Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শ্বশুর দিবস: সঙ্গীর বাবাকেও দিন প্রাপ্য সম্মান

যদিও একটি দিবস দিয়ে সম্পর্কের উদযাপন ভালোবাসার সঠিক প্রকাশ সম্ভব না

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২৩, ০৬:৪৫ পিএম

ছেলেদের ক্ষেত্রে শ্বশুরের সঙ্গে সম্পর্কের রসায়নটা একেকজনের একেকরকম। কারো কাছে শ্বশুরের সঙ্গে সম্পর্ক নিজের বাবার মতো, আবার কারো কাছে তিনি যেন দূরের মানুষ।

তবে সবকিছু ছাপিয়ে এই সম্পর্কটা বিবাহিত মানুষের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আর এই জন্যই কি-না শ্বশুরের সঙ্গে উদযাপনের জন্যও রয়েছে আলাদা দিবস। আর সেই দিনটি আজই। বছরের ৩০ জুলাই বিশ্বজুড়ে পালন করা হয় শ্বশুর দিবস।

একটি দিবস দিয়ে সম্পর্কের উদযাপন ঠিক ভালোবাসার সঠিক প্রকাশ ঘটায় না। তবুও দিনটি পালন করে কিছুটা ভিন্নতার স্বাদ তো নেওয়াই যেতে পারে।

প্রশ্ন হলো, কীভাবে এলো এমন এক দিবসের চিন্তা? এ নিয়ে অবশ্য ভিন্ন ভিন্ন যুক্তি রয়েছে। যেমন একটি যুক্তি হলো- অনলাইন উপহার কার্ড প্রতিষ্ঠানগুলোই এমন দিবসের জন্ম দিয়েছে। মূলত এটি একটি বাণিজ্যিক কার্যক্রমের অংশ!

আবার কেউ কেউ বলে থাকেন, শাশুড়ির সঙ্গে তো সম্পর্ক মোটামুটি এমনিতেই হয়ে যায়। এতে কিছুটা অভিমান থেকে যায় শ্বশুরদের। আর সেজন্যই শাশুড়িদের উর্বর চিন্তার ফসল এই শ্বশুর দিবস। তাতে করে একটু আয়োজনের উপলক্ষও পাওয়া গেল!

এসব হালকা যুক্তির বাইরে অবশ্য একটি ভারি উদাহরণও রয়েছে এই দিবসকে ঘিরে। ধারণা করা হয়, ইউরোপীয় সম্রাট ডেনমার্কের নবম ক্রিশ্চিয়ান এবং মন্টিনিগ্রোর প্রথম নিকোলাস ইউরোপের শ্বশুর-শাশুড়ি হিসেবে পরিচিত। তাদের সব সন্তানই বিদেশি রাজকুমার এবং রাজকন্যাদের বিয়ে করেছিল। আর এটির স্মরণেই এমন দিবস পালন করা হয়ে থাকে।

যদিও কেন এই দিবস ৩০ জুলাই পালন করা হয় তা নিয়ে কোনো ব্যাখ্যা ঠিকঠাক জানা যায়নি।

এখন জেনে নেওয়া যাক, কীভাবে পালন করবেন এই দিবস?

শ্বশুরকে কার্ড পাঠান

শ্বশুরকে এই দিবসের শুভেচ্ছা জানাতে তাকে সুন্দর বার্তাসহ কার্ড পাঠান। এমন প্রচুর কার্ড পাবেন উপহারের দোকানে। অবশ্য নিজে নিজেও এমন কার্ড বানিয়ে ফেলতে পারেন।

শ্বশুরের প্রিয় কাজ করুন

এমন দিনে শ্বশুরের সঙ্গে আড্ডা দিতে পারেন। তার সঙ্গে দিনের খাবার খাওয়া, কোথাও ঘুরতে যাওয়া বা তার পছন্দের কাজে যেতে পারেন। এমনকি তার সঙ্গে দাবা, ফুটবলও খেলতে পারেন। দেখতে পারেন চমৎকার একটি সিনেমাও।

বন্ধন বৃদ্ধিতে আলাপন

শ্বশুরের সঙ্গে আলাপ করতে পারেন। গল্পে গল্পে বুঝে নিতে পারেন তার ভালোমন্দ। সেভাবে তার সঙ্গে চিন্তা বিনিময় করতে পারেন। সংকটে থাকলে তাকে সেটি উদ্ধার হওয়ার পথ বাতলে দিতে পারেন। সবমিলিয়ে তার সঙ্গে এমনভাবে কথা বলুন, যাতে তিনি আপনার কথায় নিজেকে আরও শক্তিশালী মনে করতে পারেন। আপনার ওপর ভরসা করতে পারেন।

About

Popular Links