Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বলিউডের নতুন ডন রণবীর!

ডনের প্রথম রিমেকের সময় বলিউডে শাহরুখ খানের যে অবস্থান ছিল, সেই বিবেচনায় রণবীর সিংকে একদম নতুন মুখ বলা চলে

আপডেট : ১৫ আগস্ট ২০২৩, ১২:০৪ এএম

এক যুগ পরে আবারও নির্মাণ মঞ্চে উঠতে যাচ্ছে বলিউডের দুই প্রজন্মের চিরচেনা অ্যান্টি হিরো ডন। ১৯৭৮ সালে স্বনামধন্য লেখক জুটি জাভেদ আখতার ও সেলিম খানের সৃষ্ট এই চরিত্র জীবন্ত হয়ে ওঠে বিগ বি অমিতাভ বচ্চনের মাধ্যমে। অতঃপর ২০০৬ সালে এর রিমেক চরিত্রটিতে এনে দেয় আকাশচুম্বী তারকাখ্যাতি। এই খ্যাতির মধ্যমণি ছিলেন বলিউড বাদশা শাহরুখ খান। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১১ সালে নির্মাণ হয় এর সিক্যুয়াল, যেটি ডন সিরিজের আগের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছিল। এমনি যুগান্তকারী চরিত্রের ঝুলিতে যোগ হতে যাচ্ছে আরও একটি নাম- রণবীর সিং। বলিউডের ডন ৩ চলচ্চিত্রে কেন এই পরিবর্তন, কেমন-ই বা হতে যাচ্ছে নতুন ডন, চলুন জেনে নেওয়া যাক। 

ডন ফ্র্যাঞ্চাইজিতে নতুন যুগের সূচনা করবে ডন ৩

গত ৯ আগস্ট ডন ৩-এর টিজার প্রকাশ করে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এক্সেল এন্টারটেইনমেন্ট। এখানে নতুন ডন হিসেবে রণবীর সিং-এর আবির্ভাবের মধ্য দিয়ে ডন ফ্র্যাঞ্চাইজিতে নতুন যুগের সূচনার সংকেত দেওয়া হয়।

এক্সেল এন্টারটেইনমেন্ট ১৯৭৮ সালের ডন শিরোনামের ছবিটির স্বত্ব কিনে রিমেক করে ২০০৬-এ। ছবিটির সাফল্যের ধারাবাহিকতায় পাঁচ বছর পর নির্মিত হয় এর সিক্যুয়াল। তারপর থেকে ১২ বছর পর এবার তৃতীয় সংস্করণেও অপরিবর্তিত থাকছে প্রযোজক ও পরিচালক।

রিতেশ সিদ্ধ্যনির প্রযোজনায় সিনেমার চিত্রনাট্য ও পরিচালনার দায়িত্ব পালন করবেন ফারহান আখতার। ২০২৫ সালে ছবি মুক্তি দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে নির্মাণ কাজের একদম প্রাথমিক অবস্থায় রয়েছে চলচ্চিত্রটি। গল্প লেখার কাজটি ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে, যেটি গায়ত্রীর সঙ্গে যৌথভাবে সম্পন্ন করেছেন পরিচালক নিজে।

চলচ্চিত্রটির সঙ্গীত আয়োজনে আগের মতই থাকছেন সঙ্গীত ত্রয়ী শঙ্কর-এহসান-লয়। শঙ্কর মহাদেবন, এহসান নুরানি ও লয় মেন্ডনসার সমন্বয়ে গঠিত এই টিমটি ডনের থিম মিউজিকের জন্য সুপরিচিত।

সবচেয়ে বেশি পরিবর্তন দেখা যাবে যেখানে, সেটি হলো কাস্টিং। মূল নায়কের মত তার বিপরীতে থাকা হিরোইনের জায়গাও পরিবর্তন হচ্ছে। তবে “রমা” নামক জনপ্রিয় চরিত্রটিতে কাকে নেওয়া হবে তা এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয়নি।

১৯৭৮-এর সংস্করণে ছিলেন জিনাত আমান, আর রিমেক সিনেমা ও সিক্যুয়ালে মুগ্ধতা ছড়িয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। কিয়ারা আদভানি ডন-৩ দলের সঙ্গে যুক্ত হলেও রমা চরিত্রেই তিনি অভিনয় করছেন কি-না তা এখনও নিশ্চিত নয়।

