Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শিশুর ডেন্টাল ইনজুরি

ডেন্টাল ইনজুরি বলতে, আঘাত পেয়ে দাঁত পড়ে যাওয়া, ভেঙে যাওয়া বা মাড়ির ভেতরে দাঁত ঢুকে যাওয়া ইত্যাদি বোঝায়

আপডেট : ০২ নভেম্বর ২০২০, ০৪:২৪ পিএম

বাচ্চাদের দাঁতের সমস্যা নিয়ে আমরা প্রায়শই নাজেহাল হয়ে থাকি। দাঁতে ব্যথা, মাড়ি ফুলে যাওয়া বা ক্যাভিটির মতো দৈনন্দিন সমস্যা তো লেগেই থাকে। তবে ডেন্টাল ইনজুরির মত সমস্যা তৈরি হলে তখন একটু বেশি নজর দেওয়া দরকার। ডেন্টাল ইনজুরি বলতে, আঘাত পেয়ে দাঁত পড়ে যাওয়া, ভেঙে যাওয়া বা মাড়ির ভেতরে দাঁত ঢুকে যাওয়া ইত্যাদি বোঝায়। এরকম নানা ডেন্টাল ইনজুরির সমস্যা থেকে ভোগে বাচ্চারা। জেনে নিন এই অবস্থায় কী করা উচিত।

কী ধরনের ইনজুরি হতে পারে

বাচ্চা যদি খুব ছোট হয়, মানে দুধের দাঁত(প্রাইমারি টিথ) হয় তাহলে দাঁত অনেকসময় মাড়ির ভিতরে ঢুকে যায়। চোট লাগলে আবার দাঁত পড়েও যেতে পারে। এরসঙ্গে ল্যাসারেশন মানে টিস্যু ইনজুরিও দেখা যায়। 

মাড়িতে আঘাত লাগে ফলে মাড়ি থেকে দাঁতের কিছুটা অংশ বেরিয়ে আসে। আবার অনেক ক্ষেত্রে দাঁতের ভিতরের পাল্প বেরিয়ে আসে। বেশি আঘাত লাগলে এরসঙ্গে ব্লিডিং শুরু হয়। 

অনেকসময় আঘাত লাগার পর দাঁত হয়তো ভাঙল না, অল্প ব্যথার ওষুধ খেয়ে ব্যথা কমে গেল। তবে কোনওভাবে ভাস্কুলার ডিসটার্বেন্স হওয়ার কারণে দাঁত মৃত হয়ে যায়। তাই ২-৩ বছর পর দাঁত লালচে বা কালো হয়ে যায়। দাঁতের রং বদলে যায়।

প্রথমেই কী করণীয়

যেহেতু এই ধরনের আঘাতে দাঁত থেকে রক্ত পড়তে পারে, তাই প্রথমেই রক্ত বন্ধ করার চেষ্টা করতে হবে। আঙুলের ডগা দিয়ে চেপে ধরে রক্ত বন্ধ করতে পারেন। হাতের কাছে বরফ থাকলে, দেওয়ার চেষ্টা করুন। এতে রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যাবে। যদি দেখেন যে দাঁত নড়ে গিয়েছে তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ অবশ্যই নেবেন।

চিকিৎসা

দুধের দাঁত ও পারমানেন্ট দাঁতের ক্ষেত্রে চিকিত্‌সা পদ্ধতি অনেকটাই আলাদা। দুধের দাঁতের ক্ষেত্রে যদি ইনট্রুশন বা দাঁত মাড়ির মধ্যে ঢুকে যায়, তাহলে প্রথমে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। অনেকসময় কিছুক্ষণ পরে নিজের থেকেই দাঁত স্টেবল হয়ে যায়। 

নর্মাল পজ়িশনে আসার পর, অ্যান্টিসেপটিক অয়েন্টমেন্ট লাগাতে পারেন। তবে কোন অয়েন্টমেন্ট লাগাবেন, সেটা অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে কিনবেন। অনেকসময় মেডিকেটেড পেস্ট ব্যবহার করারও পরামর্শ দেওয়া হয়। এতে দাঁত ঠিক হয়ে গেলে পরবর্তী কালে স্থায়ীভাবে দাঁত বেরতে কোনও অসুবিধে হয় না। 

তবে, পারমানেন্ট দাঁত তৈরি হওয়ার ভিত নষ্ট হয়ে গেলে, পরে দাঁত উঠলে তা ডিফর্মেটিভ হতে পারে। অ্যাঙ্কিলোসিস মানে যেখানে দাঁতের গোড়া স্বাভাবিকভাবে আর দাঁতের টিস্যুর সঙ্গে লেগে থাকে না, ভেতরে ঢুকে যায়। সেক্ষেত্রে টিস্যু ইনজুরি হওয়ায় পারমানেন্ট টিথ বেরতে অসুবিধে হতে পারে। এজন্য ডাক্তারের কাছে নিয়মিত চেক-আপের প্রয়োজন।

পারমানেন্ট টিথের ক্ষেত্রে সমস্যা অনুযায়ী চিকিত্‌সা করানোর হয়। যদি দাঁতের ভিতরে পাল্প ইনজুরি হয়, তখন আগে পাল্প ইনজুরির ট্রিটমেন্ট করা হয়, তারপর দাঁত ঠিক করা হয়। দাঁতে এনামেলে ক্ষয় হলে আগে দাঁতের ফিলিং করা হয়। 

ইনজুরি পরবর্তী সাবধানতা

বাচ্চাকে হালকাভাবে ব্রাশ করান। 

খুব বেশি শক্ত খাবার যেমন মাংসের হাড়, কাঠবাদাম বা পেয়ারা না খাওয়াই ভাল। বিশেষ করে সামনের দাঁতের ক্ষেত্রে। 

হালকা স্যুপ, একটু নরম গলা ভাতও চলতে পারে। আইসক্রিমও খেতে পারে।

About

Popular Links