Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শঙ্কামুক্ত নন অগ্নিদগ্ধ অভিনেত্রী শারমিন আখি

শনিবার ঢাকার মিরপুরে একটি টেলিফিল্মের শুটিংয়ে তিনি আহত হন

আপডেট : ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:৪৬ পিএম

ঢাকার মিরপুরে শুটিংয়ের সময় “বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট বিস্ফোরণে” দগ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন অভিনেত্রী শারমিন আখি শঙ্কামুক্ত নন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, “গত দুইদিনের মতো তার অবস্থা এখনও অপরিবর্তিত। তাকে এইচডিইউতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পরিস্থিতি উন্নতি হলে কেবিনে স্থানান্তর করা হতে পারে।” 

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে প্রথম আলো। 

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন বলেন, “তার অবস্থা আজও একই রকম রয়েছে। তেমন পরিবর্তন হয়নি। আমরা তাকে নিয়মিত দেখভাল করছি। সেরে উঠতে একটু সময় লাগবে।” 

এর আগে রবিবার তিনি জানিয়েছিলেন, “আঁখির শরীরের ৩৫ ভাগ অংশ পুড়ে গেছে (ডিপ বার্ন)। তার শ্বাসনালি পুড়ে গেছে, খুব একটা শঙ্কামুক্ত নন।”

শনিবার (২৮ জানুয়ারি) ঢাকার মিরপুরে একটি টেলিফিল্মের শুটিংয়ে তিনি আহত হন বলে জানিয়েছেন তার স্বামী নির্মাতা রাহাত কবির। বর্তমানে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসা চলছে এই অভিনেত্রীর।

আঁখির স্বামী নাট্য নির্মাতা রাহাত কবির হাসপাতাল থেকে বলেন, “অবস্থা এখনো স্ট্যাবল নয়। এর মাঝেই হঠাৎ করে অবস্থা কিছুটা খারাপ হয়েছিল। প্লাজমা কমে যাচ্ছিল। চিকিৎসকেরা আমাদের জানিয়েছিলেন রক্ত প্রস্তুত রাখতে। এখন প্লাজমা দেওয়া হচ্ছে। নিয়মিত ডোনার প্রস্তুত রাখতে হচ্ছে। কারণ, বার্ন রোগীর শারীরিক অবস্থা ফল করার আশঙ্কা থাকে। এ ধরনের রোগী সেনসেটিভ। পাঁচ থেকে দিন না গেলে অবস্থা বোঝা যাবে না। প্রতিটি মুহূর্ত আমাদের চিন্তা করতে হচ্ছে।”

রাহাত আরও বলেন, আঁখির হাত, “পা ও মুখ ঝলসে গিয়েছিল। পোড়া চামড়ার কিছু অংশ খুলে পড়ছিল। প্রথম দিনেই চিকিৎসকেরা আঁখির হাতের কনুই পর্যন্ত চামড়া কেটে ফেলেছেন, ঊরুর চামড়াও কাটতে হয়েছে। মুখের কিছু অংশ পুড়েছে। তার দুই হাত–পা মুড়িয়ে গেছে। কথা বলতে পারলেও আঁখি মানসিকভাবে কিছুটা চিন্তা করছে। ডাক্তাররা বলেছেন, শিগগির অবস্থা ভালোর দিকে যাবে। তার জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।”

এর আগে শনিবার আঁখির স্বামী গণমাধ্যমকে জানান, “মিরপুর ১১ নম্বরে অভিনেতা সজলের সঙ্গে একটি টেলিফিল্মের শুটিং ছিল। মেকআপ রুম এবং বাথরুম একসঙ্গেই ছিল। দুপুরে চুল ঠিক করতে আঁখি বাথরুমে যান। হেয়ার স্ট্রেইটনার (চুল পরিচর্যার বৈদ্যুতিক যন্ত্র) অন কিংবা অফ করতে গিয়ে এ ঘটনাটি ঘটে।”

এদিকে পুলিশের ধারণা, বাথরুমের মধ্যে কেউ বডি-স্প্রে ব্যাবহার করেছিল। স্প্রের গ্যাস থেকে বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটে থাকতে পারে।

জানা গেছে, বিস্ফোরণের ফলে বাথরুমের দরজা ভেঙে যায়। এরপর আঁখি চিৎকার করে সেখান থেকে বেরিয়ে আসেন। ততক্ষণে তার দুই হাত, পা ও কপালের একাংশ, চুলসহ ৩৫% দগ্ধ হয়ে যায়।

বার্ন ইনস্টিটিউটে দগ্ধ অভিনেত্রীর বোন, স্বামীসহ স্বজনরা উৎকণ্ঠা নিয়ে অপেক্ষা করছেন।

আঁখির বেড়ে ওঠা চট্রগ্রামে। সেখানে মঞ্চনাটকদের দল “অরিন্দম নাট্য সম্প্রদায়” অভিনয়ে হাতেখড়ি। এই দলের তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের “কবি” উপন্যাস অবলম্বনে নাটকের বসন্ত চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা পান তিনি। তারপর থেকে তার অভিনয়ের দিকে ঝোঁক বাড়ে।

About

Popular Links