Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রসেনজিৎ: ট্রল করা এখন ফ্যাশন হয়ে গেছে

অ্যাপে খাবার অর্ডার করে ডেলিভারি না পেয়ে টুইটারে মোদি-মমতাকে ট্যাগ করে অভিযোগ জানিয়েছিলেন প্রসেনজিৎ, তারপর থেকেই ট্রলের শিকার হচ্ছেন তিনি

আপডেট : ১৩ নভেম্বর ২০২১, ০৫:৩২ পিএম

সম্প্রতি কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ফুড ডেলিভারি অ্যাপের সেবায় “অসন্তুষ্ট” হয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে ট্যাগ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে একটি পোস্ট দিয়েছিলেন।

তারপর থেকেই অনলাইনে ক্রমাগত ট্রলের মুখে পড়তে হয়েছে তাকে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের এক সাক্ষাৎকারে সে বিষয়ে নিজের প্রতিক্রিয়াও জানিয়েছেন তিনি।

প্রসেনজিৎ বলেন, “বিষয়টির গভীরতা না বুঝেই সবাই ট্রল করা শুরু করলেন- ‘খাবারের ডেলিভারি না পেয়ে প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রীকে টুইট করেছে প্রসেনজিৎ!’ আসলে ট্রল করা এখন ফ্যাশন হয়ে গেছে।”

আফসোস করে প্রসেনজিৎ বলেন, “আমি বাস্তব একটি সমস্যার কথা বলেছিলাম, কিন্তু কেউ বিষয়টির গুরুত্ব বুঝল না। খাবার ডেলিভারি একটি জরুরি পরিষেবা। হয়ত কেউ তার বয়স্ক মা-বাবার জন্য খাবার অর্ডার করছেন অথবা অসুস্থ রোগীর জন্য ওষুধ অর্ডার করেছেন কিন্তু ডেলিভারি পাননি, সেটা কী গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নয়?”

“আবার, কোনো তরুণী রাস্তায় ক্যাবের জন্য অপেক্ষা করছে অথচ ড্রাইভার ট্রিপ ক্যানসেল করে দিচ্ছে এ ধরনের সমস্যা প্রতিনিয়ত ঘটছে, কিন্তু কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না। আমি এ সব অনলাইন পরিষেবার ওপর নজরদারি রাখার কথাই বলতে চেয়েছিলাম।”

উল্লেখ্য, ফুড ডেলিভারি অ্যাপ সুইগি’র মাধ্যমে খাবার অর্ডার করে ডেলিভারি না পেয়ে টুইটারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ট্যাগ করে অভিযোগ জানিয়েছিলেন প্রসেনজিৎ।

৫৯ বছর বয়সী এ অভিনেতার টুইটটি সাধারণ মানুষের থেকে বেশ ভালো প্রতিক্রিয়াও পেয়েছিল। অনেকে তাকে নিয়ে উপহাস ও ট্রল করলেও এবং বেশিরভাগ মানুষই তাকে সমর্থন করছেন।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে দীর্ঘ বিরতির পর ক্যামেরার মুখোমুখি হয়েছেন দুই বাংলার জনপ্রিয় এ অভিনেতা। জানালেন দীর্ঘ বিরতির পর প্রথম ক্যামেরার মুখোমুখি হওয়ার অভিজ্ঞতা।

তিনি বলেন, “দীর্ঘ বিরতিতে প্রচুর হোমওয়ার্ক করেছি। নিজের ভুল-ত্রুটি শোধরানোর চেষ্টা করেছি। মহামারির মধ্যেই পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের ‘অভিযান’ চলচ্চিত্রের শুটিং করতে যাই। সেখানেই প্রথম বুঝতে পারি আমি নিজের মধ্যে নেই। এক ধরনের মেন্টাল ব্লকের মধ্যে ছিলাম। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে স্বাভাবিক হয়েছি।”

প্রসেনজিৎ বর্তমানে হিন্দি ও বাংলা ভাষার কয়েকটি ওয়েব সিরিজের কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এছাড়া, বাংলাদেশের “ব্যাঙ্ক ড্রাফট” নামে একটি চলচ্চিত্রেও তার অভিনয়ের কথা রয়েছে। যদিও এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি এ তারকা।

About

Popular Links