Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জেনে নিন বিশ্বের সবচেয়ে দামি ৫ প্রাণীর খবর!

আমাদের আশেপাশ খেয়াল করলে দেখা যাবে যে প্রতি ৩ থেকে ৪টি পরিবারের মধ্যে অন্তত একটি পরিবার শখের বশে কোনও না কোনও পশু বা পাখি পালন করছে

আপডেট : ২৫ নভেম্বর ২০১৯, ০৮:৫৪ পিএম

পশু-পাখি পছন্দ করে না, এমন মানুষের সংখ্যা খুব কম। আমাদের আশেপাশ খেয়াল করলে দেখা যাবে যে প্রতি ৩/৪টি পরিবারের মধ্যে অন্তত একটি পরিবার শখের বশে কোনও না কোনও পশু বা পাখি পালন করছে। তবে পৃথিবীতে অসংখ্য প্রাণীর মধ্যে খুব কম সংখ্যক প্রাণীই আছে যারা মানুষের কাছে পোষ মানে। 

আজকে আমরা মানুষের পোষ্য এমন কিছু প্রাণীদের নিয়ে আলোচনা করবো যাদের দাম শুনে আপনাকে অবাক হতেই হবে। এই প্রাণীগুলোর দাম একটা হাইব্রিড কার কিংবা সমুদ্রের তীরঘেষা একটা আলিশান ফ্ল্যাটের থেকে কোনও অংশেই কম নয়!

১। স্টেগ বিটল (Stag Beetle)

শখের বসে পশু-পাখি পুষলেও পোকামাকড় পোষে এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া খুব দুষ্কর। তবে পোকাটির দাম যদি হয় ৫০-৬০ লাখ টাকা তাহলে যেকোনও ব্যক্তিই এমন পোকা পুষতে চাইবে। স্টেগ বিটল হচ্ছে এমন একটি পোকা। সম্প্রতি একজন পোকাপ্রেমী এই প্রজাতির সবচেয়ে বড় একটি স্টেগ বিটলের দাম হাকিয়েছেন ৬৩ লাখ টাকা। পৃথিবীতে অনেক মানুষ আছেন যারা শখের বসে বা আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার জন্য এই পোকাটি পুষে থাকেন।

উল্লেখ্য যে, স্টেগ বিটল পৃথিবীর সবচেয়ে দুর্লভ প্রাণীগুলোর মধ্যে একটি। এটি লম্বায় ২-৩ ইঞ্চি পর্যন্ত হয়ে থাকে। এর ম্যান্ডিবল অন্যান কীট-পতঙ্গের থেকে একটু বেশি বর্ধিত।

২। স্যার লেন্সলট (Sir Lancelot)

আমাদের দেশে কুকুর কেনার জন্য লাখ টাকা খরচা করার মতো লোখ খুব কমই আছে। কিন্ত উন্নত দেশগুলোতে সৌখিন লোকেরা লাখ লাখ ডলার পর্যন্ত ব্যয় করে এই প্রাণীর পেছনে। এডগার ও নিনা দম্পতির খুব প্রিয় কুকুরটি ২০০৮ সালে মারা যায়। এই দম্পতির কাছে কুকুরটি এতোটাই প্রিয় ছিল যে, কুকুরটি মারা যাওয়ার পর তারা এর ডিএনএ সংগ্রহ করে রাখেন। একইসাথে বায়োলজিস্টের সাথে যোগাযোগ করে মারা যাওয়া কুকুরের ক্লোন তৈরি করার জন্য ১ লাখ ৫৫ হাজার ডলার খরচ করেন। বাংলাদেশি টাকায় যা প্রায় সোয়া এক কোটি টাকার মতো।

৩। ডেভেরনভেল পারফেকশন (Deveronvale Perfection)

দুধ ও মাংসের চাহিদা মেটানোর জন্য প্রাচীনকাল থেকেই মানুষ ভেড়া পালন করে আসছে। অনেকে আবার শখের বশেও এই প্রাণীটি বাড়িতে পুষে থাকেন। কিন্তু আপনি কি কখনো ভেবেছেন একটা ভেড়ার দাম কোটি টাকা ছাড়িয়ে যেতে পারে ?

নর্থ স্কটল্যান্ডের বাসিন্দা এই ভেড়াটির নাম ডেভেরনবল পার্ফেকশন। সম্প্রতি ২ লাখ ৩১ হাজার পাউন্ড দিয়ে এই ভেড়াটিকে কিনে নিয়েছেন একজন ভদ্রলোক। স্বাভাবিকভাবে প্রশ্ন এসেই যায় যে, মূলত কী কারণে একটা ভেড়ার দাম দুই কোটি টাকা ছাড়িয়ে যেতে পারে? কী এমন অদ্ভুত জিনিস আছে এই ভেড়ার মধ্যে ?

এই ভেড়ার শারীরিক গঠন অন্যান্য ভেড়াদের চেয়ে অনেক আলাদা। শক্তি-সামর্থ্যের দিক দিয়েও এই ভেড়াটি সাধারণ ভেড়াগুলো থেকে বেশ কয়েকগুণ এগিয়ে। মূলত এই কারণেই চড়াদামে বিক্রি হয়েছিলো ভেড়াটি।

৪। মিস মিসি (Miss Missy)

পৃথিবীর সবচেয়ে দামী গাভীটির নাম হলো মিস মিসি। হোলস্টেইন প্রজাতির এই গাভীটি সাধারণ গাভীর তুলনায় ৫০ গুণ বেশি দুধ দিয়ে থাকে। এক সিজনে এটি প্রায় ৯৭০০ লিটার পর্যন্ত দুধ দেয়। ২০০৯ সালে যখন এই গাভীটিকে বিক্রির জন্য নিলামে তোলা হয় তখন এর দাম ওঠে ১.২ মিলিয়ন ডলার। যতোই দিন যাচ্ছিলো মিস মিসির দাম আরও বাড়ছিলো। মিসি’র দাম বাড়ার পেছনে অবশ্য আরও কিছু কারণ ছিলো। ২০১১ সালে মিসি ডেইরি এক্সপোতে সুপ্রিম গ্র্যান্ড চ্যাম্পিয়ন এওয়ার্ড এবং ২০১২ সালে সিকো হোলস্টেইন অব দ্যা কানাডা ওয়ার্ড জিতেছিলো।

৫। লাকি ক্যামেল (Lucky Camel)

এটা সত্য যে ধনী লোকেরা নিজেদের শখ পূরণে যেকোন জিনিস কেনার জন্য চরা মূল্য দিতেও প্রস্তুত থাকে। কিন্তু অনেক সময় সাধারণ কোন জিনিসের জন্য এতো বেশি পরিমাণ অর্থ ব্যয় করে যার কোন প্রয়োজনই নেই। এখন আমি আপনাদের এমন একটি প্রাণী সম্পর্কে বলব যাকে ৩ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করে কেনা হয়েছিলো। ২০০৮ সালে দুবাইয়ের ক্রাউন প্রিন্স শেখ হামদান বিন মোহাম্মদ বিন রাশিদ আল মাকতুম আবুধাবিতে একটি “ক্যামেল ফেস্টিভাল” আয়োজন করেন। ফেস্টিভালে আসা একটি উঠ তার নজর কাড়ে। কোনরুপ দরদাম না করেই তিনি উঠের মালিককে দশ মিলিয়ন দিরহাম দিয়ে উঠটি কিনে নেন। ডলারের হিসেবে যা প্রায় ৩ মিলিয়ন ডলার ও টাকার হিসেবে প্রায় ২৫ কোটি টাকা।

About

Popular Links