Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ডেপের বিরুদ্ধে মামলা তুলে নেবেন অ্যাম্বার, নিষ্পত্তি ১০ কোটি টাকায়

ভার্জিনিয়ার আদালতে জনি ডেপের বিরুদ্ধে মামলা লড়তে গিয়ে প্রায় সমস্ত সম্পত্তি এবং সঞ্চয় খুইয়েছেন অ্যাম্বার হার্ড। মামলা চালিয়ে নিতে প্রাক্তন প্রেমিক ধনকুবের ইলন মাস্কের কাছেও হাত পেতেছিলেন অভিনেত্রী

আপডেট : ২০ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:১২ পিএম

মার্কিন অভিনেত্রী অ্যাম্বার হার্ড সাবেক স্বামী অভিনেতা জনি ডেপকে মানহানির মামলা নিষ্পত্তির জন্য ১০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা (১ মিলিয়ন ডলার) পরিশোধ করার কথা জানিয়েছেন।

এক ইনস্টাগ্রাম পোস্টে তিনি লিখেছেন, “অনেক আলোচনার পর আমি মানহানির মামলা নিষ্পত্তি করার জন্য একটি কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমেরিকান আইনি ব্যবস্থার প্রতি আস্থা হারিয়ে আমি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।” এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

অ্যাম্বার হার্ড বলেছেন, “আমার বিরুদ্ধে প্রাক্তন স্বামীর দায়ের করা মানহানির মামলার নিষ্পত্তির বিষয়ে অনেক চিন্তা-ভাবনা করে, এবার এক কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। প্রথমেই বলি, আমি এই পথে আসতে চাইনি। শুধু নিজের সত্যরক্ষা করতে আইনি সাহায্য নিয়েছি। কিন্তু সেটি করতে গিয়েই আমার জীবন ধ্বংস হয়ে গেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আমি যে অপমানের মুখোমুখি হয়েছি, তা সামনে এগিয়ে আসা নারীদের শিকার হওয়ার যেকোনো অপমানকে ছাপিয়ে গেছে… আর এই জটিলতার মধ্যে থাকতে চাই না।”

ভার্জিনিয়ার আদালতে জনি ডেপের বিরুদ্ধে মামলা লড়তে গিয়ে প্রায় সমস্ত সম্পত্তি এবং সঞ্চয় খুইয়েছেন অ্যাম্বার হার্ড। তাকে হারিয়ে মোটা অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করেছিলেন ডেপ; অথবা তার বিরুদ্ধে মামলা তুলে নিতে বলেছিলেন। কিন্তু রাজি হননি অ্যাম্বার। 

শোনা গিয়েছিল, মামলা চালিয়ে নিতে প্রাক্তন প্রেমিক ধনকুবের ইলন মাস্কের কাছেও হাত পেতেছিলেন অভিনেত্রী। ইলন রাজি না হওয়ায় স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বিক্রি করে এতদিন মামলা টেনেছেন। কিন্তু আর সম্ভব নয় বলে জানালেন। 

শুধু আর্থিক কারণে নয়, অ্যাম্বারের বক্তব্য, “জনপ্রিয়তার ভিত্তিতে বিচার হলে আমি কোনো দিক দিয়েই দাঁড়াতে পারব না। হেনস্থা সয়ে আমি ক্লান্ত। যদি আমি বিশেষ আবেদনও জানাই, বিচারকও যদি বদলায়, তবুও আমি নতুন করে সমস্ত তথ্যপ্রমাণ সাজিয়ে আবার লড়তে পারব না। সেই মানসিকতা নেই, এসবের মধ্যে আর থাকতে চাইছি না।”

২০১৮ সালে সাবেক স্বামী জনি ডেপের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থা এবং ডোমেস্টিক ভায়োলেন্সের অভিযোগ তুলেছিলেন অ্যাম্বার হার্ড। এরপরেই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন জনি। সাবেক স্বামী মিথ্যা বলছেন দাবি করে পাল্টা মামলা করেন অ্যাম্বারও। উভয় মামলার শুনানিতেই বেশ কাদা ছোড়াছুড়ি হয় প্রাক্তন এই দম্পতির মধ্যে।

জনির আইনজীবী অ্যাডাম ওয়াল্ডম্যান এক বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন, তার মক্কেলের বিরুদ্ধে অ্যাম্বারের আনা ডোমেস্টিক ভালোয়েন্সের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ছাড়া আর কিছুই নয়। অবশেষে মামলার রায় ডেপের পক্ষেই যায়। আদালত অ্যাম্বার হার্ডকে মানহানির ক্ষতিপূরণ হিসেবে জনি ডেপকে ১৫ মিলিয়ন ডলার পরিশোধের নির্দেশ দেন। তবে, শেষ পর্যন্ত মামলা তুলে নেওয়ার ঘোষণা দিলেন অ্যাম্বার।

About

Popular Links