Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

আগেই চুক্তিবদ্ধ ছবির জন্য বাড়তি টাকা দাবি শাকিবের

  • ছয় মাস আগেই ৪০ লাখ টাকা অগ্রিম পারিশ্রমিক নিয়েছিলেন শাকিব খান
  • তবে ‘প্রিয়তমা’র কারণে ‘নীল দরিয়া’ সিনেমার শুটিং পিছিয়ে যায়
  • ‘প্রিয়তমা’র সাফল্যের পর ‘ধরাকে সরা জ্ঞান’ করছেন তিনি 
আপডেট : ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০২:১৯ পিএম

গত ঈদ-উল-আজহায় মুক্তি পাওয়া “প্রিয়তমা” সিনেমা যেন ঢাকাই সিনেমার জনিপ্রয় নায়ক শাকিব খানের ক্যারিয়ারের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে। আগে প্রতিটি সিনেমার জন্য ৩৫ থেকে ৫০ লাখ টাকা পারিশ্রমিক নিলেও “প্রিয়তমা”র আকাশচুম্বী সাফল্যের পর প্রতিটি সিনেমার জন্য তিনি কোটি টাকা চাইছেন। সে তিনি চাইতেই পারেন। তবে বিপত্তি দেখা দিয়েছে “প্রিয়তমা”র আগেই চুক্তিবদ্ধ হওয়া এক সিনেমা নিয়ে।

জানা গেছে, পারিশ্রমিকে চূড়ান্ত হওয়ার পর অগ্রিম নিয়েও “নীল দরিয়া” নামের একটি সিনেমায় কাজ করছেন শাকিব খান।

এক প্রতিবেদনে সংবাদমাধ্যম প্রথম আলো জানিয়েছে, গত ঈদ-উল-ফিতরের আগে পরিচালক বদিউল আলমের নতুন সিনেমা “নীল দরিয়া”তে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন শাকিব খান। সে সময় পারিশ্রমিক বাবদ ৪০ লাখ টাকা পরিশোধ করা হয় শাকিব খানকে। ২০ জুলাই থেকে সিনেমাটির শুটিং শুরু হওয়ার কথা ছিল।

পরিচালক শুটিংয়ের সব প্রস্তুতি নিলেও “প্রিয়তমা” সিনেমার শেষ মুহূর্তের কাজের জন্য শাকিব খান “নীল দরিয়ার” শিডিউল পিছিয়ে দেন।  অনেকটা তাড়াহুড়া করে নির্মিত “প্রিয়তমা” সিনেমাটি ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষে গত ২৯ জুলাই মুক্তির পর দারুণ সাফল্য পায়।

এরপরই নিজের পারিশ্রামিক কোটিতে হাঁকেন শাকিব খান। এমনকি আগেই চূড়ান্ত হওয়া “নীল দরিয়া” সিনেমার জন্য নেওয়া ৪০ লাখ টাকার সঙ্গে আরও ৬০ লাখ টাকা দাবি করেন তিনি। তবে শাকিবের দাবি করা বাড়তি পারিশ্রমিকে কাজটি করতে রাজি হননি প্রযোজক। ফলে সিনেমাটি আর হচ্ছে না।

যদিও শাকিব খান ছয় মাস আগে পারিশ্রমিক বাবদ নেওয়া ওই ৪০ লাখ টাকা প্রযোজককে ফেরত দিয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে আগে থেকে চূড়ান্ত হওয়ার অঙ্গীকার ভঙ্গ করায় ভীষণ নাখোশ চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা।

এ বিষয়ে পরিচালক বদিউল আলম প্রথম আলোকে বলেন, “আমরা যখন টাকাটা শাকিব খানকে দিই, ওই সময় ৩৫ থেকে ৫০ লাখের মধ্যে পারিশ্রমিক ছিল শাকিবের। আমরা বরং বাড়িয়ে ৪০ লাখ টাকা দিয়েছিলাম। ২০ জুলাই থেকে শুটিংয়ের শিডিউল দিয়েছিলেন। সেভাবে লোকেশনসহ শুটিংয়ের সব প্রস্তুতি নেওয়া ছিল আমার।”

তিনি আরও বলেন, “কিছুদিন পর হঠাৎ করেই শাকিব জানান, ‘প্রিয়তমা’ করে পরে এই ছবি করবেন। আমিও মেনে নিলাম। ঈদে ‘প্রিয়তমা’ হিট হয়ে গেল। শাকিব মত পাল্টালেন, পারিশ্রমিক বাড়িয়ে দিলেন। আগের চূড়ান্ত করা পারিশ্রমিকেও এখন কাজ করতে চাইছেন না। এখন তাকে নিয়ে কাজ করতে হলে আগের ৪০ লাখের সঙ্গে অযৌক্তিকভাবে আরও ৬০ লাখ দিতে হবে।, মোট এক কোটি। কিন্তু আমরা যখন তার সঙ্গে কাজের ব্যাপারে চূড়ান্ত করি, তখন যে পারিশ্রমিক ছিল, সেটি দিয়েই তাকে চূড়ান্ত করেছিলাম।”

এই পরিচালক বলেন, “এখন নতুন কোনো ছবিতে চুক্তি করতে সে এক কোটি বা দুই কোটি নিতেই পারেন। সেটি তার একান্ত নিজের ব্যাপার। কিন্তু আমরা তো আগের পারিশ্রমিকে চূড়ান্ত করেছি তাকে। এখন শাকিব আমাদের ছবির টিমের সঙ্গে এই দাবি করতে পারেন না। এটি তার নৈতিকতার মধ্যে পড়ে না। কমিটমেন্ট ঠিক না থাকলে তো হবে না। এটি অন্যায়।”

বদিউল আলম বলেন, “যদি ‘প্রিয়তমা’ হিট না হতো তাহলে কি তাকে দেওয়া চল্লিশ লাখ থেকে ২০ লাখ প্রযোজককে ফেরত দিতেন শাকিব?”

বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য জানতে শাকিব খানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি বলে জানিয়েছে প্রথম আলো।

About

Popular Links