Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অতিরিক্ত আবেগ নিয়ন্ত্রণ করুন কিছু সহজ কৌশলে

আবেগ নিয়ন্ত্রণে না থাকলে প্রতি পদে পদে আমাদের নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়

আপডেট : ১৫ জুন ২০২৩, ০৮:৪২ পিএম

অধিকাংশ সময়ই দেখা যায় আমাদের আবেগ  নিয়ন্ত্রণে থাকে না কিংবা আমরা নিজেরাই আবেগ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হই। অতিরিক্ত আবেগ বা অনিয়ন্ত্রিত আবেগ আমাদের শারীরিক ও মানসিক উভয় স্বাস্থ্যের জন্যই ক্ষতিকর। তাই শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকতে মানসিক উত্তেজনা এবং অতিরিক্ত আবেগ নিয়ন্ত্রণে রাখা অত্যন্ত জরুরি।

যখন আমাদের আবেগ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়, তখন যেকোনো কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। আবেগ নিয়ন্ত্রণে না থাকলে প্রতি পদে পদে আমাদের নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। 

যেকোনো বিষয়ে উত্তেজনা বা অতিরিক্ত আবেগ নিয়ন্ত্রণের কিছু সহজ কৌশল রয়েছে। যা মেনে চললে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যেতে পারে। চলুন জেনে নেওয়া যাক সে সম্পর্কে-

উল্টো গণনা: মনোবিদদের কাছে এটি মানসিক উত্তেজনা প্রশমনের একটি বেশ জনপ্রিয় কৌশল। যখন দেখবেন কোনো বিষয়ে আপনি অস্থির হয়ে পড়ছেন, তখন চোখ বন্ধ করে বড় করে একটা শ্বাস নিন, তারপর ১০ বা ১৫ যেকোনো সংখ্যা থেকে উল্টো করে গুণতে শুরুর করুন। এটি আপনার উত্তেজনা প্রশমন করে আপনাকে মানসিক স্থিতিশীলতা প্রদান করবে এবং আপনার অনিয়ন্ত্রিত চিন্তাভাবনা নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করবে।

মানসিক চাপ সৃষ্টি হয় এমন অবস্থা এড়িয়ে চলুন: উত্তেজিত হওয়ার মতো পারিপার্শ্বিক অবস্থা এড়িয়ে চলার মানে কোনো বাস্তব পরিস্থিতি বা দৈনন্দিন জীবন থেকে মুখ ফিরিয়ে নেওয়া নয়। আপনার চারপাশ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, মন ভালো হয়ে যায় এবং অনুপ্রেরণা প্রদান করে এমন ছবি, লেখা ইত্যাদি দিয়ে নিজের ঘর বা অফিস সাজিয়ে রাখুন; অর্থাৎ এমন পরিবেশ তৈরি করুন যা আপনার মানসিক উত্তেজনা প্রশমনে আপনাকে সহায়তা করবে।

দৈনন্দিন কাজের সমন্বয়: প্রতিদিনের কাজ যদি একটি নির্ধারিত রুটিনে করা যায় তাহলে কাজের অতিরিক্ত চাপ কখনোই বিভ্রান্তির মাঝে ফেলতে পারবে না। এতে যেমন আমাদের মানসিক চাপ কমবে তেমনি অতিরিক্ত কাজের চাপের ফলে সৃষ্ট উত্তেজনাও প্রশমিত হবে।

কিছু অপ্রত্যাশিত অবস্থা মেনে নিন: এমন নয় যে আপনি সবসময় সব কিছু পারবেন বা সবসময় সবকিছু আপনার নিয়ন্ত্রণে থাকবে। তাই সহজভাবে নিজের অপারগতাগুলো স্বীকার করতে শিখুন। আপনার আওতার বাইরে থাকা বিষয়গুলোর প্রতি মনোযোগ না দিয়ে আপনি কী কী পারছেন বা পারবেন সেগুলো নিয়ে চিন্তাভাবনা করুন। এতে অনিশ্চয়তা আপনাকে স্পর্শ করতে পারবেনা এবং এসব ভেবে আপনার মানসিক উত্তেজনাও বৃদ্ধি পাবেনা।

নিজের জীবনের চালক আপনি নিজেই। আপনি যেভাবে চাইবেন, আপনার জীবনও ঠিক সেভাবেই চলবে। তাই অযথা দুশ্চিন্তা করে সুন্দর সময় নষ্ট করবেন না। অযাচিত মানসিক আবেগ পরিহার করে সুস্থ ও সুন্দরভাবে জীবন অতিবাহিত করুন।

About

Popular Links