Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ধর্ষণ বন্ধে ‘বৈদ্যুতিক জুতা’

এমনকি জিপিএস সিস্টেমসহ বেশকিছু প্রযুক্তি রয়েছে জুতাটিতে যার মাধ্যমে সহজেই অপহরণকারীর লোকেশনও জানা যাবে

আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২০, ০৩:১৯ পিএম

জুতা পায়ে দিলেই বন্ধ হবে ধর্ষণ। এমনটাই দাবি করেছেন ওই জুতার আবিষ্কারক ভারতের রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বাপ্পা রায় বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জুতা জোড়ায় এক ধরনের সেন্সর লাগানো থাকবে, যা রাস্তায় চলার সময় কোনো বাধা-বিপত্তি থাকলে বিশেষ সিগন্যাল দেবে। তাদের সুরক্ষা দেবে এই বৈদ্যুতিক স্বয়ংক্রিয় জুতো।  এছাড়াও স্থানীয় নিরাপত্তা রক্ষাবাহিনীকে অপহরণ সংক্রান্ত তথ্য সরবরাহে সাহায্য করতে পারবে এই জুতা। এজন্য এর নাম দেওয়া হয়েছে “সেফটি সু”।

বাপ্পা রায় জানিয়েছেন, “এই সেফটি সুতে রয়েছে বিশেষ কিছু টেকনোলজি। এখানে জিপিএস সিস্টেম জুড়ে দেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে সহজেই লোকেশন জানা যাবে। এতে থাকবে ৬০০ ভোল্টের এসি কারেন্ট। এই বৈদ্যুতিক ক্ষমতা দিয়ে অনায়াসে আক্রমণকারীকে প্রতিহত করা যাবে।”

তিনি আরও বলেন , এর ভেতরে যে সার্কিটটি রয়েছে তা তৈরিতে খরচ হয়েছে মাত্র ১৪০ টাকা। সার্কিটের ভেতরে রয়েছে ডায়োড, ট্রানজিস্টর, ট্রান্সফরমার, রোধ এসব। সার্কিটটি জুতার ভেতর বসিয়ে সেখান থেকে কিছু ধাতব তার জুতার বাইরের গায়ে লেগে থাকবে। ওই তারগুলোয় থাকবে উচ্চমানের ভোল্টেজ। একটি ফুল চার্জের ব্যাটারি শুরুতেই এক হাজার ভোল্টের ধাক্কা দিতে সক্ষম হবে। “

হাঁটতে হাঁটতেই চার্জ জুতাটির ব্যাটারি জানিয়ে উদ্ভাবক বলেন, “এটি চার্জ দেওয়ার জন্য বাড়তি সময়ের প্রয়োজন হবে না।”

পরবর্তীতে জুতাটি নতুন বেশকিছু ফিচার যোগ করার পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান আবিষ্কারক বাপ্পা রায়। শিগগিরই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিআরডিও সেন্টারে এই অভিনব জুতার মোড়ক উন্মোচন করা হবে বলেও জানান তিনি।

About

Popular Links