Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রতিমন্ত্রীর অশ্লীল কথোপকথন নিয়ে মুখ খুললেন মাহী

তিনি বলেন, ‘আমি সব সময় আল্লাহর কাছে বলি যার মাধ্যমে কষ্ট পেয়েছি-কোনো না কোনো দিন তিনি তার রেজাল্ট পাবেন এবং তিনি তা পেয়েছেন। আলহামদুলিল্লাহ’

আপডেট : ২৩ মে ২০২২, ০১:৪৯ পিএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তথ্য প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়া অডিও ক্লিপ নিয়ে এবার মুখ খুললেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহী। তিনি বর্তমানে তার স্বামীর সঙ্গে সৌদি আরবে আছেন।

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পরপরই সৌদি আরবে অবস্থানরত মাহী নিজের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভ করেন।

লাইভ ভিডিওতে মাহী বলেন, ‘‘আমি এবাদত করতে এসেছি। আমি যেটা বলার জন্য ভিডিওটা করছি সেটা হচ্ছে আমি সেদিনও ভীষণ বিব্রত ছিলাম। নিজের আত্মসম্মানবোধে কতটুকু আঘাত লেগেছে শুধু আমি জানি আর আমার আল্লাহ জানেন। আজকেও আমি ভীষণভাবে বিব্রত।’’

তিনি বলেন, ‘‘সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ যেন আমাদের ওমরাহ কবুল করেন। আল্লাহ সাক্ষী সেদিন আমার কোনো দোষ ছিল না। 

আমি জাস্ট একটা পরিস্থিতির স্বীকার ছিলাম।’’ 


তথ্য প্রতিমন্ত্রীর বিষয়ে সরকারপ্রধানের সিদ্ধান্তের দিকে ইঙ্গিত করে মাহী আরও বলেন, ‘‘আপনারা নিজের থেকে চিন্তা করবেন, এই ভাষার প্রতি উত্তর বা এই ব্যবহারের প্রতি উত্তর আমার কি দেওয়ার ছিল- আসলে সেদিন কোনো প্রতি উত্তর দেওয়ার ভাষা আমার ছিল না। আমার যেভাবে পাশ কাটিয়ে যাওয়া উচিৎ ছিল আমি সেভাবেই পাশ কাটিয়ে গেছি। দুই বছর আগের একটা ভিডিও ছিল- আমি সব সময় আল্লাহর কাছে বলি যার মাধ্যমে কষ্ট পেয়েছি-কোনো না কোনো দিন তিনি তার রেজাল্ট পাবেন এবং তিনি তা পেয়েছেন। আলহামদুলিল্লাহ।’’

‘‘আমি সাংবাদিক ভাইদের কাছে স্যরি বলার জন্যর ভিডিওটি করছি। আমার এখান থেকে সবার ফোন কল রিসিভ করা সম্ভব না। এ বিষয়টি নিয়ে কথা বলার মানসিকতাও আমার নেই। আপনার আমার জায়গা থেকে বিচার করবেন  আমি দোষী কি-না।’’

ভাইরাল হওয়া সেই অডিও ক্লিপটিতে মুরাদ হাসান ফোনটি করেন চিত্রনায়ক ইমনকে। তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, তারা এখন কোথায় আছে। পরে এক পর্যায়ে মুরাদ হাসান জানতে চান, তার সঙ্গে কে কে আছে?

ইমন তাকে জানান, এক পরিচালকের সঙ্গে তিনি ও মাহিয়া মাহি কথা বলছেন। পরে ফোনটি মাহিকে দেন ইমন। তখন মাহীর সঙ্গে অশ্লীল ভাষায় কথা বলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী। সেই সঙ্গে মাহিকে নিয়ে হোটেল সোনারগাঁওয়ে দেখা করতে বলেন প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। চিত্রনায়ক ইমনকে তিনি বলেন ঘাড় ধরে যেন মাহিকে তার কাছে নিয়ে যান।

ভাইরাল হওয়া ক্লিপটি তার স্বীকার করে ইমন বলেন, ‘‘ফাঁস হওয়া ফোনালাপটি সত্যি। তবে এটি সাম্প্রতিক নয়, বছর দুই আগের।’’

About

Popular Links