্ষেত্রে বিস্তর পার্থক্য রয়েছে। এমন ঘটনাও রয়েছে।

সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির পরিবর্তন ইতিবাচক না নেতিবাচক? প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “দর্শকের চিন্তা-ভাবনা এগিয়েছে, পেছনে পড়ে আছেন আমাদের তারকারা। সিনেমাও পিছনের দিকে হাঁটছে। তাহলে কেন দেখবেন এখনকার মানুষ? এখন তো ওটিটির সুবিধা রয়েছে!”

নওয়াজের মতে, “তারকাখচিত ইন্ডাস্ট্রির ধারণা এবার বদলাতে চলেছে। অভিনেতাদের গুরুত্ব বাড়ছে। তবে কি শিল্পীরা ব্যবসা ভুলে শুধুই কাজ নিয়ে ভাববেন?”

নওয়াজ বলেন, “বক্স অফিসের নম্বর দেখা প্রযোজকদের কাজ। ছবির টিকিট বিক্রি হলো কিনা, সেই চিন্তা অভিনেতারা কেন করবেন? আমি এখানে দুর্নীতির গন্ধ পাই। যে তারকারা ১০০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক চান, তারা আসলে ইন্ডাস্ট্রিরই ক্ষতি চান। অল্প বাজেটের ছবি হলে কখনো লোকসানের বোঝা টানতে হয় না।”

নওয়াজ জানান, “ছবির থেকে বাজেটের ভার বেশি হলে সেই প্রকল্প মুখ থুবড়ে পড়তে বাধ্য। ফিল্মের বাজেটই আসলে ছবির সাফল্য বা ব্যর্থতার কারণ।”

About

Popular Links