Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রুক্ষতার কারণে ফেটে যাচ্ছে চুলের আগা?

প্রায়ই ব্যস্ততার কারণে চুলের যত্নে আমরা এমন কিছু ব্যবহার করি, যা আমাদের চুলের জন্য আরও বেশি ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়

আপডেট : ১০ মার্চ ২০২২, ১২:০০ পিএম

উজ্জ্বল, জটহীন, মসৃণ সুন্দর চুল কে না চায়? কিন্তু, এজন্য প্রয়োজন চুলের যত্ন। তবে যত্নের পরও যদি আগা ফাটার সমস্যা থেকে যায়, তবে মোটেই সুন্দর দেখাবে না চুল।

প্রায়ই ব্যস্ততার কারণে চুলের যত্নে আমরা এমন কিছু ব্যবহার করি, যা আমাদের চুলের জন্য আরও বেশি ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। চুলের সৌন্দর্য বলতেই আমরা শ্যাম্পু আর হেয়ার স্টাইলিংয়ের ওপরেই বেশি ভরসা করি। কিন্তু, চটজলদি শ্যাম্পু করা, কেমিক্যাল ইউজ করা, হিটিং টুলস ব্যবহার করার ফলে চুলের আগা ফাটার মতন সমস্যাগুলো বাড়তে থাকে।

সেক্ষেত্রে, চুল ভেঙে যায়, রুক্ষ, অসুস্থ ও নিষ্প্রাণ হয়ে যেতে থাকে। তখন, আগা থেকে কেটে ফেলা ছাড়া আর কোনও উপায় থাকে না।

আমাদের চুলের আগা ফেটে যাওয়ার কারণ কি তাহলে? আর্দ্রতার অভাবই চুলের আগা ফাটার প্রধান কারণ। চুল অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে গেলে তা ফ্যাকাসে হয়ে যায়, তাই আগার দিক থেকে ফেটে যেতে থাকে। এছাড়াও নানা কারণে চুল আর্দ্রতা হারিয়ে, শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। আসুন জেনে নেই চুল কীভাবে তার আর্দ্রতা হারিয়ে ফেলে:

ঘনঘন শ্যাম্পু ব্যবহার করা:

অতিরিক্ত কেমিক্যাল থাকা শ্যাম্পু বারবার ব্যবহার করলে তা চুলের আর্দ্রতা নষ্ট করে ফেলতে পারে। এমনকি, শ্যাম্পু যদি আপনার চুলের জন্য মানানসই না হয়, তা হলেও তা চুল রুক্ষ করে দিতে পারে। এবং একসময় এর কারণে চুলের আগা ফেটে যাওয়াও স্বাভাবিক!

ব্লো ড্রাই করা:

বর্তমানে চুল সেট করে রাখতে আমরা ব্লো ড্রাইয়ার ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু, যদি তা আমরা প্রতিনিয়তই করতে থাকি তা চুলের আর্দ্রতা নষ্ট করে দিতে পারে। 

2021/07/bill-pay-news-portel-770-x-90-1-1627508263794.gif

হেয়ার কালার করা:

হেয়ার কালারের ক্ষেত্রে চুলে কেমিক্যালের ব্যবহার করতে হয় এমনকি ব্লিচও ব্যবহার করা হয়ে থাকে। যার ফলে চুলের মারাত্মক ক্ষতি হয়। এবং চুলে লাগানো কেমিক্যাল চুলের স্বাভাবিক আর্দ্রতা নষ্ট করে ফেলে।

অতিরিক্ত চুল আঁচড়ানো:

অনেকে খুব ঘনঘন চুল আঁচড়ান কিংবা দ্রুত হাত হেয়ার ব্রাশ করেন। যার ফলেও চুলের আগা ফেটে যেতে পারে।

অতিরিক্ত হেয়ার স্টাইলিং:

চুল স্ট্রেট করা, কার্ল করা, পার্ম করা বা ব্লো ড্রাই করার কারণে অনেক বেশি রুক্ষ হয়ে যায়।

জিনগত কারণ:

শুধু বাহ্যিকগত কারণেই নয়, জিনগত কারণেও অনেকেরই চুল জন্মগতভাবেই শুষ্ক হয়ে থাকে। তা ছাড়া জিনগত কারণে অনেকেই চুলের গঠন অসমান হয়ে থাকে। তাই তাদের চুল রুক্ষ ও শুষ্ক হয়।

About

Popular Links