Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

উপসর্গ দেখা দিলে যেভাবে ‘আইসোলেশনে’ থাকবেন

আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তিকে অবশ্যই সবসময় মাস্ক পরে থাকতে হবে। ঘুমানোর সময় একা ঘুমাতে হবে

আপডেট : ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৮:১২ পিএম

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এখন উদ্বেগজনকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। এ ভাইরাস সংক্রমণের প্রথম লক্ষণ হলো জ্বর এবং শুকনো কাশি। এরপর ধীরে ধীরে গলা ব্যথা, শ্বাসকষ্টের মতো সমস্যা দেখা দেয়। 

অনেকের ক্ষেত্রে পেটের সমস্যা, স্বাদ ও ঘ্রাণ চলে যাওয়ার মতো উপসর্গও দেখা দেয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, এ ধরনের সমস্যা দেখা দিলে দেরি না করে “সেলফ আইসোলেশনে” চলে যান অর্থাৎ নিজেকে অন্যদের সংস্পর্শ থেকে সম্পূর্ণ আলাদা করে ফেলুন।

অনেকেরই মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, সেলফ আইসোলেশনে কিভাবে থাকবেন। বিষেজ্ঞদের মতে, করোনাভাইরাসের লক্ষণ থাকলে ঘরে থাকতে হবে। নিজেকে অন্যদের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা রাখতে হবে। তা না হলে পরিবার, কর্মস্থল বা সামাজিক পরিমণ্ডলে যারা আছেন তাদের মধ্যে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। 

করোনাভাইরাস সংক্রমণের সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকেন বয়স্করা, তাই তাদের থেকে অবশ্যই দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আইসোলেশনে থাকা কোনো ব্যক্তির সাথে যারা এক বাড়িতে বসবাস করছেন, তাদের ঘন ঘন হাত ধুতে হবে। বিশেষ করে সংক্রমিত কারো সংস্পর্শে আসার পর অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধুতে হবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আইসোলেশনে থাকার সময় ভালোভাবে যাতে ঘরে বাতাস ও সূর্যের আলো প্রবেশ করে এ জন্য জানালা আছে এমন একটি ঘরে থাকার চেষ্টা করতে হবে। বাজার-হাট কিংবা ওষুধের মতো দরকারি কোনো জিনিস কিনতে হলে পরিবারের সদস্য, বন্ধুদের বলুন। 

যদি ঘরে থাকার জন্য আলাদা রুম না থাকে তাহলে ঘরের অন্য সদস্যদের সাথে যতটা সম্ভব দূরত্ব বজায় রাখুন। এক্ষেত্রে কমপক্ষে ২ মিটার বা ৬ ফুট দূরে থাকতে হবে। বাসার সবাইকে মাস্ক পরিধান করে থাকতে হবে, বিশেষ করে আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তিকে অবশ্যই সবসময় মাস্ক পরে থাকতে হবে। ঘুমানোর সময় একা ঘুমাতে হবে।

আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তির আলাদা একটি বাথরুম ব্যবহার করা উচিত। সেটা সম্ভব না হলে নিয়ম করে সেটা ব্যবহার করতে হবে। আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তির ব্যবহারের পর সম্ভব হলে সেটি ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে। আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তির সঙ্গে তোয়ালে, টুথপেস্ট, সাবান, শ্যাম্পু, কন্ডিশনার বা এ রকম কোনো টয়লেট্রিজ জিনিস ব্যবহার করা যাবে না।

যিনি আইসোলেশনে আছেন তাকে কেউ খাবার বা জিনিসপত্র দিতে এলে ঘরের দরজার বাইরে সেগুলো রেখে দিতে বলুন। ঘরের মেঝে, টেবিল চেয়ারের উপরিভাগ প্রতিদিন তরল সাবান বা অন্য জীবাণূনাশক যেমন ডেটল, স্যাভলন বা লাইজল দিয়ে নিয়মিত পরিষ্কার করা উচিত। 

আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তির ফেলা বা সংস্পর্শে আসা সব রকম আবর্জনা একটি ময়লার ব্যাগে ভরে তা আবার আরেকটি ব্যাগে করে রাখুন। ব্যক্তির করোনাভাইরাস নিশ্চিত হলে ওই আবর্জনা কীভাবে ফেলতে হবে, সে ব্যাপারে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

About

Popular Links