Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

যে কারণে কৈশোরেই নিজেকে শেষ করে দিতে চেয়েছিলেন জনি লিভার

মাত্র ১৩ বছর বয়সে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন এই কৌতুক অভিনেতা

আপডেট : ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৮:৩০ পিএম

কৌতুক অভিনেতারা দর্শককে প্রতিনিয়ত হাসিয়ে চলেছেন। অথচ, তাদের ব্যক্তিগত জীবনের গল্প অনেক সময় ঢাকা পড়ে যায় হাসির আড়ালে। ব্যক্তিগত যন্ত্রণাও ঢাকা পড়ে যায় কৌতুকের আড়ালে। এই কথাগুলো বলিউডের আইকনিক কমেডিয়ান জনি লিভারের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। তিন শতাধিক ছবিতে কাজ করেছেন এই কৌতুক অভিনেতা। অথচ, তার নিজের জীবনের একটি অধ্যায় অন্ধকারে ঢাকা। জীবনের প্রতি এতটা বিরক্তি এসে গিয়েছিল যে, নিজেকে শেষ করে দেওয়ার চেষ্টাও করেছিলেন তিনি।

ভারতীয় একটি গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকারের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার জানিয়েছে, মানসিক অবসাদ জনিকে এতটাই গ্রাস করেছিল যে, মাত্র ১৩ বছর বয়সে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন তিনি।

জনি বলেন, “আমার মনে হয়েছিল বেঁচে থাকলে যন্ত্রণা আরও বাড়বে। তাই ঠিক করেছিলাম নিজেকে শেষ করে দিলে বোধহয় কষ্ট থাকবে না। সেই চিন্তা থেকে রেললাইনে শুয়েছিলাম ট্রেনের অপেক্ষায়। কিন্তু পাড়ার লোকজন আমাকে দেখে তুলে এনে বাঁচিয়েছিলেন।”

আত্মহত্যার এমন সিদ্ধান্তের পেছনের মূল কারণ জানিয়ে জনি বলেছেন, তারা যেখানে বসবাস করতেন সেটি ছিল মূলত অপরাধীদের আখড়া। চোখের সামনে বহু খুন হতে দেখেছেন তিনি। অভিনেতা না হয়ে অপরাধী হয়ে যেতে পারতেন তিনি।

সেই নেতিবাচক পরিবেশ জীবনের ওপর খারাপ প্রভাব ফেলেছিল বলেও জানান জনি।

জনির পারিবারিক নাম ছিল জন প্রকাশ রাও জানুমালা। নব্বইয়ের পর থেকে একটা দীর্ঘ সময় বলিউডে কৌতুকের স্থানটি একা হাতে ধরে রেখেছেন তিনি।

এক সাক্ষাৎকারে জনি নিজেই একবার বলেছিলেন, টানাটানির সংসারে সপ্তম শ্রেণির বেশি পড়াশোনা করতে পারেননি।

রোজগারে নামতে হয়েছিল অল্প বয়সে। কলম বিক্রি করতেন মুম্বাইয়ের রাস্তায়। অভিনব ছিল তার কলম বিক্রির পদ্ধতি। বলিউড তারকাদের নকল করে বেচতেন একটার পর একটা কলম। পরে নানা ধরনের চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে জনি ঢুকে যান ফিল্মি দুনিয়ায়।

সুনীল দত্তের “দর্দ কা রিস্তা” সিনেমায় কমেডিয়ান হিসেবে জনি প্রথম আত্মপ্রকাশ করেন। সাফল্য আসে “বাজিগর” সিনেমা দিয়ে। জনি এখন বেছে বেছে কাজ করেন।

About

Popular Links