“গাদ্দার ২” ও “ওএমজি ২”-এর সঙ্গে সংযুক্ত করে “ডন ৩”-এর টিজার প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা হয়েছে। রণবীর সিং সঞ্জয় লীলা বোনসালি পরিচালিত বৈজু বাওরা ছবির কাজ শেষ করেই “ডন ৩”-এর শুটিং শুরু করবেন। আর তাকে নিয়েই ডনের পরবর্তী মুভিগুলো তৈরি করার পরিকল্পনা করছেন নির্মাতা ও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান।

‘ডন ৩’-এ শাহরুখের জায়গায় রণবীর সিং

কোভিড-১৯ মহামারির সময়েই “ডন ৩” নিয়ে বেশ কয়েকবার শাহরুখ খানের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন ফারহান আখতার ও রিতেশ সিদ্ধ্যনি। এই মিটিংয়ের সময়গুলোতে পরিণত এক স্ক্রিপ্টে রূপ নিয়েছিল ডনের নতুন সংস্করণটি।

কিন্তু দুঃখজনক ব্যাপার হচ্ছে, কিং খান আবার ডন হিসেবে ফিরে আসতে খুব একটা আগ্রহী নন। তিনি এখন বিশ্বমানের বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রের দিকে ধাবিত হচ্ছেন। এ ধরনের সিনেমা বিভিন্ন সংস্কৃতির বিপুল পরিধির দর্শকদের একই ছাদের নিচে আনতে সক্ষম। আগামী কয়েক বছর তিনি এ ধরনের মুভি নিয়েই ব্যস্ত থাকতে চান। কিন্তু ডন এ ধরনের জনরার সঙ্গে খুব একটা খাপ খায় না।

ফ্র্যাঞ্চাইজিটিকে ধরে রাখার জন্য পরিচালক ফারহানসহ সংশ্লিষ্ট নির্মাতারা সময়ের সঙ্গে ডনের বিবর্তনকে তুলে ধরতে চেয়েছিলেন। সেই সূত্রে, তারা অমিতাভ বচ্চন ও শাহরুখ খানের সঙ্গে একজন উঠতি তারকাকে একত্র করার পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু “ধুনকি” ও “জওয়ান”-এর কাজ শেষ করা এসআরকে এই প্রস্তাব গ্রহণ করেননি।

ফারহান ও রিতেশের সঙ্গে শাহরুখকে এর আগে “দিল ধাড়কানে দো” ও “গালি বয়”-এর মত ছবিতে একসঙ্গে অভিনয় করতে দেখা গেছে।

এসআরকে-এর অনুপস্থিতির অভিযোগে মুখর হয়ে উঠেছিলেন নেটিজেনরা/কোলাজ

ডন রূপে রণবীর সিং: ডন ভক্তদের প্রতিক্রিয়া

ছবি নির্মাণের ঘোষণার পর থেকেই ডন ভক্তরা আবারও তাদের প্রিয় অ্যান্টি হিরো পর্দায় দেখার জন্য উৎসুক হয়ে উঠেছিলেন। কিন্তু ৯ আগস্টের টিজারটি যেন রীতিমত বজ্রপাতের মতো ছিল।

এসআরকে-এর অনুপস্থিতির অভিযোগে মুখর হয়ে উঠেছিলেন নেটিজেনরা। এদের মধ্যে ডনের জন্য অন্ধ ভক্তদের অত্যধিক আবেগের পরিস্ফুটন ছিল “বয়কটডন৩” হ্যাশ ট্যাগ ট্রেন্ড। শাহরুখ ছাড়া কোনো ডনকে তারা দেখতে নারাজ।

অনেকে পরামর্শ দিচ্ছেন- অমিতাভ বচ্চনকে পুনরায় ডন হিসেবে ফিরিয়ে আনার। এখানে ডনের মৃত্যুর মাধ্যমে ফ্র্যাঞ্চাইজিটির রাজকীয় ইতি ঘটানো যেতে পারে। অধিকাংশ ভক্ত শাহরুখকে দিয়ে ট্রিলজিটির একটি নিখুঁত সমাপ্তি চাচ্ছেন।

নিদেনপক্ষে রণবীর সিংকে ডন রূপে মনোনীত না করার অনুরোধের তোড়জোড় চলছে।

এই প্রতিক্রিয়ার প্রথম কারণ হচ্ছে শাহরুখ ও ডনের প্রতি ভক্তদের ভালবাসার সয়লাব। প্রিয় নায়কের দর্শনটা এমনিতে যেকোনো সিনেমা চলাকালেই পর্দার সামনে বসে যেতে বাধ্য করে দর্শকদের। সেখানে ডনের মধ্যে খ্যাতনামা চরিত্র হলে তো কথাই নেই।

