Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রূপচর্চা হোক প্রাকৃতিক উপাদানেই!

একটি কিংবা দু’টি উপকরণ দিয়ে বানানো এই ঘরোয়া টোটকার প্রতিটিই অব্যর্থ, উপকারও অনেক অনেক বেশি

আপডেট : ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০৩:১৪ পিএম

যদি নিত্যব্যবহারের সামগ্রীর সংখ্যা কমাতে চান, তাহলে ঘরোয়া যত্ন বেছে নিন। ভাববেন না, তা বাজারচলতি বাহারি কসমেটিক্সের চেয়ে কোনও অংশে কম। ঘরোয়া যত্নের ওপর চোখ বন্ধ করে ভরসা রাখাই যায়। একটি কিংবা দু’টি উপকরণ দিয়ে বানানো এই ঘরোয়া টোটকার প্রতিটিই অব্যর্থ। বলাই বাহুল্য, উপকারও অনেক অনেক বেশি। জেনে নিন সেরকমই কয়েটি উপায়।

১. মুখ পরিষ্কার করতে কাজে লাগাতে পারেন দুধ। ঠাণ্ডা দুধে তুলো ডুবিয়ে মুখ মুছে নিন। চাইলে অল্প বেসন মিশিয়ে মুখ ঘষে নিতে পারেন। নিমেষে ত্বক উজ্জ্বল হবে।

২. মৃতকোষ দূর করতে কফি, লেবুর খোসা, গুড়ো দুধ বা মসুরের ডাল বাটা কাজে লাগাতে পারেন। যেকোনও একটি উপকরণের সঙ্গে পরিমাণমত নারকেল তেল মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে পুরো মুখে লাগান। মিনিট দশেক রেখে আপওয়র্ড ডিরেকশনে ঘষে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

৩. মধু ও বেকিং সোডার মিশ্রণ যেকোনও ব্ল্যাকহেড স্ট্রিপের তুলনায় বেশি কার্যকর এবং কম বেদনাদায়কও।

৪. শসার রস, টমেটোর রস বা ডাবের জল টোনার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। ময়শ্চারাইজার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন দুধের সর, টক দই কিংবা অলিভ অয়েল। তবে এই ধরনের উপাদান দিনের বেলায় ব্যবহার করবেন না। রাতে লাগিয়ে আধঘণ্টা রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

৫. পছন্দের সিট্রাস ফলের ক্বাথ ও মুলতানি মাটি বা চন্দন গুড়ো মিশিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন মাস্ক। ত্বকে চটজলদি জেল্লা আনতে এবং ত্বক পরিষ্কার রাখতে দারুণ সাহায্য করবে।

৬. শরীর ময়শ্চারাইজড রাখতে অলিভ অয়েল বা আমন্ড অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। নারকেল তেল ও পানির মিশ্রণও উপকারী। এই মিশ্রণ ত্বকে জেল্লাও আনবে।

৭. মেথি ভেজানো পানিতে চুল ধুলে খুসকির উপদ্রব কমবে। চুলের গোড়া মজবুত করতে কারিপাতা তেলে ফুটিয়ে ছেঁকে, তাতে পেঁয়াজের রস মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। পোড়া রসুনের কোয়া তেলে মিশিয়ে ব্যবহার করলে চুল কালো হবে।

৮. কন্ডিশনারের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন অ্যাপল সাইডার ভিনিগার, চায়ের লিকার কিংবা অ্যালোভেরা জেল। চুল নরমও হবে, চকচকেও হবে।

৯. পাকা কলা, ডিমের মিশ্রণ বহু যুগ ধরে হেয়ার মাস্ক হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। তবে পাকা কলা অতিরিক্ত চটচটে মনে হলে, তার পরিবর্তে মেশাতে পারেন যেকোনও তেল। 

১০. নারকেলের দুধ, আমলকির ক্বাথ আর সঙ্গে মেথিবাটাও হেয়ার মাস্ক হিসেবে বেশ ভাল।

About

Popular Links