Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জন্মদিনে ব্রিটনি কথন

নতুন শতকে ব্রিটনি স্পিয়ার্স যেন এক সঙ্গীত ঝড়। তিনি তুল্য হতে থাকেন থাকেন ম্যাডোনা, মারায়াহ ক্যারির মতো সঙ্গীত নক্ষত্রের সঙ্গে। বিলবোর্ড টপচার্টে তার গান ঝড় তোলে

আপডেট : ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৪৬ পিএম

সৃষ্টিশীলদের প্রতিভা ছাই ঢাকা আগুনের মতোন। কিছু সময়ের কেউ আড়ালে যেতে পারেন। তবে প্রত্যাবর্তন হয় জ্বলন্ত সব স্পটলাইটের সামনেই। মার্কিন পপ তারকা ব্রিটনি স্পিয়ার্সের জীবন বয়েছে এ ধারাবাহিকতায়।

৯০ এর দশকের শেষে তার আবির্ভাব। লিরিক, গানে, নাচে ব্যাপক প্রভাবিত করেন সঙ্গীত দুনিয়া। ‘‘প্রিন্সেস অব পপ’’ তকমা জুটে যায় নামের আগে। বিশ্বজুড়ে প্রায় ১০০ মিলিয়নের বেশি বিক্রি হয় ব্রিটনির অ্যালবাম। মাত্র ১৬ বছর বয়সে বিভিন্ন অডিও, ভিডিও প্রোডাকশনের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন তিনি। রাতারাতি বিশ্ববাসী জেনে যায় এ তারকার আগমন বার্তা। সর্বকালের সেরা টিনএজ সেলিব্রেটি হিসেহে গ্রাহ্য হন ব্রিটনি। তার ‘‘উপস, আই ডিড ইট এগেইন’’ আর ‘‘বেবি ওয়ান মোর টাইম’’ দুনিয়ার তারুণ্যের প্রিয় সঙ্গীত হয়ে ওঠে।

নতুন শতকে ব্রিটনি স্পিয়ার্স যেন এক সঙ্গীত ঝড়। তিনি তুল্য হতে থাকেন থাকেন ম্যাডোনা, মারায়াহ ক্যারির মতো সঙ্গীত নক্ষত্রের সঙ্গে। বিলবোর্ড টপচার্টে তার গান ঝড় তোলে। তাও এক অ্যালবামের ৭টি গান। যে কৃতিত্ব এখন পর্যন্ত কারও নেই। তার ভিন্নরকম কোরিয়োগ্রাফিময় মিউজিক ভিডিও মাইকেল জ্যাকসনকে মনে করায়। 

তিনি অর্জন করেছেন সম্মানজনক গ্রামি অ্যাওয়ার্ড, বিলবোর্ড পুরস্কার, এমটিভি মিউজিক অ্যাওয়ার্ড ও গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড।

এতো অল্প বয়সে বিশ্ব তারকাখ্যাতির কিছু বিপদ থাকে। ব্রিটনিও এর বাইরে নন। মাদক, বিয়ে, আবার বিচ্ছেদ ও সন্তানের জন্মদান তাকে সঙ্গীতের আড়ালে রাখে কিছু দিন। এছাড়া পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান ও পরিবারের সঙ্গেও তিনি দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন। কিন্তু ভক্তরা ঠিকই পাশে ছিলেন তার। হ্যাশট্যাগ “ফ্রি ব্রিটনি” আন্দোলন এরই সাক্ষ্য।  

গানের সঙ্গে ব্যবসায়ী ব্রিটনির সাফল্য কম নয়। ২০০৪ সালে এলিজাবেথ অর্ডেন কোম্পানির সঙ্গে মিলে একটি পারফিউম ব্র্যান্ড বাজারে আনেন এ সেলিব্রেটি। ২০১২ সালের হিসেব মাফিক এর বিক্রি ছিল প্রায় ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ফোর্বস ম্যাগাজিনের তালিকায় ২০০২ ও ২০১২ সালে সবচেয়ে বেশি উপার্জনকারী সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে তার নাম আসে। রোলিং স্টোনস ম্যাগাজিন সর্বকালের সেরা ডেব্যু অ্যালবাম হিসেবে ব্রিটনির সঙ্গীতকে উল্লেখ করে। প্রায় ১২ বছর ধরে ইয়াহু’র সার্চ ইঞ্জিনে সবচেয়ে বেশি খোঁজা তারকা আর কেউ নন, এই ব্রিটনি স্পিয়ার্স। ২০২১ সালে টাইম ম্যাগাজিনের বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী অন্যতম ব্যক্তিত্ব হিসেবে তার নাম উল্লেখ করে।    

ব্রিটনি তার বিপুল বিত্ত শুধু নিজের ভোগে ব্যয় করেননি। বিভিন্ন চ্যারিটিতে জড়িয়ে আছেন। ওয়ান ইলেভেনে হতাহতদের জন্য তিনি অর্থ দিয়েছেন। ইউটু তারকা বোনোর সঙ্গে মিলে এইডসবিরোধী ক্যাম্পেইনে তিনি যুক্ত। হ্যারিকেন “ক্যাটরিনায়” ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ব্যয় হয়েছে তার অর্থ।  

১৯৮১ সালে আজকের এই দিন ২ ডিসেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপিতে জন্মগ্রহণ করেন এ তারকা।

 শুভ জন্মদিন, ব্রিটনি স্পিয়ার্স!

সঙ্গীত ঝড়ে কাটুক আরো অনেক প্রহর এমন প্রার্থনাই তার ভক্তদের এমন দিনে।


ফ্রিল্যান্স লেখক ও সাংবাদিক হাসান শাওনের জন্ম, বেড়ে ওঠা রাজধানীর মিরপুরে। পড়াশোনা করেছেন মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারি বাঙলা কলেজ, বাংলাদেশ সিনেমা ও টেলিভিশন ইনিস্টিটিউটে। ২০০৫ সাল থেকে তিনি লেখালেখি ও সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত। কাজ করেছেন সমকাল, বণিক বার্তা, ক্যানভাস ম্যাগাজিন ও আজকের পত্রিকায়।

২০২০ সালের ১৩ নভেম্বর হাসান শাওনের প্রথম বই “হুমায়ূনকে নিয়ে” প্রকাশিত হয়।



About

Popular Links