দ্বিতীয়ত, ৮০-এর দশকের ডনের সেই অভিষেক ঘটানো থেকে শুরু করে রিমেক ও সিক্যুয়াল সবগুলোরই আছে বিপুল অর্জন। এই অদম্য চাপটি থেকে যাচ্ছে তৃতীয় সংস্করণের ঘাড়ে।

একদম প্রথমটি ২৬-তম ফিল্মফেয়ারে তিনটি বিভাগে পুরষ্কার জিতে। রিমেক চলচ্চিত্রটি নিউচেটেল ইন্টারন্যাশনাল ফ্যান্টাস্টিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সেরা এশিয়ান চলচ্চিত্রের পুরস্কার জিতে। পাশাপাশি এটি পরিণত হয় বছরের পঞ্চম সর্বোচ্চ উপার্জনকারী সিনেমায়।

সবচেয়ে বেশি নাম করে সিক্যুয়ালটি, যেটি পাঁচটি ফিল্মফেয়ার পুরষ্কার জিতে। এছাড়াও ডন-২ ছিল মুক্তির বছরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উপার্জনকারী চলচ্চিত্র।

রণবীর সিং ও নতুন ডনের সম্ভাবনার পরিমিতি

রণবীর সিং-এর শুরুটা ছিল যশ রাজ ফিল্মস-এর রোমান্টিক কমেডি “ব্যান্ড বাজা বারাত”-এ নায়কের ভূমিকার মাধ্যমে। শ্রেষ্ঠ পুরুষ অভিষেকের জন্য ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অর্জন করে অভিষেকেই বাজিমাত করে দেন রণবীর।

অন্যদিকে, চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের কাছে প্রশংসা পাওয়ার পাশাপাশি বাণিজ্যিকভাবেও সফল হয়। ২০১৩ সালের লুটেরার পর তিনি দৃষ্টি আকর্ষণ করেন প্রথিতযশা চলচ্চিত্র নির্মাতা সঞ্জয় লীলা বোনসালির। সেই বছরই তাকে প্রধান চরিত্রে কাস্ট করে নির্মিত হয় “রাম-লীলা”। আর এর পর থেকেই তুঙ্গে উঠে যায় তার তারকাখ্যাতি।

বোনসালির সঙ্গে তার করা ২০১৫ সালের “বাজিরাও মাস্তানি”-এর জন্য তিনি সেরা অভিনেতার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পান। আর ২০১৮ সালের “পদ্মাবতী”-এর জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতার ফিল্মফেয়ার সমালোচক পুরস্কার জিতেন। ২০১৮ সালের তার অ্যাকশন ফিল্ম সিম্বা সর্বোচ্চ আয়কারী ভারতীয় চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে স্থান পায়। পরবর্তীতে গালি বয় (২০১৯) ও ৮৩ (২০২১) মুভির জন্য তিনি আরও ফিল্মফেয়ার সেরা অভিনেতার পুরস্কার লাভ করেন।

সঙ্গত কারণেই বলিউডের সমালোচকরা রণবীরকে শক্তিশালী তারকা অভিনেতা হিসেবে বিবেচনা করেন। তাই সম্পূর্ণ পুরনো ডন হাজির না হলেও তার মাধ্যমে নতুন অভিজাত ডনের সম্ভাবনাকে একদম উড়িয়ে দেওয়া যাবে না।

শেষাংশ

ডনের প্রথম রিমেকের সময় বলিউডে শাহরুখ খানের যে অবস্থান ছিল, সেই বিবেচনায় রণবীর সিংকে একদম নতুন মুখ বলা চলে। ডন এসআরকে-এর সিগনেচার রোল হওয়ায় কেউ কেউ এই চরিত্রে বিগ বচ্চনের থেকেও তাকে বেশি আশা করেন।

তাছাড়া ভক্তদের হৈচৈকে ন্যায্যতা দেওয়ার স্বপক্ষে রয়েছে দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে বলিউডকে নেতৃত্ব দেওয়া এই হিরোর জনপ্রিয়তা। এরপরও পরিবর্তন অনেক ক্ষেত্রে নতুন আগ্রহের সৃষ্টি করে। রণবীর সিং সেটা কতটুকু সম্ভব করতে পারবেন, তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে বলিউডের “ডন ৩” মুভিটির প্রেক্ষাগৃহে আসা পর্যন্ত।

About

Popular Links