Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অ্যাজমার চিকিৎসায় বিভিন্ন রকমের চা

প্রাকৃতিক উপায়ে চা সেবনের ফলে সহজেই অ্যাজমা রোগের চিকিৎসা সম্ভব

আপডেট : ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৫০ পিএম

অ্যাজমার মতো কঠিন রোগে ভুগলে শ্বাসকষ্টজনিত কারণে হার্টের এবং শ্বাসনালীতে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে। ঘরে বসে ভেষজ উপাদানের চিকিৎসায় সহজে আরাম পাওয়া যেতে পারে। যেমন নানারকম ভেষজ চা পানে অ্যাজমার সমস্যা নিরাময় সম্ভব। আদা চা, ব্ল্যাক টি, ইউক্যালিপটাস টি, গ্রিন-টি ইত্যাদি অত্যন্ত কার্যকরী অ্যাজমার চিকিৎসায়।

আদা চা একটি উপকারী ভেষজ চা। তাতে রয়েছে পরিমাণ মতো শর্করা এবং জৈব উপাদান যা ফুসফুসের ঠাণ্ডাজনিত প্রদাহকে নিয়ন্ত্রণ করে।

সাধারণত লেবুর রস, মধু, দারুচিনির গুঁড়া সঙ্গে মিশিয়ে আদার রস খেলে ও প্রদাহ নিয়ন্ত্রণ করা যায়। করে প্রতিদিন ৪৫০ মিলিলিটার আদার রস শরীর ঠাণ্ডা প্রদাহকে ধীরে ধীরে নিরাময় করে সেই সঙ্গে শ্বাসকষ্টও কমে। শ্বাসকষ্টের জন্য এটা খুবই উপকারী।

বিভিন্ন ধরনের রোগ যেমন ডায়াবেটিস, ক্যান্সার, উচ্চ রক্তচাপ এবং স্থূলতা দূর করতে খুবই উপকারী। গ্রিন টি-তে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং উদ্ভিজ্জ উপাদান যা থেকে দেহ পুষ্টি পায়। এক গবেষণায় দেখা গেছে, যে সকল লোক দিনে অন্তত দু কাপ গ্রিন টি খায় তাদের অ্যাজমা আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা কম থাকে। 

ব্ল্যাক টি ও রোগীদের স্বস্তি দেয় এবং এটি বেশ উপাদেয়। কারণ এতে রয়েছে ক্যাফেইন। ইউক্যালিপটাস পাতা থেকে ইউক্যালিপটাস চা তৈরি করা হয় যাতে রয়েছে অত্যন্ত উঁচুমানের এক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা আমাদের ফুসফুসের প্রদাহকে কমায় এবং অ্যাজমা রোগীদেরকে সহজে সারিয়ে তোলে এবং বুকের কফ জমে থাকার প্রবণতা কমায়।

প্রাকৃতিক উপায়ে চা সেবনের ফলে সহজেই অ্যাজমা রোগের চিকিৎসা সম্ভব। মূলত ফুসফুসের প্রদাহকে কমিয়ে আনে সব চাই এবং সাময়িকভাবে রোগীকে আরাম দেয়।

About

Popular Links